মি টু: হলিউড প্রযোজক হার্ভি ওয়েনস্টেইনের বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়ন ও ধর্ষণের অভিযোগ প্রমাণিত

হার্ভি ওয়েইনস্টেইন

ছবির উৎস, Getty Images

ছবির ক্যাপশান,

হার্ভি ওয়েইনস্টেইন

ওয়েনস্টেইন নিউইয়র্ক শহরে 'থার্ড ডিগ্রী রেপ' এবং 'ফার্স্ট ডিগ্রী ক্রিমিনাল সেস্কুয়াল এক্ট' এ দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন।

গত ৬ জানুয়ারি হার্ভি ওয়েনস্টেইনের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগের বিচার শুরু হয় নিউইয়র্কের আদালতে। সোমবার মামলার রায় ঘোষণা করে জুরি বোর্ড।

২০০৬ সালে মিমি হ্যালেইকে যৌন নির্যাতন এবং জেসিকা মানকে ২০১৩ সালে ধর্ষণের অভিযোগে হার্ভি ওয়াইনস্টাইনকে দোষী সাব্যস্ত করেছে মার্কিন আদালত।

তবে যৌন হামলার গুরুতর অভিযোগ থেকে তিনি নিষ্কৃতি পেলেও তার ২৫ বছরের সাজা হতে পারে।

সাজা ঘোষণার আগে তাকে রিকার্স দ্বীপের জেলখানায় পাঠানো হবে

খবরে জানা যাচ্ছে এই রায় শোনার পর তার বুকে ব্যথা শুরু হয় এবং তাকে নিউইয়র্কে বেলভ্যু হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

মি টু মুভমেন্ট এর বড় সাফল্য

তার বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ উঠে তারপরেই নারীরা যৌন নিপীড়নের বিরুদ্ধে আন্দোলনে সামনে কাতারে চলে আসে এবং মি টু মুভমেন্ট শুরু করে।

অন্তত ৮০ জন নারী তার বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন।

হলিউডের নামী তারকারা তার বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ আনেন। তাদের মধ্যে সালমা হায়েক এবং উমা থরম্যানসহ আরো অনেকে রয়েছে।

ছবির উৎস, Getty Images

ছবির ক্যাপশান,

মার্কিন তারকা রোস ম্যাকগাওয়ানের (ডানে) সাথে হার্ভি ওয়েইনস্টেইন

তার বিরুদ্ধে এখনো লস এঞ্জেলসে ২০১৩ সালে দুইজন নারীকে নিপীড়নের অভিযোগ রয়েছে।

এই রায়কে মি টু আন্দোলনের বড় সাফল্য হিসেবে দেখা হচ্ছে।

হার্ভি ওয়েইনস্টেইন ছিলেন হলিউডের সবচেয়ে প্রভাবশালী সিনেমা প্রযোজকদের একজন।

তার মিরাম্যাক্স এবং উইনস্টেইন কোম্পানি এখন পর্যন্ত ৮১টি অস্কার পুরষ্কার পেয়েছে।

বারাক ওবামা, হিলারি ক্লিনটন থেকে শুরু করে যুক্তরাষ্ট্রের প্রভাবশালী ও ক্ষমতাবানদের তিনি ঘনিষ্ঠ বন্ধু। ডেমোক্রেটিক পার্টিতে মোটা অংকের তহবিল যোগান দেন যারা, তাদেরও অন্যতম তিনি।

ছবির উৎস, Getty Images

ছবির ক্যাপশান,

২০০২ সালে গুইনেথ প্যালট্রোর সঙ্গে হার্ভি ওয়েইনস্টেইন

কিন্তু বহু বছর ধরে তিনি তার সিনেমায় কাজ করতে আসা নারী তারকাদের দুর্বলতার সুযোগ নিয়ে তাদের সঙ্গে জবরদস্তি করে যৌন সম্পর্ক গড়ে তোলার চেষ্টা করেন বলে একের পর এক অভিযোগ আসতে থাকে। ।

কী প্রতিক্রিয়া আসছে?

এদিকে একটা যৌথ চিঠিতে অভিনেত্রী অ্যাশলে জুড, লুসিয়া ইভান্স এবং রোসানা আরকুয়েট এবং আরো ১৯জন নারী যারা নিপীড়িত হয়েছিলেন বলে অভিযোগ করেছেন, তারা বলেছেন "এটা হতাশাজনক যে আজকের রায় সত্যকে বের করে আনতে পারেনি। পূর্ণ ন্যায়বিচার যেটা অনেক নারীর প্রাপ্য"।

তবে যেসব নারী সামনে এসেছে এবং হার্ভি ওয়েইনস্টেইনের বিরুদ্ধে কথা বলেছে তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন।

বিবিসি নিউজ আওয়ার প্রোগামে অভিনেত্রী ম্যাকগুয়েন বলেছেন "যখন আমি আঘাত পেয়েছিলাম তখন আমি একটা বাচ্চা মেয়ে ছিলাম। এটা একটা ভালো দিন। আবর্জনা সরিয়ে ফেলা হয়েছে"।

হার্ভি ওয়েইনস্টেইনের প্রধান আইনজীবী ডোনা রোটুননো সাংবাদিকদের বলেছেন আদালতের বাইরে বলেছেন "লড়াইটা শেষ হয়ে যায়নি। হার্ভি অবিশ্বাস্যভাবে শক্ত। তিনি এটাকে একটা পুরুষের মত গ্রহণ করেছেন। তিনি জানেন আমরা তার জন্য লড়ে যাবো এবং তিনি এটাও জানেন এটাই শেষ না"।

তিনি বলেন তার মক্কেল (হার্ভি) হতাশ হয়েছেন কিন্তু "মানসিকভাবে শক্তিশালী আছেন"

এর পর কী হবে?

•উইনস্টেন আইনজীবী বলেছেন তারা রায়ের বিরুদ্ধে খুব দ্রুত আপিল করবেন

•কাউন্টি ডিসট্রিক অ্যাটর্নি জানাচ্ছেন লস এঞ্জেলসে তার বিরুদ্ধে ধর্ষণ, যৌন নিপীড়নের অভিযোগ রয়েছে। এছাড়া আরো মামলা পর্যবেক্ষণে রয়েছে।

•২০১৯ সালের ডিসেম্বরে আইনজীবীরা বলেন তারা কিছু অভিযোগকারীর সাথে ২৫ মিলিয়ন ডলারের চুক্তি করতে সমর্থ হয়েছে।

বিবিসি বাংলায় আরো পড়ুন: