বাংলাদেশে তৎপর জঙ্গিরা টাকার সঙ্কটে রয়েছে, তাই পুলিশের ওপর হামলা: সিআইডি

গত ২৯শে এপ্রিল ঢাকার বছিলায় র‍্যাবের জঙ্গিবিরোধী অভিযান। ছবির কপিরাইট NurPhoto
Image caption গত ২৯শে এপ্রিল ঢাকার বছিলায় র‍্যাবের জঙ্গিবিরোধী অভিযান।

বাংলাদেশে পুলিশের ওপর অব্যাহত হামলার পেছনে জঙ্গি সংগঠনগুলোর অর্থনৈতিক সঙ্কট কাজ করছে বলে মনে করছেন একজন শীর্ষ পুলিশ কর্মকর্তা।

অপরাধ তদন্ত বিভাগ সিআইডির প্রধান শফিকুল ইসলাম বলছেন, নিরাপত্তা বাহিনীর তরফে প্রচণ্ড চাপের মুখে এই দলগুলো সাংগঠনিকভাবে দুর্বল হয়ে পড়েছে।

তাদের তৎপরতা চালু রাখার জন্য যে অর্থের প্রয়োজন হয় সেটিও তাদের কাছে নেই বলে তিনি বলছেন।

"আর সে কারণেই দেশে বিদেশে জঙ্গি সংগঠনগুলোকে যারা অর্থ জোগান দেয় তাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করে অর্থ প্রবাহ সচল রাখার জন্য পুলিশের ওপর হামলা চালানো হচ্ছে," বিবিসির সাথে আলাপকালে তিনি বলেন।

মি. ইসলাম, যিনি পুলিশ বিভাগের একজন অতিরিক্ত আইজি পদমর্যাদার কর্মকর্তা, জানান যে জঙ্গি অর্থায়নের একটা বড় অংশ আসে মধ্যপ্রাচ্যের কয়েকটি দেশের কয়েকজন ধনকুবেরের কাছ থেকে। দেশের মধ্য থেকেও অর্থের একাংশ আসে।

"যারা এসব টাকা-পয়সা দেন, তাদের মধ্যে অনেকেই জানেন না যে তাদের টাকা কোথায় ব্যবহার করা হচ্ছে,"মি. ইসলাম বলেন, "অনেক সময়েই তাদের বলা হয় ইসলামের সেবায় এই অর্থ ব্যয় করা হবে।"

"তাই অনেক সময় তারা সরল বিশ্বাসে টাকা দিয়ে থাকেন।"

ছবির কপিরাইট cid
Image caption সিআইডি প্রধান শফিকুল ইসলাম (ফাইল ফটো)

তিনি জানান, যারা জেনেশুনে জঙ্গি কার্যকলাপের জন্য অর্থ দেন, এসব হামলার মধ্য দিয়ে জঙ্গি দলগুলো সেইসব ডোনারকে দেখানোর চেষ্টা করেছে যে তাদের কার্যক্রম সচল রয়েছে।

এই হামলার কথা বলে তারা ডোনারদের কাছে আরও বেশি টাকা আদায় করার চেষ্টা করবে বলে তিনি বলেন।

গত ২৭শে মে রাজধানী ঢাকার মালিবাগে পুলিশের একটি গাড়ির কাছে বিস্ফোরণের ঘটনায় একজন পুলিশ কর্মকর্তাসহ দু'ব্যক্তি আহত হয়।

যে জায়গাটিতে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে, তার পাশেই রয়েছে সিআইডি এবং এসবি পুলিশের প্রধান কার্যালয়।

এর আগে গত ২৯শে এপ্রিল ঢাকার গুলিস্তান এলাকায় পুলিশের ওপর একটি ককটেল হামলা করা হয়।

আরও পড়তে পারেন:

'ফ্ল্যাটের সবাইকে ধর্ষণ করে উচিত শিক্ষা দাও'

ধান কাটা: শুধু ফটোসেশন নাকি কৃষকের সহায়তা

সাকিবই বাংলাদেশের সর্বকালের সেরা ক্রিকেটার?

ছবির কপিরাইট NurPhoto
Image caption শ্রীলংকার গির্জায় হামলার প্রতিবাদে বাংলাদেশে বিক্ষোভ সমাবেশ।

ঐ ঘটনায় পুলিশের তিনজন সদস্য আহত হন।

তথাকথিত ইসলামিক স্টেট জঙ্গি গোষ্ঠি গুলিস্তানে হামলার দায় স্বীকার করে।

পুলিশ কর্মকর্তারা ঐ দুটি হামলার মধ্যে যথেষ্ট মিল দেখতে পান।

এসব হামলায় পুলিশের যেসব কর্মকর্তা মাঠ পর্যায়ের কাজ করছেন, তাদের মধ্যে কোন শঙ্কা তৈরি হয়েছে কিনা, বিবিসির এই প্রশ্নের জবাবে সিআইডি প্রধান শফিকুল ইসলাম বলেন, পুলিশ সদস্যদের মনোবল যথেষ্ট সবল রয়েছে।

মাঠ পর্যায়ে নানা ধরনের ঝুঁকি রয়েছে জেনেই তারা দায়িত্ব পালন করেন বলে তিনি উল্লেখ করেন।

সম্প্রতি শ্রীলংকায় সন্ত্রাসী হামলার পরে পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ও ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম বা সিটিটিসি জানিয়েছিল, শ্রীলংকার ঘটনার পর বাংলাদেশেও জঙ্গিবাদের ঝুঁকি কিছুটা বেড়েছে, তবে তা নিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই।