করোনা ভাইরাস: বাংলাদেশে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলেছে, ২৪ ঘণ্টায় নতুন রেকর্ড

মুগদা জেনারেল হাসপাতাল থেকে করোনা রোগীর মরদেহ নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।

ছবির উৎস, NurPhoto

ছবির ক্যাপশান,

মুগদা জেনারেল হাসপাতাল থেকে করোনা রোগীর মরদেহ নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।

বাংলাদেশে করোনাভাইরাসে শনাক্তের সংখ্যা আরো বেড়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় ২৯,৩৩৯ টি নমুনা পরীক্ষায় ৬,৮৩০ জনের মধ্যে কোভিড-১৯ শনাক্ত হয়েছে। পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ২৩.২৮ শতাংশ।

এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় আরো ৫০ জনের মৃত্যু হয়েছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নিয়মিত সংবাদ বুলেটিনে এসব তথ্য জানানো হয়।

এনিয়ে দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা দাঁড়ালো ৯,১৫৫ জন।

গতকাল বৃহস্পতিবার শনাক্তের সংখ্যা ছিল ৬,৪৬৯ জন। বৃহস্পতিবারের চেয়ে শুক্রবার শনাক্তের সংখ্যা আরো ৩৬১ জন বেড়েছে।

গত বছরের মার্চের ৮ তারিখে বাংলাদেশে প্রথম করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়।

ছবির উৎস, NurPhoto

ছবির ক্যাপশান,

করোনা শনাক্তে চলছে সোয়াব টেস্ট।

এরপরের দুই মাস দৈনিক শনাক্তের সংখ্যা তিন অংকের মধ্যে থাকলেও সেটা বাড়তে বাড়তে জুলাই মাসে সর্বোচ্চ পর্যায়ে পৌঁছায়।

গত বছর দোসরা জুলাই সর্বোচ্চ ৪,০১৯ জনের মধ্যে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়।

এরপর বেশ কিছুদিন দৈনিক শনাক্তের সংখ্যা কমতে কমতে এক পর্যায়ে তিনশোর ঘরে নেমে এসেছিল।

তবে মার্চের শুরু থেকেই শনাক্তে ঊর্ধ্বগতি শুরু হয়।

এমনকি মৃত্যুর সংখ্যাও বেশ কিছুদিন দশের নিচে ছিল। কিন্তু তাতে দেখা যাচ্ছে ঊর্ধ্বগতি।

বাংলাদেশের স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক ইতোমধ্যে বলেছেন, সংক্রমণ লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ার কারণে হাসপাতালগুলো ইতোমধ্যেই পূর্ণ হয়ে গেছে।

চিকিৎসক এবং জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, হাসপাতালগুলোর ওপর যে হারে চাপ বাড়ছে, তাতে করোনাভাইরাসের চিকিৎসা সেবা ভেঙে পড়ার উপক্রম হয়েছে।