ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৯: মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ বড় মঞ্চের নায়ক?

ক্রিকেট, রিয়াদ, বাংলাদেশ, বিশ্বকাপ ছবির কপিরাইট Phil Walter
Image caption ২০১৫ বিশ্বকাপে সেঞ্চুরির পর মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ।

মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, বয়স ৩৩, বাংলাদেশের বর্তমান দলের সেরা পাঁচ ক্রিকেটারের একজন বলে বিবেচ্য।

কাগজে-কলমে বাকি চারজন ক্রিকেটারদের অর্জনের অনেক কিছুই তার নামের পাশে নেই।

কিন্তু মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ বাংলাদেশ দলের সব বড় অর্জনের সাথে জড়িয়ে আছেন ভালোভাবে।

১৭৫ ম্যাচের ক্যারিয়ারে করেছেন তিনটি সেঞ্চুরি, তিনটিই আইসিসি ইভেন্টে।

এক নজরে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের ক্যারিয়ার

২০০৭ সালে অভিষেক হয় মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের।

রিয়াদের ভূমিকা ছিল- একজন ব্যাটসম্যান যিনি মিডল অর্ডারে ব্যাট করেন এবং হাত ঘুরিয়ে ভালো স্পিন বল করতে পারেন।

২০১২ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ জেতায় বড় ভূমিকা ছিল রিয়াদের।

আরো পড়ুন:

ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৯: যেভাবে মাঠে এবং টেলিভিশনে

ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৯: দেখে নিন বাংলাদেশের ম্যাচগুলো কবে, কখন

ক্রিকেট বিশ্বকাপ নিয়ে বিবিসি বাংলার বিশেষ আয়োজন

ছবির কপিরাইট Harry Trump-IDI
Image caption চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সেমিফাইনালে ওঠার আনন্দ।

এই সিরিজে ১৫৯ রান তোলেন তিনি।

কিন্তু এর পরের মৌসুম তেমন ভালো করতে না পারায় মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ অল্পের জন্য অধিনায়কত্ব পাননি।

শেষ পর্যন্ত ২০১৪ সালের এশিয়া কাপের দল থেকেও বাদ পড়েন রিয়াদ।

তবে তিনি ফর্ম ফিরে পান এবং দলের অপরিহার্য অংশ হয়ে ওঠেন।

২০১৫ বিশ্বকাপে দুটি সেঞ্চুরি, চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে ম্যাচ জেতানো ইনিংস ছাড়াও মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ নিদাহাস ট্রফির গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাংলাদেশ দলকে জেতান।

ছবির কপিরাইট FIONA GOODALL
Image caption বিশ্বকাপে বাংলাদেশের একমাত্র সেঞ্চুরিয়ান মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ।

বড় মঞ্চে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ

২০১৫ বিশ্বকাপের আগে বাংলাদেশের কোন ক্রিকেটারের বিশ্বকাপের মঞ্চে সেঞ্চুরি ছিল না। মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ ২০১৫ বিশ্বকাপে একাই করলেন দুটি সেঞ্চুরি একই বিশ্বকাপে।

বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে যেন অবিশ্বাস্য এক ব্যাপার।

এরপর বহুদিন এই গল্প রুপকথার মতো শুনিয়ে গিয়েছেন ধারাভাষ্যকাররা, "মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, ব্যাক টু ব্যাক সেঞ্চুরি ইন ওয়ার্ল্ড কাপ।"

এখানেই শেষ নয় মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ আবারো সাকিব আল হাসানকে সঙ্গী করে আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে বাংলাদেশের জয়ের নায়ক হন, সেবার ৩৩ রানে চার উইকেট হারিয়েছিল বাংলাদেশ।

শেষ পর্যন্ত সাকিব আল হাসান ও মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের সেঞ্চুরির পর নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সেমিফাইনালে জায়গা করে নেয় বাংলাদেশ।

ছবির কপিরাইট Stu Forster
Image caption চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সেমিফাইনালে ওঠার পথে রিয়াদ ও সাকিব দুজনই সেঞ্চুরি হাকাঁন।

বিশ্লেষকরা তাকে কীভাবে মূল্যায়ণ করেন

মাহমুদুল্লাহ রিয়াদকে ফিনিশার আখ্যা দেন বিশ্লেষক ও ক্রিকেট কোচ নাজমুল আবেদীন ফাহিম।

"সে ফিনিশার, ভালো খেলা এক জিনিস আর ম্যাচ জিতিয়ে নিয়ে আসা ভিন্ন জিনিস। রিয়াদ ম্যাচ শেষ করে আসতে পারেন।"

"এমন খেলোয়াড় সহজেই পাওয়া যায় না, বিশ্বকাপে এসব আমাদের প্রয়োজন, সংকটের মুহূর্তে রিয়াদ ভালো খেলেন।"

"রান রেট বাড়ানোর ক্ষেত্রে রিয়াদ ভূমিকা পালন করেন, পাঁচ বা ছয় নম্বরে নেমে ১০ বা ১৫ ওভার পান এবং সেটা রিয়াদ ভালোই করেন।"

সম্পর্কিত বিষয়