মুম্বাইয়ের বস্তি থেকে র‍্যাপ গেয়ে অস্কারের দৌড়ে 'গালি বয়'

বার্লিন চলচ্চিত্র উৎসবে 'গালি বয়ে'র পরিচালক ও প্রধান শিল্পীরা ছবির কপিরাইট Getty Images
Image caption বার্লিন চলচ্চিত্র উৎসবে 'গালি বয়ে'র পরিচালক ও প্রধান শিল্পীরা

ভারতের বাণিজ্যিক রাজধানী মুম্বাইয়ের দুজন স্ট্রিট র‍্যাপার, 'ডিভাইন' ও 'ন্যায়েজি'-র জীবন নিয়ে তৈরি বলিউড মুভি 'গালি বয়' ৯২তম অস্কার পুরস্কারের জন্য ভারত থেকে অফিশিয়াল এন্ট্রির মর্যাদা পেয়েছে।

ফিল্ম ফেডারেশন অব ইন্ডিয়ার নিযুক্ত জুরি বোর্ড বলছে, ছবিটির 'এনার্জি' বা প্রাণশক্তি সাংঘাতিক সংক্রামক - আর সেটাই ছবিটিকে এই সম্মান এনে দিয়েছে।

ভারতের ফিল্ম নির্মাতা ও সিনেমা সমালোচকরাও প্রায় একবাক্যে বলছেন, মুম্বাইয়ের ধারাভি বস্তি থেকে উঠে এসে র‍্যাপার হিসেবে সাফল্য পাওয়ার যে গল্প 'গালি বয়' বলেছে সেটা আসলে ভারতের নতুন সামাজিক পরিবর্তনেরই কাহিনি।

এ বছরের গোড়ায় মুক্তি পাওয়া ছবিটি শুধু অসম্ভব বাণিজ্যিক সাফল্যই পায়নি, এখন অস্কারের আসরেও বলিউড স্বপ্ন দেখা শুরু করেছে এই ছবিটিকে ঘিরে।

আরো পড়তে পারেন:

'ইমান অটুট রাখতে' বলিউড ছাড়ছেন জায়রা ওয়াসিম

প্রেম গভীর হলে কি জবরদস্তির অধিকারও থাকে?

একাত্তরের যুদ্ধকে কোন চোখে দেখেছে বলিউড ?

বলিউডের নারী পরিচালকদের মধ্যে অগ্রগণ্য জোয়া আখতারের ছবি 'গালি বয়' যখন এ বছরের ফেব্রুয়ারিতে মুক্তি পায়, তখন থেকেই ছবিটি ভারতে একুশ শতকের তারুণ্যের গল্প হিসেবে পরিচিতি পেয়েছিল।

ধারাভির ঘিঞ্জি বস্তি থেকেও যে র‍্যাপ গানের মধ্যে দিয়ে মিউজিক্যাল সার্কিটে প্রতিষ্ঠা পাওয়া সম্ভব, সেই বাস্তবতা মেশানো গল্পই ছিল 'গালি বয়'।

ছবিটির সিগনেচার সঙ্গীত 'আপনা টাইম আয়েগা' সারা দেশে তরুণদের মুখে মুখে ফিরতে শুরু করে। র‍্যাপ সঙ্গীত এর আগে ভারতে তেমন জনপ্রিয় না-হলেও ওই একটি গানই যেন নতুন এক ধারার সৃষ্টি করে।

ওই সিনেমার র‍্যাপের সুরে গোটা ভারত যেন বিশ্বাস করতে শুরু করে, ধারাভির র‍্যাপার মুরাদের মতো একদিন তাদেরও সময় আসবে।

ছবির কপিরাইট Getty Images
Image caption 'গালি বয়ে'র পরিচালক জোয়া আখতার

ফিল্ম সমালোচক সুচরিতা ত্যাগীর কথায়, "কথায় বলে তুমি যদি মানসিকভাবে সম্পূর্ণ প্রস্তুত থাকো তাহলেই কিন্তু পড়ে পাওয়া সুযোগ কাজে লাগাতে পারবে।"

"গালি বয়ের মুরাদও যেন দেওয়ালে মাথা ঠুকে তৈরি ছিল, তার ভেতরের সব শেকলগুলো ছিড়ে বেরোনোর জন্য - যা দর্শককে দেখিয়ে দিয়েছিল, একে বলে আসল খিদে, সফল হওয়ার জন্য মানুষের ভেতরকার খাঁটি ও অকৃত্রিম বাসনা!"

মুরাদের পরিবারে দারিদ্র ছিল, বাবার নির্যাতন ছিল, প্রেমিকার চাপ ছিল, কাজের জায়গায় বঞ্চনা ছিল যথারীতি - ঠিক যেন ভারতের মিলেনিয়াল প্রজন্মের কোটি কোটি যুবকের মতোই।

পরিচালক জোয়া আখতার বলছিলেন, "তার পরেও সে একজন অ্যাকসিডেন্টাল শিল্পী হয়ে ওঠে।"

"সে জানতই না তার ভেতরে কী আছে, ধীরে ধীরে সে উপলব্ধি করে সে কবিতা লিখতে পারে, মিউজিক ভালবাসে।"

"তার জীবনে রাতারাতি কিছু হয়নি, পরিকল্পনা করেও হয়নি - তার পরেও সে ধীরে ধীরে নিজেকে মেলে ধরে, কিন্তু তার সঙ্গে সেই 'সোয়াগ' বা 'ভাব'টা তখনও আসে না।"

বলিউডের নামী ফিল্ম প্রযোজক প্রীতিশ নন্দী আবার বিবিসি বাংলাকে বলছিলেন, দেশ-বিদেশের নানা উপাদান এবং সমাজের দরিদ্রতম শ্রেণী পর্যন্ত যেভাবে বলিউডকে চিরকাল সমৃদ্ধ করে এসেছে, গালি বয় সেই তালিকাতেই সবশেষ সংযোজন।

তিনি বলছিলেন, "বরাবর সারা ভারত থেকে, এমন কী বিদেশ থেকেও সেরা প্রতিভারা এসে বলিউডে অবদান রেখেছেন। সে কারণেই ভিয়েতনাম থেকে অ্যাকশন ডিরেক্টর এসে বলিউডে আজ সেরার সম্মান পাচ্ছেন, ইংল্যান্ড থেকে মাইক ম্যাকলিয়েরি এসে সুর দিচ্ছেন।"

ছবির কপিরাইট Getty Images
Image caption সিনেমাটির প্রিমিয়ার লঞ্চে মূল চরিত্রের অভিনেতা রণবীর সিং

"আসলে এটা ভুললে চলবে না বলিউড হল ভারতের গ্রেটেস্ট হিলিং ফ্যাক্টর - সব যন্ত্রণার উপশম।"

"বলিউডের ড্যান্সারদের অর্ধেকই আসে ধারাভির বস্তি থেকে, যারা সমাজের সবচেয়ে নিচুতলার বা অর্থনৈতিকভাবে সবচেয়ে পিছিয়ে থাকা শ্রেণীর। তার পরেও তারা এই সিনে ইন্ডাস্ট্রি জয় করে নিয়েছেন।"

"এমন কী হিপ হপ সিঙ্গারদেরও অর্ধেকই এই ধারাভি বস্তির। এখন কেউ প্রশ্ন তুলতেই পারে, বস্তির ছেলেমেয়েরা কীভাবে হিপ হপ শিখল? কে তাদের শেখাল?"

"আমি জবাবে বলব ভগবান জানে! ওরা যেন হাওয়া থেকে সব শিখে যায়!", হাসতে হাসতে বলছিলেন প্রীতিশ নন্দী।

গালি বয়ের অভিনেত্রী আলিয়া ভাট এর মধ্যেই এক অডিও বার্তায় বলেছেন, "এই ছবিটি যেভাবে দেশে-বিদেশে সমাদৃত হয়েছে তাতে সেটি আমার জন্য অবশ্যই ভীষণ স্পেশাল।"

"এখন পুরো টিম চাইছে, ছবিটি যেন অস্কারে বিদেশি ছবির বিভাগে নমিনেশন পায় ও খেতাব জিততে পারে।"

ষাট বছরেরও বেশি সময় ধরে অস্কারে এন্ট্রি পাঠালেও বলিউড কখনও সেরা আন্তর্জাতিক ফিল্মের খেতাব পায়নি।

আইকনিক 'মাদার ইন্ডিয়া' ছবিটি অ্যাকাডেমি অ্যাওয়ার্ডের নমিনেশন পাওয়ার বাষট্টি বছর পর বলিউড এখন আবার আশায় বুক বাঁধছে - মুম্বাইয়ের এক স্ট্রিট র‍্যাপারের গল্প অ্যাকাডেমি অ্যাওয়ার্ড জিততে পারে কি না!

আরো পড়তে পারেন:

মতিঝিলের চারটি ক্লাবে অভিযান, জুয়ার সামগ্রী জব্দ

'প্রশাসন থেকেই শিক্ষার্থীদের উপর হামলার সিদ্ধান্ত'

বিশ্বের যে পাঁচটি বিশ্ববিদ্যালয় ভিন্ন কিছু কারণে বিখ্যাত

কনেযাত্রী বরের বাড়িতে, বরকে নিয়ে বাড়ি ফিরলেন কনে