ট্রেন দুর্ঘটনা: তূর্ণা নিশীথা ও উদয়ন এক্সপ্রেসের মধ্যে সংঘর্ষে বহু হতাহত

তূর্ণা নিশীথার ধাক্কায় উদয়ন এক্সপ্রেসের দুইটি বগি দুমড়ে গেছে ছবির কপিরাইট ইজতিহাদ মাশরুর
Image caption তূর্ণা নিশীথার ধাক্কায় উদয়ন এক্সপ্রেসের দুইটি বগি দুমড়ে গেছে

বাংলাদেশের ব্রাহ্মণবাড়িয়া দুইটি ট্রেনের সংঘর্ষে অন্তত ১৬ জন নিহত হয়েছে। এতে আহত হয়েছে আরও অর্ধশতাধিক যাত্রী।

নিহতের সংখ্যা বিবিসি বাংলাকে নিশ্চিত করেছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলা প্রশাসক হায়াত-উদ-দৌলা খান।

মঙ্গলবার ভোররাত সোয়া তিনটার দিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবার মন্দবাগে চট্টগ্রাম থেকে ঢাকাগামী তূর্ণা নিশীথা এবং সিলেট থেকে চট্টগ্রামগামী উদয়ন এক্সপ্রেসের মধ্যে এই দুর্ঘটনা ঘটে।

রেলওয়ে পুলিশের আখাউড়া থানার ওসি শ্যামল কান্তি দাস বিবিসি বাংলাকে জানিয়েছেন, তূর্ণা নিশীথার ধাক্কায় উদয়ন এক্সপ্রেসের মাঝের দুইটি বগি দুমড়ে মুচড়ে যায়। এসব বগির নীচে কেউ আটকে পড়ে আছে কিনা তার অনুসন্ধান চলছে।

আরো পড়ুন:

কুলাউড়া ট্রেন দুর্ঘটনা: রেল নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বেগ

লেভেল ক্রসিং-এর মরণফাঁদ বন্ধ হয় না কেন?

ছবির কপিরাইট ইজতিহাদ মাশরুর
Image caption বগির নীচে কেউ আটকে পড়ে আছে কিনা, তার অনুসন্ধান করছে উদ্ধারকর্মীরা

সংকেত বিভ্রাটে এই ঘটনা ঘটে থাকতে পারে বলে তিনি ধারণা করছেন।

তূর্ণা নিশীথার একজন যাত্রী ইজতিহাদ মাশরুর ঘটনাস্থল থেকে বিবিসি বাংলাকে বলছেন, উদয়ন এক্সপ্রেসের মাঝ বরাবর দুইটি বগি দুমড়ে মুচড়ে রয়েছে।

দুর্ঘটনাটি ঘটার সময় ট্রেন দুইটি চলন্ত অবস্থায় ছিল।

এই ঘটনার পর ঢাকা-চট্টগ্রাম ও সিলেট-চট্টগ্রামের মধ্যে রেল যোগাযোগ বন্ধ হয়ে গেছে।

বিবিসি বাংলার অন্যান্য খবর:

লন্ডন স্টক এক্সচেঞ্জে ‘বাংলা বন্ড', টাকায় আগ্রহ কেন

নেতাদের পদত্যাগ: কতটা চিন্তায় পড়েছে বিএনপি?

বাবরি মসজিদ ভাঙার মামলায় আজও সাজা হয়নি কারো

রাজস্ব বোর্ড কি 'তামাক কোম্পানির পক্ষ নিচ্ছে?'

সম্পর্কিত বিষয়