করোনাভাইরাস: 'অপপ্রচার কিংবা গুজব' ঠেকাতে টিভি মানিটরিংয়ের এক সিদ্ধান্ত বাতিল করেছে বাংলাদেশের তথ্য মন্ত্রণালয়

করোনাভাইরাস

ছবির উৎস, Getty Images

ছবির ক্যাপশান,

বাংলাদেশে এখনো বহু মানুষ টেলিভিশনে চোখ রাখেন খবরের জন্য (ফাইল ফটো)

করোনাভাইরাস নিয়ে বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলগুলোতে 'অপপ্রচার কিংবা গুজব' ছড়ানো হচ্ছে কি-না, তা মনিটর করার জন্য বাংলাদেশ সরকারের তথ্য মন্ত্রণালয় ১৫ জন কর্মকর্তাকে দায়িত্ব দিয়ে মঙ্গলবার একটি সাকুর্লার জারি করে।

এদের প্রত্যেককে আলাদা আলাদাভাবে বেসরকারি টেলিভিশন পর্যবেক্ষণের সুনির্দিষ্ট দায়িত্ব দেয়া হয়। এ সংক্রান্ত সরকারি আদেশে বলা হয়েছিল, দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাগণ কোন বেসরকারি টিভি চ্যানেলে করোনাভাইরাস সম্পর্কে অপপ্রচার কিংবা গুজব প্রচার হচ্ছে মর্মে চিহ্নিত করলে তা বন্ধ করার জন্য সাথে সাথে মন্ত্রণালয়ের কর্তৃপক্ষকে অবহিত করতে হবে।

এ নিয়ে গত দুদিন ধরে ব্যাপক সমালোচনার পর আজ (বৃহস্পতিবার) সরকার ঐ সার্কুলার বাতিল করে।

নতুন জারি করা এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে - আগে জারি করা পত্রে "ভুলভ্রান্তি" থাকায় কর্তৃপক্ষের নির্দেশে তা বাতিল করা হলো।

তবে একই সাথে বলা হয়েছে - 'সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ বিভিন্ন প্রচার মাধ্যমে করোনাভাইরাস বিষয়ে কোনো গুজব বা ভুল তথ্য প্রচার করা হ্ছে কিনা তা পর্যবেক্সণএবং সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এবং প্রচার মাধ্যমকে সহায়তা করার জন্য তথ্য মণ্ত্রনালয়ে একটি সেল গঠণ করা হয়।'

এক নজরে বাংলাদেশে করোনাভাইরাস: (২৬শে মার্চ পর্যন্ত)

২৬শে মার্চ নতুন করে শনাক্ত হয়েছে পাঁচজন

মোট করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত ৪৪ জন

২৪ ঘন্টায় ১২৬ জনের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষা

সর্বমোট পরীক্ষার সংখ্যা ৯২০ জন

মোট সুস্থ হয়েছেন ১১ জন

আইইডিসিআর-এর যোগাযোগের জন্য ০১৯৪৪৩৩৩২২২ অথবা ১০৬৫৫ নম্বরে যোগাযোগের পরামর্শ দেয়া হয়েছে। এখান থেকে হান্টিং নম্বরের মাধ্যমে অন্যান্য নম্বরে টেলিফোনটি চলে যাবে। এছাড়া ১৬২৬৩ নম্বরেও যোগাযোগ করা যাবে।