লোকসভা নির্বাচন ২০১৯: বিজেপিকে ভোট দিয়ে আঙ্গুল কেটে ফেললেন ভোটার

পবন কুমার ছবির কপিরাইট YOGESH KUMAR SINGH
Image caption পবন কুমার। বিএসপির বদলে ভুল করে বিজেপিকে ভোট দিয়ে রাগে আঙ্গুল কেটে ফেলেন

ভারতের উত্তর প্রদেশের বুলান্দশেহর এলাকার ভোটার পবন কুমার বৃহস্পতিবার ভোট দেওয়ার পর নিজের তর্জনী কেটে ফেলে হৈচৈ ফেলে দিয়েছেন।

আঙুলে ব্যান্ডেজ বাঁধা ২৫ বছরের এই দলিত যুবকের ভিডিও ফুটেজ সোশাল মিডিয়ায় ঝড় তুলেছে।

পবন কুমার বলেন, তিনি ভোট দিতে গিয়েছিলেন হিন্দু জাতীয়তাবাদী দল বিজেপি বিরোধী মোর্চার শরীক বহুজন সমাজ পার্টি বা বিএসপির প্রার্থীকে। কিন্তু ভোটকেন্দ্রে ঢুকে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে নানা প্রতীক দেখে বিভ্রান্ত হয়ে পড়েন। ভুল করে ভোট দিয়ে ফেলেন বিজেপিকে।

এরপর ভুল বুঝতে পেরে অনুশোচনা এবং ক্রোধে কেটে ফেলেন তার তর্জনীর ওপরের কিছু অংশ।

ভারতে ভোট দেওয়ার পর ভোটারদের তর্জনীর ওপর দিকে অমোচনীয় কালির দাগ দিয়ে দেওয়া হয়। কালির দাগ দেওয়া আঙ্গুলের অংশটি ছুরি দিয়ে কেটে ফেলেন পবন কুমার।

তার পছন্দের দল বিএসপির নির্বাচনী প্রতীক হাতি। আর ক্ষমতাসীন হিন্দু জাতীয়তাবাদী বিজেপির প্রতীক পদ্মফুল।

সামাজিক গণমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ভিডিও ফুটেজে পবন কুমারকে বলতে শোনা যায়, "আমি ভোট দিতে চেয়েছিলাম হাতি মার্কায়, কিন্তু ভুল করে ফুল মার্কায় চাপ দিয়ে ফেলি।"

পবন কুমার দলিত সম্প্রদায়ের মানুষ, আর দলিতরাই বহুজন সমাজ পার্টির প্রধান ভোটব্যাংক।

আরও পড়ুন:

পশ্চিমবঙ্গের ভোটে ধর্ম কেন এবার গুরুত্ব পাচ্ছে ?

ভারতে ভোটের প্রচারে তারকা ফেরদৌস, ক্ষুব্ধ বিজেপি

পবনের ভাই কৈলাস চন্দ্র বার্তা সংস্থা এএফপিকে বলেন, তার ভাই প্রথমবারের মত ভোটার হয়ে খুবই খুশী ছিল। "কিন্তু ভুল যায়গায় ভোট দিয়ে ফেলেছে তা বোঝার পর থেকেই তর্জনীর দিকে তাকিয়ে রাগে ফেটে পড়ছিল। তারপর একসময় আঙ্গুলটি কেটে ফেলে।

সোশাল মিডিয়াতে ছড়িয়ে পড়া ভিডিওতে দেখা যায় একটি টয়লেটের পাশে আঙ্গুলে ব্যান্ডেজ বাঁধা এক যুবক দাঁড়িয়ে। তার পায়ের নীচে একটি ছুরি।

সম্পর্কিত বিষয়