ত্রিদেশীয় ক্রিকেট সিরিজ: দারুণ খেলে প্রথমবার ফাইনাল জিতলো বাংলাদেশ

ছবির কপিরাইট Getty Images
Image caption ট্রফি হাত সৌম্য সরকার, মুশফিকুর রহিম ও মেহেদী হাসান মিরাজ

বৃষ্টিবিঘ্নিত ম্যাচে ডাকওয়ার্থ লুইস পদ্ধতিতে বাংলাদেশের সামনে টার্গেট ছিলো ২৪ ওভারে ২১০।

সৌম্য সরকার ও মোসাদ্দেক হোসেনের দারুণ ব্যাটিংয়ে সাত বল ও পাঁচ উইকেট হাতে রেখেই জয় ছিনিয়ে নেয় বাংলাদেশ।

এর মাধ্যমেই এই প্রথম কোনো টুর্নামেন্ট বা বহুজাতিক সিরিজের শিরোপা জিতলো বাংলাদেশ।।

এর আগে মোট ছয়বার বিভিন্ন ত্রিদেশীয় বা বহুজাতিক সিরিজ বা টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলেছে, যার প্রতিটিতেই হেরেছে বাংলাদেশ।

বাংলাদেশের হয়ে সর্বোচ্চ ৬৬ রান করেছেন ওপেনার সৌম্য সরকার আর দ্বিতীয় সর্বোচ্চ করেন মোসাদ্দেক হোসেন ৫২ রান। মোসাদ্দেক ২৪ বলে এই রান সংগ্রহ করে প্লেয়ার অব দ্য ম্যাচ নির্বাচিত হয়েছেন।

ছয়টি ফাইনালে হারার পর বাংলাদেশের সেরা সুযোগ?

এশিয়া কাপ: বাংলাদেশের দল নির্বাচন প্রক্রিয়া নিয়ে প্রশ্ন

শুরুতে বাংলাদেশের অধিনায়ক মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা টস জিতে বোলিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন।

ব্যাট করতে নেমে শুরুতে ধীরগতির শুরু করেন শাই হোপ, সুনীল আম্ব্রিস।

২০ ওভারে রানের গতি বাড়িয়ে ১৩১ রান তোলেন ক্যারিবিয়ান ওপেনাররা।

এরপর বাঁধ সাধে বৃষ্টি।

বৃষ্টি কমার পর খেলা নেমে আসে ২৪ ওভারে ওয়েস্ট ইন্ডিজ তোলে ১ উইকেট হারিয়ে ১৫২।

ডাকওয়ার্থ লুইস মেথডে বাংলাদেশের লক্ষ্য দাঁড়ায় ২১০ রান।

ঝড়ো গতির শুরু করে বাংলাদেশের উদ্বোধনী জুটি।

ছবির কপিরাইট Getty Images
Image caption দর্শকদের উল্লাস

তামিম যখন ১৩ বলে ১৮ করে আউট হন দলীয় সংগ্রহ তখন ৫ ওভার ৩ বলে ৫৯।

এরপর সৌম্য সরকার ৪১ বলে ৬৬ রানের ইনিংস খেলে ভিত গড়ে দিয়ে যান।

মুশফিক -মিথুন জুটি খানিকটা চেষ্টা করলেও শেষ পর্যন্ত ব্যবধান গড়ে মাহমুদউল্লাহ ও মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতের জুটি।

২০ বলে ফিফটি করে মোসাদ্দেক বাংলাদেশের হয়ে দ্রুততম অর্ধশতক হাকান।

৭ বল ও ৫ উইকেট হাতে রেখে দলকে জয় এনে দেন।

সম্পর্কিত বিষয়