মার্কিন কংগ্রেস: ক্যাপিটল ভবনে আবারো হামলা, পুলিশ কমর্কর্তা নিহত

এই গাড়ীতে করে হামলা করা হয়

ছবির উৎস, ERIC BARADAT/Getty

ছবির ক্যাপশান,

এই গাড়ীতে করে হামলা করা হয়

ওয়াশিংটন ডিসিতে কংগ্রেস ভবন ক্যাপিটল হিলে এক হামলায় একজন পুলিশ কর্মকর্তা নিহত হয়েছে। আহত অবস্থায় হাসপাতালে নিতে হয়েছে আরো একজনকে।

সন্দেহভাজন হামলাকারী পুলিশের গুলিতে নিহত হয়েছে।

শুক্রবার স্থানীয় সময় দুপুর ১টার দিকে এই ঘটনা ঘটে।

কর্মকর্তারা বলছেন, গত জানুয়ারি মাসে ক্যাপিটল হিলের রক্তাক্ত দাঙ্গার তিন মাসের কম সময়ের ব্যবধানে আবারো এই হামলা চেষ্টা হলো। তবে এ হামলার সাথে সন্ত্রাসী তৎপরতার কোন সম্পৃক্ততা নেই বলে উল্লেখ করছেন কর্মকর্তারা।

ওয়াশিংটন ডিসির মেট্রোপলিটন পুলিশ বিভাগের ভারপ্রাপ্ত প্রধান রবার্ট কনটে এক সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, এখন পর্যন্ত এই হামলাকে সন্ত্রাসবাদের ঘটনা বলে মনে হচ্ছে না।

এক বিবৃতিতে তিনি ঐ পুলিশ কর্মকর্তার নাম উইলিয়াম বিলি ইভান্স বলে উল্লেখ করেছেন।

তিনি ক্যাপিটল পুলিশে তিনি ১৮ বছর ধরে কাজ করছিলেন।

তদন্তের কাজ করছেন এমন দুইজন আইন-শৃঙ্খলা বিভাগের সূত্র বলছে সন্দেহভাজন হামলাকারীর বয়স ২৫ বছর।

তদন্তের সঙ্গে জড়িত দুজন কর্মকর্তারা সিবিএস নিউজকে বলেছেন, সন্দেহভাজন হামলাকারীর নাম নোয়াহ গ্রিন। সে ইন্ডিয়ানা অঙ্গরাজ্যের বাসিন্দা।

আরো পড়ুন:

ছবির উৎস, Anadolu Agency/Getty

ছবির ক্যাপশান,

ঘটনাস্থলে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী মোতায়েন রয়েছে

হামলা সম্পর্কে কি জানা যাচ্ছে

স্থানীয় সময় দুপুর একটার দিকে ক্যাপিটল হিলের পুলিশের অ্যালার্ট সিস্টেম থেকে একটা মেইল আসে।

যেখানে বলা হয় ক্যাপিটল হিলের ভিতরে বাইরে যারা রয়েছে তারা যেন কোন কিছুর আড়ালে অবস্থান করে নিজেদেরকে রক্ষা করেন।

সবাইকে জানালা বা দরজার কাছ থেকে সরে যেতে বলা হয়।

পুলিশ বলছে এই সময় সন্দেহভাজন ওই ব্যক্তি একটি নীল রঙের সেডান গাড়ি নিয়ে ক্যাপিটল উত্তর দিকের বেরিকেডের উপর আছড়ে পরে।

তারপর চালক গাড়ি থেকে বেরিয়ে এসে ছুরি দিয়ে পুলিশের ওপর হামলা চালায়।

একসময় পুলিশের একজন সদস্য আগ্নেয়াস্ত্র বের করে তাকে গুলি করে।

হামলাকারী নিহত হবার আগেই তার ছুরিকাঘাতে দুজন পুলিশ কর্মকর্তা আহত হন।

ভিডিও ফুটেজে দেখা গেছে ঘটনাস্থলে হেলিকপ্টার উড়ছে, দুটি স্ট্রেচারে করে দুইজনকে এম্বুলেন্সে নেয়া হচ্ছে।

রবার্ট কনটে বলেছেন, সন্দেহভাজন ওই হামলাকারী একাই ছিল।

কি প্রতিক্রিয়া আসছে?

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছেন, "এই সহিংস হামলার কথা জেনে তাঁর হৃদয় ভেঙ্গে গেছে"।

তিনি পুলিশ অফিসারের মৃত্যুতে তার পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন।

তার সম্মানে হোয়াইট হাউসের পতাকা অর্ধনমিত রাখা হবে।

ডেমোক্রেটিক হাউস স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি বলেছেন, "আমেরিকানদের হৃদয় ভেঙ্গে গেছে"। নিহত মি. ইভান্সকে 'গণতন্ত্রের শহীদ' বলে আখ্যা দিয়েছেন তিনি।

রিপাবলিকান সিনেটের সংখ্যালঘু নেতা মিচ ম্যাককনেল লিখেছেন তিনি প্রার্থনা করছেন।

বিবিসি বাংলায় আরো পড়ুন: