ক্রিকেটারদের ধর্মঘট: বাংলাদেশের ক্রিকেট নিয়ে যা বললেন পাকিস্তানের শোয়েব আখতার

পাকিস্তানের সাবেক ক্রিকেটার শোয়েব আখতার।

ছবির উৎস, Getty Images

ছবির ক্যাপশান,

পাকিস্তানের সাবেক ক্রিকেটার শোয়েব আখতার।

বাংলাদেশের ক্রিকেটারেরা সম্প্রতি যেসব দাবি আদায়ের জন্যে ধর্মঘট পালন করছিলেন তার কোথাও ছিলনা বিসিবি প্রেসিডেন্টকে অপসারন বা পদত্যাগের দাবির মতো কোন বক্তব্য।

কিন্তু পাকিস্তানের সাবেক তারকা ক্রিকেটার শোয়েব আখতারের একটি বক্তব্যে এই দাবিটির কথাই উঠে এলো কয়েকবার।

তিনি বুধবার নিজের ইউটিউব চ্যানেলে বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের আন্দোলনের প্রতি সমর্থন জানিয়ে একটি ভিডিও পোস্ট করেন, যেখানে তিনি বাংলাদেশের ক্রিকেট বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের পদত্যাগ দাবির কথা উল্লেখ করেন।

ক্রিকেট থেকে অবসরে যাওয়ার পর ক্রিকেট ম্যাচের ধারাভাষ্য দেয়ার পাশাপাশি ব্যক্তিগত ইউটিউব চ্যানেলে ক্রিকেট নিয়ে নানা ধারনের মতামত প্রকাশ করে আসছেন মি. আখতার।

বুধবার তিনি বাংলাদেশের ধর্মঘটের বিষয়ে মতামত জানিয়ে ১০ মিনিট ১৯ সেকেন্ডের একটি ভিডিও আপলোড করেন।

ছবির উৎস, Getty Images

ছবির ক্যাপশান,

বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের ধর্মঘটের সঙ্গে একাত্মতা পোষণ করেন শোয়েব আখতার।

ভিডিওতে মি. আখতার বলেন বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের এই আন্দোলন শুরু হওয়ার পর দেশটিতে তিনি তার 'সোর্স'দের টেলিফোন করে জানতে চেয়েছিলেন, 'কী হয়েছে? কেন আপনারা বিদ্রোহ করছেন?'

তিনি আরো বলেন, "আমার কথাগুলো বলতে ঘৃণা হচ্ছে, কিন্তু আমরা সোর্সরা যা বলেছে আমাকে, তাদের বক্তব্য অনুযায়ী, এই ব্যক্তি (নাজমুল হাসান পাপন) একটি 'লুজ ক্যানন'। এই ব্যক্তিকে এমন একটি কাজ দেয়া হয়েছে যার উপযুক্ত তিনি নন"।

"তাকে যেতে হবে। তাকে পদত্যাগ করতে হবে। নতুবা ভারত সফরে যাবে না"। ভিডিওতে সোর্সের বক্তব্যকে এভাবে তুলে ধরেন শোয়েব আখতার।

তারা যা করছেন তা হচ্ছে, তারা বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের নিয়ন্ত্রণ করতে চাইছেন।

মি. আখতার বলেন, "যখন তাদের দমিয়ে রাখার চেষ্টা হয় তখনই সমস্যা তৈরি হয়"।

"খেলোয়াড়েরা কখনো ভুল হতে পারে না" উল্লেখ করে শোয়েব আখতার বলেন, "আমি সবসময়ই ক্রিকেটারদের পক্ষে, সে বাংলাদেশের হোক, পাকিস্তানের হোক কিংবা হিন্দুস্তানের হোক"।

এই প্রতিবেদনটি লেখা পর্যন্ত ইউটিউবে শোয়েব আখতারের ভিডিওটি ৪ লাখেরও বেশি বার দেখা হয়েছে।

বিপিএল এবং বাংলাদেশ লিগে খেলোয়াড়দের পারিশ্রমিকের বিষয়টি নিয়ে কথাবার্তা বলেন শোয়েব আখতার।

মি.আখতার বলেন, লোকে খেলোয়াড়দের খেলা দেখতে আসে। খেলোয়াড়েরা খেলে বলেই টেলিভিশন সত্বের পয়সা আসে।

তাহলে তারা কেন সেই রোজগারের ভাগ পাবে না?

বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের সাম্প্রতিক যে আন্দোলন সেখানে প্রথমে তারা যে দাবি জানিয়েছিল, সেখানে বোর্ডের রাজস্ব আয়ের ভাগ চাওয়ার দাবি ছিল না।

ধর্মঘটের তৃতীয় দিন বোর্ডের রাজস্ব ভাগাভাগির দাবি যোগ করেন ক্রিকেটাররা। কিন্তু ওইদিন রাতেই বোর্ড কর্তাদের সাথে রফা হওয়ার পর ধর্মঘট তুলে নেন ক্রিকেটাররা। সমঝোতায় বোর্ড ক্রিকেটারদের সব দাবি মেনে নেয়ার আশ্বাস দিলেও রাজস্ব ভাগাভাগির নতুন দাবিটি নিয়ে আলোচনা হয়নি বলে জানা যায়।

একসময় আইপিলের মতো ফ্রাঞ্চাইজি লিগে নিয়মিত খেললেও শোয়েব আখতার কখনো বাংলাদেশের ফ্রাঞ্চাইজি ভিত্তিক বিপিএলে খেলেননি।

তবে ২০১০ সালে একবার তিনি সেসময়কার ফ্রাঞ্চাইজি ভিত্তিক জাতীয় ক্রিকেট লিগের টি-টোয়েন্টি ফর্মাটে 'সাইক্লোনস অব চিটাগং' নামে একটি দলের হয়ে খেলেছিলেন।

শোয়েব আখতারের এই ইউটিউব ভিডিওটি নিয়ে প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের তরফ থেকে জানানো হয়, এই ভিডিও তাদের নজরে আসেনি। এ নিয়ে তারা কোনো প্রতিক্রিয়াও দিতে চান না।

আরও পড়তে পারেন: