নিরাপদ সড়ক: সিটি কর্পোরেশনের ময়লার গাড়ির ধাক্কায় নটরডেম কলেজ ছাত্রের মৃত্যু, গুলিস্তানে বিক্ষোভ

নাইম হাসান

ছবির উৎস, DMP

ছবির ক্যাপশান,

নাইম হাসানের আইডি কার্ড থেকে নেয়া ছবি।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের ময়লাবাহী গাড়ির ধাক্কায় বুধবার নটরডেম কলেজের এক ছাত্রের মৃত্যুর পর গুলিস্তানে বিক্ষোভ করেছে নটরডেম কলেজ সহ বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা।

পুলিশ বলছে, নটরডেম কলেজের ছাত্র নাইম হাসান দুপুর বারোটার দিকে কলেজ থেকে বাসায় ফেরার পথে দুর্ঘটনায় প্রাণ হারান।

পল্টন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ সালাউদ্দিন মিয়া জানিয়েছেন, মি. হাসান গুলিস্তানে গোলচত্বরে হল মার্কেটের সামনে রাস্তা পার হওয়ার সময় ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের একটি ময়লাবাহী গাড়ির ধাক্কায় তিনি গুরুতর আহত হন।

সেখান থেকে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে দায়িত্বরত চিকিৎসকেরা তাকে মৃত ঘোষণা করে।

মি. মিয়া বিবিসিকে বলেন ঘটনার সময় তার পরনে কলেজের পোশাক ছিল। তার ব্যাগে কলেজের আইডি কার্ড দেখে তার পরিচয় শনাক্ত করা হয়।

এই ঘটনায় ময়লাবাহী গাড়িটির চালক গ্রেপ্তারের কথা জানিয়েছেন তিনি।

ছবির উৎস, Getty Images

ছবির ক্যাপশান,

ঢাকায় সড়কগুলো ব্যাপক বিশৃঙ্খল বলে পরিচিত।

নিহত নাইম হাসান নটরডেম কলেজের উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের মানবিক বিভাগের শিক্ষার্থী।

আগামী বছর উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন বলে জানিয়েছেন নটরডেম কলেজের প্রিন্সিপাল ফাদার হেমন্ত রোজারিও।

তিনি জানিয়েছেন, মি. হাসান একজন মেধাবী ছাত্র ছিলেন। তার পরিবার কামরাঙ্গির চরের বাসিন্দা। দুই ভাইয়ের মধ্যে সে ছিল ছোট।

কলেজের শিক্ষার্থীরা এই ঘটনায় বিমর্ষ বলে জানিয়েছেন ফাদার রোজারিও।

'উই ওয়ান্ট জাস্টিস' শ্লোগানের প্রত্যাবর্তন

দুর্ঘটনার ঘণ্টাখানের মধ্যেই ঘটনাস্থল গুলিস্তান গোলচত্বরে জড়ো হয়ে বিক্ষোভ শুরু করেন বিভিন্ন কলেজের শিক্ষার্থীরা।

ঢাকায় গত কয়েকদিন ধরে বিভিন্ন কলেজের শিক্ষার্থীরা তাদের জন্য বাসে অর্ধেক ভাড়া চালু করার দাবিতে আন্দোলন করে আসছিলেন।

শিক্ষার্থীরা বিষয়টি নিয়ে উত্তেজিত ছিলেন। আর এমন পটভূমিতে এই দুর্ঘটনা হল।

ছবির উৎস, Getty Images

ছবির ক্যাপশান,

২০১৮ সালে নিরাপদ সড়ক আন্দোলনে 'উই ওয়ান্ট জাস্টিস' শীর্ষক শ্লোগানটি জনপ্রিয় হয়। (ফাইল চিত্র)

গুলিস্তানে জড়ো হওয়া শিক্ষার্থীরা অনেকেই ২০১৮ সালে দুই কলেজ শিক্ষার্থীর মৃত্যুর পর 'নিরাপদ সড়ক আন্দোলন' নামে শিক্ষার্থীদের যে নজিরবিহীন আন্দোলন হয়েছিল, সেই সময়কার দাবিগুলোর কথা উল্লেখ করেন।

সেসময় শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মুখে নতুন আইন প্রণয়ন করে সরকার।

২০১৮ সালে ব্যাপকভাবে ব্যবহৃত যে শ্লোগান, গুলিস্তানে সেই 'উই ওয়ান্ট জাস্টিস' শ্লোগান দিতে দেখা গেছে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীদের।

সেখানে দায়িত্বরত পুলিশ কর্মকর্তারা মেগাফোনে তাদের শান্ত করার চেষ্টা করেন।

রাষ্ট্রপতি কিছুক্ষণ পর এখান থেকে যাতায়াত করবেন বলে তাদের সড়ক থেকে সরে যাওয়ার জন্য অনুরোধ করতে দেখা যায় পুলিশকে।

ছবির উৎস, Getty Images

ছবির ক্যাপশান,

নিরাপদ সড়কের দাবিতে ঢাকায় ২০১৮ সালে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ। (ফাইল চিত্র)

শিক্ষার্থীরা তাদের ঘিরে ধরে বিচার ও ক্ষতিপূরণের দাবি করতে থাকেন।

গাড়ির হেল্পার গাড়ি চালাচ্ছিল এমন অভিযোগ উঠেছে এই দুর্ঘটনার পর।

পুলিশ সেখানে জানায় তারা গাড়ির চালকের আসনে যিনি বসা ছিলেন তাকে গ্রেফতার করেছেন।

তিনি হেল্পার কিনা সে ব্যাপারে তারা নিশ্চিত নন।

২০১৮ সালে সেই দুর্ঘটনার বিচার এখনো হয়নি উল্লেখ করে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা যথাযথ বিচার এই ঘটনাতেও পাওয়া যাবে কিনা সে ব্যাপারে সন্দেহ পোষণ করে আন্দোলন চালিয়ে যাওয়া ঘোষণা দেন।

এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত তারা ঘটনাস্থলের আশপাশের সড়কে মিছিল করেন।

গত শুক্রবারই একটি বেপরোয়া গাড়ির ধাক্কায় একটি রিক্সার আরোহী পিতা-পুত্রের আহত হবার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ভাইরাল হলে এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে বেশ শোরগোল হয়। এ ঘটনা জের না কাটতেই গুলিস্তানে ছাত্র মৃত্যুর ঘটনায় ছাত্রবিক্ষোভ শুরু হল।

ভিডিওর ক্যাপশান,

বেইলি রোডে বেপরোয়া গাড়ির ধাক্কায় আঘাত পাওয়া পিতা-পুত্রের ভাগ্যে যা ঘটেছে