চালের আমদানি শুল্ক দ্বিগুণ করা হলো বাংলাদেশে

চালের আমদানী শুল্ক বাড়ানো হলো ছবির কপিরাইট Getty Images
Image caption চালের আমদানী শুল্ক বাড়ানো হলো

বাজারে ধানের দাম না পাওয়া নিয়ে কৃষকদের ব্যাপক অভিযোগের মধ্যে বাংলাদেশের কর্তৃপক্ষ চালের আমদানি শুল্ক দ্বিগুণ করার সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেছে।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের এক প্রজ্ঞাপণে শুল্ক বাড়ানোর সিদ্ধান্ত জানানো হয়।

কর্মকর্তারা বলছেন, চাল আমদানিতে এখন ৫৫ শতাংশ কর দিতে হবে।

ফলে আমদানি করা চালের দাম বাড়বে বলে মনে করছেন কর্মকর্তারা।

কৃষি মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, বাংলাদেশে চলতি বছর আমন ও আউশের উৎপাদন বেশি হয়েছে এবং এরপর বোরো ধানেরও উৎপাদনও লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে যাবে।

আর এই ফলন বেশি হওয়ার কারণে ধানের দাম আগের তুলনায় ব্যাপকভাবে কমে যাওয়ায় দেশজুড়ে কৃষকদের মধ্যে ক্ষোভ-বিক্ষোভ দেখা দিয়েছে।

কৃষিমন্ত্রী ডঃ আব্দুর রাজ্জাক জানিয়েছিলেন যে তাৎক্ষনিক ভাবে পরিস্থিতি সামাল দেয়ার জন্য সরকার চাল রপ্তানির বিষয়টি বিবেচনা করছে।

সরকার অবশ্য কিছুদিন আগে ৩৬ টাকা কেজিতে চাল কেনার ঘোষণা দিয়েছে। আর ধানের দাম ঘোষণা করেছে ২৬ টাকা কেজি।

'একমণ ধানের দামের চেয়ে একজন শ্রমিকের মজুরি বেশি'

কৃষকদের এবার কিছুটা ক্ষতি হবেই - কৃষিমন্ত্রী

প্রযুক্তি ব্যবহার করে কি ধানের দাম বাড়ানো যাবে?

ছবির কপিরাইট জাতীয় রাজস্ব বোর্ড
Image caption শুল্ক বাড়ানোর প্রজ্ঞাপন

সরকারের এই দাম অনুযায়ী মনপ্রতি ধানের দাম এক হাজার টাকার বেশি হয়। কিন্তু সরকারি কেনার প্রক্রিয়া মাঠ পর্যায়ে এখনও সেভাবে শুরু হয়নি বলে জানা গেছে।

এর মধ্যেই দেশের বিভিন্ন জায়গায় দাম না পাওয়ার অভিযোগ তুলে কৃষকরা নানাভাবে ক্ষোভ প্রকাশ করছে বলে গণমাধ্যমের খবরে বলা হচ্ছে।

উত্তরাঞ্চলে মহাসড়কে ধান ফেলে প্রতিবাদ কর্মসূচিও পালনের খবর পাওয়া গেছে।

এমন প্রেক্ষাপটেই আজ জাতীয় রাজস্ব বোর্ড শুল্ক বাড়ানোর বিষয়ে এসআরও জারি করে।

শুল্ক বাড়ানোর কারণে চাল আমদানির ক্ষেত্রে মোট করভার ৫৫ শতাংশে উন্নীত হলো।

সম্পর্কিত বিষয়