করোনাভাইরাস: চীনের কোয়ারেন্টিন হোটেল ধসে চার জনের মৃত্যু

হোটেলটির সম্মুখভাগ পুরোটা ধসে পড়েছে এবং স্টিলের কাঠামাো দেখা যাচ্ছে।

ছবির উৎস, AFP

ছবির ক্যাপশান,

হোটেলটির সম্মুখভাগ পুরোটা ধসে পড়েছে এবং স্টিলের কাঠামাো দেখা যাচ্ছে।

চীনের উদ্ধারকারীরা পূর্বাঞ্চলীয় কোয়াংঝো শহরে ধসে পড়া একটি হোটেলের ভেতর থেকে চার জনের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এখো ২৯ জন নিখোঁজ রয়েছেন। তাদের সন্ধানে উদ্ধার অভিযান অব্যহত রয়েছে।

পোস্ট করা ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, ফুজিয়ান প্রদেশের উদ্ধারকর্মীরা ঐ হোটেলের ধ্বংসস্তুপের ভেতরে তল্লাশি চালাচ্ছেন।

কিন্তু এখনো পযর্ন্ত এটা পরিস্কার না যে ঠিক কী কারণে হোটেলটি ধসে পড়লো। ঘটনাটি শনিবার স্থানীয় সময় সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে ঘটে।

ছবির উৎস, EPA

ছবির ক্যাপশান,

বিধ্স্ত হোটেলের সামনে উদ্ধারকর্মীরা।

রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যমে বলা হচ্ছে, করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের ঘনিষ্ঠ সংস্পর্শে এসেছিল এরকম লোকজনকে সেখানে কোয়ারেন্টিন করে রাখা হয়েছিল।

হোটেলটি ২০১৮ সালে চালু হয় এবং এতে ৮০টি কামরা রয়েছে।

বেইজিং নিউজ ওয়েবসাইট কে একজন নারী বলেছেন, তার এক বোন এবং আত্মীয়কে সেখানে কোয়ারেন্টিন করে রাখা হয়েছিল। তিনি বলছিলেন, "আমি তাদের সাথে যোগাযোগ করতে পারছি না। তারা তাদের ফোন ধরছেন না"।

ছবির উৎস, EPA

ছবির ক্যাপশান,

এখন পর্যন্ত ৪৭ জনকে উদ্ধার করা হয়েছে

"আমিও আরেকটা হোটেলে কোয়ারেন্টিনে ছিলাম। আমি খুব উদ্বিগ্ন। আমি বুঝতে পারছি না কি করবো। তারা ভালো ছিল। ডাক্তাররা তাদের প্রতিদিন তাপমাত্রা নিচ্ছিলো। এবং টেষ্টের ফলাফল দেখাচ্ছিল সবকিছু স্বাভাবিক আছে"।

শুক্রবার পর্যন্ত ফুজিয়ানে ২৯৬ জন করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছেন।

এর বাইরে ১০ হাজারেরও বেশি মানুষকে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে।

বিবিসি বাংলায় আরো পড়ুন: