তসলিমার ‘মইন আলী -আইসিস’ টুইটে খেপেছেন ইংলিশ ক্রিকেটাররা

মইন আলী

ছবির উৎস, Getty

ছবির ক্যাপশান,

মইন আলী

ধর্ম নিয়ে বিশেষ করে ইসলাম নিয়ে তার কটাক্ষমুলক লেখালেখি নিয়ে বিতর্ক ভারতে আশ্রয় নেওয়া বাংলাদেশি লেখক তসলিমা নাসরিনের জন্য নতুন কিছু নয়।

তবে লম্বা শশ্রুধারী ধার্মিক ইংলিশ ক্রিকেটার মইন আলীকে কটাক্ষ করে পোস্ট করা তার একটি টুইট নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় তীব্র আক্রমণের মুখে পড়েছেন নির্বাসিত বাংলাদেশি এই লেখিকা।

মইনের সতীর্থ বেশ কজন ইংলিশ ক্রিকেটার টুইটারে তাদের পোস্টে তসলিমার 'মানসিক সুস্থতা' নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন।

তসলিমার টুইটটি নিয়ে টুইটার কর্তৃপক্ষের কাছে অভিযোগ করার জন্য মানুষজনকে অনুরোধ করেছেন ইংল্যান্ড জাতীয় ক্রিকেট দলের দুজন সদস্য - স্যাম বিলিংস এবং বেন ডাকেট।

ছবির উৎস, Getty

ছবির ক্যাপশান,

তসলিমা নাসরিন

তবে দিল্লিতে বিবিসি বাংলার শুভজ্যোতি ঘোষকে তসলিমা নাসরিন বলেছেন, টুইটটি তিনি মুছে দিলেও ঐ টুইট পোস্ট করা নিয়ে কোনো অনুশোচনা তার নেই। তিনি বলেন, ব্যক্তি মইনকে নয়, ‘কট্টর ইসলামকে‘ কটাক্ষ করতে চেয়েছেন তিনি।

ইংলিশ ক্রিকেটারদের সমালোচনার প্রসঙ্গে প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “তারা তাদের সতীর্থকে সমর্থন করছে ভালো কথা। তারা বলেছে বলে আমি টুইটটি মুছে দিয়েছি, কিন্তু তারা আমার সম্পর্কে কতদূর জানে?“

বিতর্কের সূত্রপাত

বিতর্কের সূত্রপাত হয় সোমবার যখন দিল্লিতে বসবাসরত তসলিমা নাসরিন এক টুইটে লেখেন - “ক্রিকেট না খেললে মইন আলী হয়ত সিরিয়ায় গিয়ে আইসিস-এ যোগ দিতেন।“

এ ধরণের উস্কানিমুলক টুইটের পেছনে রয়েছে আসন্ন আইপিএল যেখানে মইন চেন্নাই সুপার কিংস (সিএসকে) দলে খেলছেন। মদ তৈরির একটি কোম্পানি এবার সিএসকে দলের অন্যতম স্পন্সর।

ছবির উৎস, Twitter

ছবির ক্যাপশান,

টুইটারে তসলিমার মানসিক স্বাস্থ্য নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন ক্রিকেটার জফরা আর্চার

বিবিসি বাংলায় অন্যান্য খবর:

শনিবার ভারতের কয়েকটি পত্রিকায় রিপোর্ট বের হয় যে ঐ কোম্পানির লোগো তার জামায় ব্যবহার না করার জন্য মইন আলী সিএসকে কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ করেছেন।

যদিও সিএসকে দলের প্রধান নির্বাহী কাশী বিশ্বনাথন এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, মইন এমন কোনো অনুরোধ করেননি, কিন্তু সোমবার মইনকে কটাক্ষ করে তার টুইটটি পোস্ট করেন তসলিমা নাসরিন।

পরপরই সোশাল মিডিয়ায় তসলিমার ঐ টুইট নিয়ে শুরু হয়ে যায় তুমুল বিতর্ক। নেটিজেনদের সিংহভাগই তসলিমার ঐ টুইটের সমালোচনা করেছেন। অনেকে তাকে ‘মুসলিম বিদ্বেষী‘ বলে আক্রমণ করছেন।

বেন ডাকেটের টুইট:

তসলিমার মানসিক সুস্থতা নিয়ে প্রশ্ন

তসলিমা নাসরিনের সমালোচনায় এখন যোগ দিয়েছেন মইন আলী সতীর্থ ইংলিশ ক্রিকেটারদের বেশ ক'জন। প্রথম মুখ খোলেন ইংল্যান্ড জাতীয় দলের অল-রাউন্ডার জফরা আর্চার।

তসলিমা তার টুইটটি পোস্ট করার প্রায় পরপরই ক্ষুব্ধ জফরা তাকে উদ্দেশ্য করে পাল্টা টুইট করেন - “আপনি কি সুস্থ? আমার মনে হয় না আপনি সুস্থ।“ জফরার ঐ টুইট রি-টুইট হয়েছে শত শতবার।

পাশাপাশি ভারত এবং ভারতের বাইরে হাজার হাজার মানুষ টুইটে মইনকে কটাক্ষ করে পোস্ট করা তসলিমা নাসরিনের ঐ টুইটের তীব্র সমালোচনা শুরু করেন যা এখনো সমানে চলছে।

জফরা আর্চারের সাথে তসলিমার সমালোচনায় একে একে সামিল হন ইংল্যান্ড দলে মইনের সতীর্থ স্যাম বিলিংস এবং বেন ডাকেট। মুখ খুলেছেন ইংল্যান্ডের সাবেক ফাস্ট বোলার রায়ান সাইডবটম এবং কাউন্টি ক্লাব ল্যাঙ্কাশায়ারের তারকা ফাস্ট বোলার সাকিব মাহমুদ।

স্যাম বিলিংস তার ফলোয়ারদের অনুরোধ করেছেন, তারা যেন তসলিমার টুইটটি নিয়ে টুইটার কর্তৃপক্ষের কাছে অভিযোগ করেন।

একই অনুরোধ করেছেন বেন ডাকেট। তিনি টুইট করেছেন, “টুইটারের সমস্যা এটাই। মানুষ এ ধরণের কথাও সেখানে বলতে পারে। টুইটটি (তসলিমার) রিপোর্ট করুন।“

রায়ান সাইডবটম তার টুইটে তসলিমাকে তীব্র ভাষায় আক্রমণ করেছেন, “আমার মনে হয় আপনার দেখা উচিৎ আপনি সুস্থ কিনা? আপনি আপনার অ্যাকাউন্ট ডিলিট করার কথাও ভাবতে পারেন।“

এমনকি ভারতের মানবাধিকার এবং নারী অধিকার কর্মীদের অনেকেও তসলিমার সমালোচনা করেছেন।

প্রখ্যাত নারী অধিকার কর্মী কবিতা কৃষ্ণান, যিনি অল ইন্ডিয়া প্রগ্রেসিভ উইমেন অ্যাসোসিয়েশনের সেক্রেটারি, তসলিমার তীব্র সমালোচনা করে টুইট করেছেন - “একজন লেখক হিসাবে নয়, একজন যুক্তিবাদী এবং নারীবাদী হিসাবে নয় - ভবিষ্যতে আপনি (তসলিমা) বিবেচিত হবেন একজন গোঁড়া বিদ্বেষী হিসাবে।“

তসলিমার ব্যাখ্যা

অবস্থা বেগতিক দেখে গতকাল (মঙ্গলবার) তসলিমা নতুন এক টুইট করে বলার চেষ্টা করেন যে মইনকে ব্যঙ্গ করেতেই তিনি ঐ টুইটটি করেছিলেন।

“বিদ্বেষীরা ভালো করেই জানেন মইন আলীকে নিয়ে ব্যঙ্গ করেছি। কিন্তু সেটিকে কেন্দ্র করে তারা আমাকে অপমান করার চেষ্টা করছেন কারণ আমি মুসলিম সমাজকে ধর্মনিরপেক্ষ করার চেষ্টা করছি এবং আমি কট্টর ইসলামের বিরোধিতা করি।“

দিল্লিতে টেলিফোনে বিবিসি বাংলার কাছে মইন আলীকে নিয়ে তার বিতর্কিত টুইটের পক্ষে একই ধরণের ব্যাখ্যা দেওয়ার চেষ্টা করেছেন তসলিমা নাসরিন।

তিনি বলেন, “মইন আলী হয়তো ভালো মানুষ, কিন্তু আইসিসে তো আর অপরাধীরা যায়নি। টিভিতে আমি দেখেছি সে নারী সাংবাদিকদের সাথে চোখে চোখ রেখে কথা বলছে না। মাঠের পাশে নামাজ পড়ছে ...সুন্নতি লম্বা দাঁড়ি। খেলার মাঠে এই এগুলো কেন? সেগুলোর কারণেই উপহাস করতে টুইটটি করেছি। মত প্রকাশের স্বাধীনতার যুগে সেটা কি করা যাবেনা?“

কিন্তু খুব মানুষই তসলিমার এই ব্যাখ্যা গ্রহণ করেছেন বলে মনে হচ্ছে।

ক্রিকেটার জফরা আর্চার টুইটে জবাব দিয়েছেন - “মজা করছেন? কিন্তু কেউই হাসছে না। আপনি নিজেও বোধ হয় হাসছেন না। যেটা আপনি করতে পারেন টুইটটি মুছে ফেলতে পারেন।“

বোলার সাকিব মাহমুদ টুইট করেছেন - “মজা করেছেন? আপনার মন অসুস্থ।“

তসলিমা নাসরিন তার সোমবারের টুইটটি মুছে দিয়েছেন। তবে আজ তিনি নতুন এই টুইটে কিছুটা শ্লেষের সাথে বলেছেন যারা মুক্ত চিন্তা বা মত প্রকাশের স্বাধীনতার সমর্থক তারাও তাকে আক্রমণ করছেন। “কারণ আলী মহান একজন মানুষ। আমি নই।“

ইংলিশ ক্রিকেটাররা মইন আলীর সমর্থনে সোচ্চার হলেও, চেন্নাই সুপার কিংস দল বা দলের ক্রিকেটাররা তসলিমার ঐ টুইট নিয়ে নিয়ে এখনও নিশ্চুপ। ভারতের ক্রিকেটাররাও চুপ।

ভারতের প্রখ্যাত সাংবাদিক বরখা দত্ত এ নিয়ে এক টুইটে লিখেছেন - “তসলিমা নাসরিনের টুইটের পর ব্রিটিশ ক্রিকেটাররা যেভাবে মইন আলীর সমর্থনে দাঁড়িয়েছে তা প্রশংসা করার মত। আশা করি আমাদের ক্রিকেটারও এর থেকে শিক্ষা নেবেন এবং তাদের মনের কথা প্রকাশ করবেন।“

মইন আলী নিজে এখনও তসলিমা নাসরিন বা তার টুইট নিয়ে প্রকাশ্যে কিছু বলেননি।

তার নজর হয়তো এখন শনিবার মুম্বাইয়ে সিএসকের প্রথম আইপিএল ম্যাচের দিকে।