'মনে হচ্ছিল মিরপুর বা চট্টগ্রামে চলে এসেছি'-বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যাচ শেষে রস টেলর

গ্যালারিতে অনেকেই এসেছিলেন বাঘের প্রতিকৃতি সেজে ছবির কপিরাইট Getty Images
Image caption গ্যালারিতে অনেকেই এসেছিলেন বাঘের প্রতিকৃতি সেজে

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে বিশ্বকাপে নিজেদের ২য় ম্যাচে জয়ের খুব কাছে গিয়েও ফেরত এসেছে বাংলাদেশ। তবে পুরোটা সময় জুড়ে দর্শকদের দারুণ সমর্থন পেয়েছে টাইগার টিম।

লন্ডনের ওভালে এটি ২য় ম্যাচ ছিল বাংলাদেশের। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ২ উইকেটে হেরেছে মাশরাফী বিন মোর্ত্তজার দল।

টস জিতে শুরুতে ব্যাট করতে নেমে বাংলাদেশ তোলে ২৪৪ রান। তবে ১৭ বল হাতে রেখে বিজয়ী হয় নিউজিল্যান্ড।

তবে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে প্রথম ম্যাচের মতো এদিনও গ্যালারির বেশিরভাগ জায়গা দখল করে বাংলাদেশের সমর্থকরা।

তবে ঈদের পরদিন হওয়ায় প্রবাসী বাংলাদেশিদের মধ্যে ছিল বাড়তি উৎসাহ-উদ্দীপনা।

'গতকাল আমাদের ঈদ হয়েছে, তবে আজকে জিতেই ঈদ উদযাপন করবো আমরা'-খেলা শুরুর আগে এমন প্রত্যাশাই ঝরে লাল সবুজ জার্সি ও পতাকা নিয়ে আসা সমর্থকদের কণ্ঠে।

আরো পড়ুন:

উত্তেজনার ম্যাচে ২ উইকেটে হারলো বাংলাদেশ

নিউজিল্যান্ড ও বাংলাদেশের যত মিল-অমিল

সাকিবই বাংলাদেশের সর্বকালের সেরা ক্রিকেটার?

ছবির কপিরাইট Getty Images
Image caption খেলার পুরো সময়ে সমর্থন জুগিয়েছেন বাংলাদেশি দর্শকরা

সাকিবের ফিফটি যেমন উদযাপন করেছেন চেঁচিয়ে, তেমনি আউটে হতাশা আর আফসোসের শব্দই বেশি শোনা গেল দ্য ওভাল ক্রিকেট গ্রাউন্ডে।

প্রায়ই এই লন্ডনের গ্যালারিতে দেখা মিললো বাংলাদেশিদের মেক্সিকান ওয়েভ। ম্যাচ জিতলেও তাই সমর্থকদের কাছে সংখ্যায় হারতেই হয়েছে নিউজিল্যান্ডকে।

আর খেলে শেষে সংবাদ সম্মেলনে এসেও তাই নিউজিল্যান্ডের ম্যাচ জয়ের নায়ক রস টেলর বলতে বাধ্যই হলেন, "মনেই হয়নি ওভালে খেলছি। যেন মনে হচ্ছিল ঢাকার মিরপুর বা চট্টগ্রামে চলে এসেছি।"

একইসাথে বাংলাদেশের দর্শকদের ক্রিকেট প্রেমের প্রশংসাই করেছেন এই কিউই ব্যাটসম্যান।

স্পিনার মিচেল স্যান্টনারও বলছিলেন মাঠে তাকে বাংলাদেশের ক্রিকেটার ও সমর্থক দুটোর সাথে লড়তে হয়েছে।

"বাংলাদেশের ফ্যান এখন সবখানে, তবে আজ মনে হয়েছে আমরা অ্যাওয়ে টিম। দেখুন তারা ক্রিকেট ভালোবাসে, খেলার সাথে যুক্ত হতে চায়, বিশেষ করে যখন ভালো অবস্থানে থাকে, চিৎকারটাও বেশি হয়। আর কানের কাছে এরকম চিৎকার চলতে থাকলে অবশ্যই খেলায় সেটার একটা প্রভাব পড়ে।"

নি:সন্দেহে বাংলাদেশ দলের জন্য একটা একটা দারুণ পাওয়া। বিদেশে এমন সমর্থন উজ্জীবিত করছে পুরো দলকেই।

"আমরা শেষ দুটো ম্যাচ ওভালে না মনে হল মিরপুরে খেলেছি। আজকে তো আমরা ভালোই খেলেছি, আর এরকম সমর্থন থাকলে, আশা করি এই বিশ্বকাপে আরো ভালো কিছু করবো।"-বলছিলেন মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত।

তবে বাংলাদেশের সমর্থকদের বড় চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে হতে পারে পরের ম্যাচেই। ৮ই জুন তাঁদের ৩য় ম্যাচ যে এবার স্বাগতিক ইংল্যান্ডের বিপক্ষেই।

বিবিসি বাংলার অন্যান্য খবর:

যেভাবে স্বর্ণ মন্দিরে ঢুকেছিল ভারতীয় সেনা ট্যাঙ্ক

চাঁদ রাতে বাংলাদেশের রান্নাঘরে নারীদের নিশুতি লড়াই

ভারতে নাম নিয়ে হালিমের বাটিতে বিতর্কের তুফান

ঈদ ২০১৯: যানজটের কারণে মহাসড়কে সন্তান প্রসব

সম্পর্কিত বিষয়