কুমিল্লায় যুবলীগ নেতার মিছিলে গাড়ি তুলে দেয়ার পর অস্ত্র হাতে নাচছিলেন কাউন্সিলর

গ্রেপ্তার

ছবির উৎস, Getty Images

একজন যুবলীগ নেতার ওপর হামলার পরে কয়েকজনের সঙ্গে ধারালো অস্ত্র নিয়ে কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশনের একজন কাউন্সিলরের নাচানাচি করার একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। হামলার ঘটনায় ওই কাউন্সিলরকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

কুমিল্লার কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি আনোয়ারুল ইসলাম জানিয়েছেন, শুক্রবার বিকেলে যুবলীগ নেতার ওপর হামলার ঘটনায় কাউন্সিলর সাইফুল বিন জলিলসহ মোট আটজনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। রাতেই মি. বিন জলিলকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে, সুনামগঞ্জে সংখ্যালঘুদের ওপর হামলার ঘটনার প্রতিবাদে কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসাবে শুক্রবার বিকাল সাড়ে তিনটার দিকে একটি মিছিল নিয়ে যাচ্ছিলেন কুমিল্লা মহানগর যুবলীগ নেতা রোকনউদ্দিন।

বিকাল পৌনে চারটার দিকে সেই মিছিলের ওপর অতর্কিতে গাড়ি তুলে দেন ওয়ার্ড কাউন্সিলর সাইফুল। এতে রোকনউদ্দিনসহ ৫/৬জন আহত হয়। এরপর আটজনকে আসামী করে মামলা করেন রোকনউদ্দিন।

রোকনউদ্দিনসহ আহতদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এই আসনে রোকনউদ্দিনকে হারিয়ে কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়েছিলেন সাইফুল বিন জলিল।

ওই হামলার পরে একটি ভিডিও সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে।

সেখানে দেখা যাচ্ছে কয়েকটি ছেলের সঙ্গে মিলে একটি কালো মাইক্রোবাস থেকে দেশীয় ধারালো অস্ত্র বের করে হাতে নিয়ে নাচছেন কাউন্সিলর সাইফুল বিন জলিল।

মোবাইল ফোনের ক্যামেরায় সেই নাচের ভিডিও করা হয়েছে। ওই ভিডিও প্রচার করা হয়েছে বাংলাদেশের কয়েকটি গণমাধ্যমের খবরেও।

বিবিসি নিরপেক্ষভাবে ভিডিওটি যাচাই করতে পারেনি। তবে কুমিল্লার স্থানীয় সংবাদদাতারা বলছেন, মোবাইলে ধারণ করা ওই ভিডিও শুক্রবার হামলার পরে ধারণ করা।

ওসি আনোয়ারুল ইসলাম বলছেন, ভিডিওর কথা তারা জানতে পেরেছেন। মামলায় এই ভিডিওর বিষয়েও তদন্ত করা হবে।

বিবিসি বাংলার অন্যান্য খবর: