আফগান বাহিনী এবছর আংশিক দায়িত্ব পেতে পারে

afghan forces
Image caption আফগান বাহিনী

আফগানিস্তানে ভবিষ্যৎ কর্মপন্থা নিয়ে এক আন্তর্জাতিক সম্মেলনে সমঝোতা হয়েছে যে, এবছর আফগান বাহিনীকে কয়েকটি প্রদেশের নিরাপত্তা রক্ষার দায়িত্ব দেওয়া হতে পারে৻

লন্ডনে সম্মেলনের শেষে ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডেভিড মিলিব্যান্ড জানিয়েছেন আগামী বছর নাগাদ আফগান সেনা বাহিনী এবং পুলিশের সংখ্যা তিল লাখ ছাড়িয়ে যাবে৻ এছাড়া তালেবানের আত্মীকরণের জন্য চৌদ্দ কোটি ডলারের তহবিল গঠনের ঘোষণা দেওয়া হয়েছে৻

এই সম্মেলেনে প্রায় ৭০টি দেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রী এবং বিভিন্ন সংস্থার কর্মকর্তারা যোগ দিয়েছিলেন৻ সম্মেলনে আলোচ্যসূচিতে গুরুত্ব পেয়েছে নিরাপত্তার দায়িত্ব ধীরে ধীরে আফগান বাহিনীর হাতে তুলে দেয়া, দেশটিতে শান্তি স্থাপনের জন্য রাজনৈতিক প্রক্রিয়া জোরদার করা এবং এই প্রক্রিয়ায় অর্থ জোগান দেয়া৻

সম্মেলন উদ্বোধন করতে গিয়ে বৃটেনের প্রধান মন্ত্রী গর্ডন ব্রাউন বলেন সামরিক শক্তি ব্যবহার করে তালেবানের সবাইকে পরাস্ত করার দরকার নেই৻ তিনি মনে করেন তালেবানে বিভক্তি সৃষ্টি করা সম্ভব এবং সেই চেষ্টা চালানো প্রয়োজন৻ মি: ব্রাউন বলেন আফগানরা যাতে তাদের দেশকে নিরাপদ করতে পারে এবং তারা নিজেরাই তাদের দেশ শাসন করতে পারে সেজন্যে তাদেরকে সাহায্য করা হবে৻

আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট হামিদ কারযাই বলেছেন যেসব আফগান সংবিধান মেনে চলেন তাদের ঐক্যবদ্ধ করার জন্য একটি নতুন জাতীয় পরিষদ গঠন করা হবে৻ যে তহবিল গঠনের সিদ্ধান্ত হয়েছে, তা দিয়ে দলত্যাগী তালেবান যোদ্ধাদের চাকরী, নগদ টাকা এবং নিরাপত্তা দেয়া হবে৻

লন্ডন সম্মেলনে আফগান সরকারকে সরাসরি সহায়তা বাড়াতে স্ম্মত হয়েছে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়, তবে এজন্য দুর্নীতি দমনের শর্ত বেঁধে দেওয়া হয়েছে৻ আফগানিস্তানে দুর্নীতি দমনের জন্য মি: কারযাই চাপের মুখে রয়েছেন৻ তিনি বলেছেন ক্ষমতায় দ্বিতীয় মেয়াদে দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াই হবে তার অন্যতম কাজ৻ জাতিসংঘের এক সাম্প্রতিক জরীপে দেখা গেছে আফগানরা মনে করে দেশটির জন্য দুর্নীতি হচ্ছে সবচেয়ে বড় সমস্যা৻