ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৯: প্রথম ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে বাংলাদেশের কৌশল কী?

মাশরাফী না ইমরান: জয় কার ভাগ্যে? ছবির কপিরাইট BBC Bangla
Image caption মাশরাফী না ইমরান: জয় কার ভাগ্যে?

ওভালের মাঠে আর কয়েক ঘন্টা পরেই মাঠে নামবে বাংলাদেশ। বিশ্বকাপে বাংলাদেশের প্রথম খেলা। প্রতিপক্ষ দক্ষিণ আফ্রিকা।

খেলা শুরু হবে বাংলাদেশ সময় বিকেল ৩টা ৩০ মিনিটে এবং লন্ডনে সকাল সাড়ে দশটায়।

ওয়ানডে ক্রিকেটের ইতিহাসে এই দুই দল একে অপরের মুখোমুখি হয়েছে ২০ বার যার মধ্যে ১৭টিতে জয়ী হয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা। বাংলাদেশ জিতেছে তিন বার।

বাংলাদেশের এই তিনটি জয়ের একটি এসেছে ২০০৭ বিশ্বকাপে। বাকী দুটি ২০১৫ সালের দ্বিপাক্ষিক সিরিজে।

কোন দলের কী অবস্থা

ইংল্যান্ডের জোফরা আর্চারের বল মাথায় লাগার পর চোট পেয়ে মাঠ ছেড়েছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকার হাশিম আমলা। এখনো তিনি পর্যবেক্ষণে আছেন। ম্যাচের দিন সকালে জানা যাবে তিনি খেলবেন কি না।

অপরদিকে ডেল স্টেইন খেলা শুরু করতে পারেন ভারতের বিপক্ষে, সেক্ষেত্রে বাংলাদেশের বিপক্ষে মাঠে নামার সম্ভাবনা কম তার।

দক্ষিণ আফ্রিকা দলে অন্তর্ভূক্তি হতে পারে ক্রিস মরিস ও ডেভিড মিলারের।

বাংলাদেশ দলে খুব বেশি পরিবর্তন হতে যাচ্ছে না এই ম্যাচে।

শুধু মাহমুদউল্লাহ যেহেতু চোটের কারণে বল করতে পারবেন না, রিয়াদকে দলে রেখে, একজন স্পিন বোলিং অপশন খুঁজছে টিম ম্যানেজমেন্ট।

ছবির কপিরাইট SYED ZAKIR HOSSAIN
Image caption দক্ষিণ আফ্রিকাকে মোকাবেলায় কতটা প্রস্তুত বাংলাদেশ?

সাম্প্রতিক পারফরম্যান্স বলছে, মোসাদ্দেক হতে পারেন সেই অপশন।

মাশরাফী কী বলছেন?

ওভালে প্রথম ম্যাচে ইংল্যান্ড ৩১১ রান তোলে, দক্ষিণ আফ্রিকা তোলে ২০৭ রান।

একই উইকেটে বাংলাদেশ ও দক্ষিণ আফ্রিকাও লড়বে। উইকেটের সাহায্য কি পাবে বাংলাদেশ?

এ প্রশ্নের উত্তরে বাংলাদেশের অধিনায়ক বলেন, "ওভালে যে উইকেট ছিলো আমরা কিছুটা হেল্প পেতে পারি, কিন্তু গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে আমরা সেরাটা যাতে দিতে পারি উইকেট যেমনই থাকুক।"

দলের লোয়ার মিডল অর্ডার ও স্পিন অপশন নিয়ে কী ভাবছেন মাশরাফী?

"মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ এখনই বল করতে পারছে না, সেখানে বাড়তি স্পিনার নেয়ার ভাবনাও আছে, মূল কনসার্ন হচ্ছে সাত নম্বর জায়গা নিয়ে আমরা মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের ব্যাটিং স্যাক্রিফাইস করতে চাই না।"

টপ অর্ডার এখন ফর্মে আছে এখন, এটা কি অধিনায়কের জন্য স্বস্তির?

"সৌম্য বা তামিম যদি বড় রান করে সেটা স্বস্তির বিষয় হবে, এশিয়া কাপে ১৫-১৬ রানে ৩ উইকেট পড়ে যেত আমরা সেখানে ভালো করেছি।"

তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, লিটন দাস, মুশফিকুর রহিম, সাকিব আল হাসান, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত সবার ব্যাটেই রান আসছে নিয়মিত।

ডেল স্টেইনের থাকার সম্ভাবনা কম এখনো পর্যন্ত, এটা কী বাংলাদেশকে বাড়তি সুবিধা দেবে?

ছবির কপিরাইট RATAN GOMEZ
Image caption ওভাল প্রস্তুত। কিন্তু বাংলাদেশ কি পারবে দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারাতে?

"ডেল স্টেইন থাকা বা না থাকা ব্যাপার না, স্টেইনের বিকল্প হিসেবে যিনি আছেন তিনিও নিশ্চয়ই খারাপ না। আমরা ১০০ ওভার ভালো খেলার চেষ্টা করে যাবো"

স্পিন না থাকা কি দুশ্চিন্তার? মাশরাফী বলছেন, হ্যাঁ, এটা একটা ব্যাপার, তবে এখন ফ্ল্যাট উইকেটেও স্পিন ভালো করে, আসল দিনে কে উইকেট নিচ্ছে ব্যাপার না, প্রতিপক্ষকে চাপে রাখাটা গুরুত্বপূর্ণ।

ইমরান তাহির কী বলছেন?

বাংলাদেশের এই বিশ্বকাপে প্রথম ম্যাচ, দক্ষিণ আফ্রিকার জন্য এটা দ্বিতীয় ম্যাচ, তবে ম্যাচটি স্মরণীয় থাকবে ইমরান তাহিরের ক্যারিয়ারে।

তাহিরের শততম ওয়ানডে ম্যাচ এটি।

"আমার জীবনের সবচেয়ে বড় ম্যাচ এটাই হতে যাচ্ছে, আমি জানি আমি কী ত্যাগ স্বীকার করেছি এই ম্যাচের জন্য," বলছিলেন ইমরান তাহির।

আরও পড়ুন:

সাকিবই বাংলাদেশের সর্বকালের সেরা ক্রিকেটার?

ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৯: হোটেলে টিম বাংলাদেশ কেমন কাটাচ্ছে

ব্রিটিশ কন্ডিশনে দ্রুত মানিয়ে নেয়াটাই চ্যালেঞ্জ: ওয়ালশ

তবে ইংল্যান্ডের উইকেটে স্পিন ধরছে না, এটা নিয়ে তাহিরও দুশ্চিন্তায়, "সবাই জানে বাংলাদেশ যেখানে খেলেছে সেখানে স্পিন সবাই ভালো খেলে, তবে আমি স্পিনার হিসেবে চাইবো স্পিনার দুইজন খেলুক, শামস তাবরিজিও যাতে আমাকে সঙ্গ দেন। এটা একটা চ্যালেঞ্জ আমাদের জন্য আমরা প্রস্তুত।"

কিন্তু বিশ্বকাপে রাবাদা, এনগিদির অভিজ্ঞতা তেমন নেই।

ডেল স্টেইনের ইনজুরির কারণে আরো পিছিয়ে পড়েছে এই বোলিং আক্রমণ।

ফেলুকাইও ও ক্রিস মরিস সাহায্যের হাত বাড়ালেও সেটা যথেষ্ট হচ্ছে না।

তবে বাংলাদেশের জন্য দুশ্চিন্তার কারণ হতে পারেন ইমরান তাহির, যিনি তার শততম ওয়ানডে ম্যাচ খেলতে যাচ্ছেন।