ঢাকায় এশিয়া বনাম বিশ্ব একাদশ: পাকিস্তানীরা আমন্ত্রণ পায়নি, দাবি ভারতীয় বোর্ডের

এশিয়া একাদশে পাকিস্তানী খেলোয়াড়দের থাকা নিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে ছবির কপিরাইট Getty Images
Image caption এশিয়া একাদশে পাকিস্তানী খেলোয়াড়দের থাকা নিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি অবশ্য বলছেন, তারা এমন কিছু বলেননি যে পাকিস্তানী খেলোয়াড় থাকতে পারবেনা। তবে ভারতীয় মিডিয়া বলছে পাকিস্তানীদের বাদ দেয়া হবে।

'বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী' উপলক্ষে ঢাকায় এশিয়া একাদশ ও বাকীদের নিয়ে গড়া বিশ্ব একাদশের মধ্যে দুটি টি-টুয়েন্টি ম্যাচ আয়োজন করবে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড।

ম্যাচ দুটিই আইসিসির অফিসিয়াল ম্যাচের স্বীকৃতি পাবে।

তবে এ দুটি ম্যাচে এশিয়া একাদশে পাকিস্তানী কোনো খেলোয়াড় খেলবে কি-না তা নিয়ে দেখা দিয়েছে অনিশ্চয়তা।

কারণ ইন্দো-এশিয়ান নিউজ সার্ভিস বা আইএএনএস ভারতীয় বোর্ড কর্মকর্তাদের জানিয়েছে, এশিয়া একাদশে পাকিস্তানী খেলোয়াড়রা থাকছেনা কারণ তাদের আমন্ত্রণই করা হয়নি।

তাদের রিপোর্টে বিসিসিআই সেক্রেটারি জায়েশ জর্জ বলেছেন, "আমরা যতটুকু জানি এশিয়া একাদশে পাকিস্তানী কেউ থাকবেনা। তাই দু'দেশের (ভারত ও পাকিস্তান) একসাথে অংশ নেয়ার প্রশ্নই উঠেনা। সৌরভ গাঙ্গুলি পাঁচজন খেলোয়াড়কে বাছাই করবেন যারা এশিয়া একাদশের হয়ে খেলবে।"

আইএএনএস এর এই রিপোর্ট দা স্ট্যাটসম্যান সহ অনেকগুলো ভারতীয় পত্রিকা বা বার্তা সংস্থা প্রকাশ করেছে।

বিসিবি সভাপতি যা বললেন:

ছবির কপিরাইট Getty Images
Image caption বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান।

তবে ঢাকায় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি নাজমুল হাসান বলছেন, তারা এমন কিছু বলেননি যে পাকিস্তানের কোনো খেলোয়াড় থাকতে পারবে না।

মিরপুরে শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, "এখানটায় যে জিনিসটা করা হবে যে অ্যাভেইলেবল যেসব খেলোয়াড় আছে তারাই। এটা হলো প্রথম কথা। আমরা এমন কিছু বলিনি যে পাকিস্তানের কোনো খেলোয়াড় থাকতে পারবে না। এখানে আমরা কিছু বলিনি।"

বিসিবি সভাপতি বলেন তারা সর্ব বোর্ডের সাথে যোগাযোগ করেছেন এবং তারা জবাব পাঠিয়েছে।

"একটা হতে পারে যে যখন আমরা বাকি সব বোর্ডের সঙ্গে যোগাযোগ করেছি, তারা একটা রেসপন্স পাঠিয়েছে। পাকিস্তান হলো একমাত্র দেশ যারা বলেছে যে তাদের পিএসএলের সঙ্গে তারিখটা ক্ল্যাশ (সাংঘর্ষিক) করছে। ওরা তারিখটা পরিবর্তন করতে বলেছিল আমাদেরকে।"

তিনি বলেন তারা পাকিস্তানকে জানিয়েছেন যে তারিখ পরিবর্তন করা সম্ভব হবেনা।

"কারণ ১৭ তারিখে (মার্চ) ওনার (শেখ মুজিবুর রহমানের) জন্মদিন এবং আমাদেরকে সরকার থেকেই সময় দেয়া হয়েছে ১৮ থেকে ২২ এর মধ্যে। কারণ সরকারের অন্যান্য অনুষ্ঠান তো আছে। তাই এর টাইম স্লটটাই এটা। এর বাইরে সরানোর কোনো উপায় নেই আমাদের। এরপর আর তারা কোনো রেসপন্স করেনি।"

নাজমুল হাসান বলেন এটা হতে পারে যেহেতু ওদের পিএসএলের সঙ্গে বা অন্য কোনো টুর্নামেন্টের সঙ্গে ক্ল্যাশ করে দেখে আসতে পারবে না, এটা কারণ হতে পারে।

পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড কী বলছে?

ছবির কপিরাইট Pacific Press
Image caption লাহোরে গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে পিসিবির সদর দপ্তর।

বিবিসি উর্দু সার্ভিসকে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের মুখপাত্র জানিয়েছেন, মার্চে প্রস্তাবিত টি-টুয়েন্টি ম্যাচে তাদের খেলোয়াড়রা অংশ নিতে পারবেনা, কারণ সময়টি পিএসএল'র সাথে সাংঘর্ষিক।

তিনি বলেন ১৮ ও ২০শে মার্চ ম্যাচ দুটি অনুষ্ঠিত হবে যা পিএসএল'র মাঝামাঝিতে পড়বে।

পিসিবি বলছে বিষয়টি নিয়ে এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিলের সভার সময়েও আলোচনা হয়েছে এবং তখন পিসিবি বিষয়টি বিসিবিকে জানিয়েছিলো।

বিবিসি বাংলায় আরও পড়ুন:

ক্রিকেট দলের পাকিস্তান সফর: ভিন্ন মত বিসিবি ও পিসিবির

ক্রিকেট বিনোদনের খোরাক মেটাতে ব্যর্থ বিপিএল?

কান্নাজড়িত কণ্ঠে মেয়র সাঈদ খোকন যা বললেন

সূর্যগ্রহণ সম্পর্কে যেসব ধারণা পরিবর্তন করা জরুরি