নির্বাচনী জট ছাড়াতে চেষ্টা ইরাকে

Iraq candidate ban
Image caption ইরাকে কিছু প্রার্থীর নির্বাচনে লড়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা নিয়েই তৈরি হয়েছে জটিলতা

ইরাকে আসন্ন সংসদীয় নির্বাচনের আয়োজনকে ঘিরে যে অচলাবস্থা তৈরি হয়েছে, সেই সঙ্কট কাটিয়ে ওঠার পথ খুঁজতে সে দেশের পার্লামেন্ট রবিবার এক জরুরি অধিবেশনে বসেছে৻

দেশের প্রাক্তন নেতা সাদ্দাম হুসেনের বাথ পার্টির সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে শত শত ইরাকী সাংসদের নির্বাচনে লড়ার ক্ষেত্রে যে নিষেধাজ্ঞা আছে, তা বহাল রাখা হবে কি না তা নিয়েই এই সঙ্কটের সূত্রপাত – এবং আগামী মাসে অনুষ্ঠিতব্য নির্বাচনের প্রস্তুতি এর ফলে ব্যাহত হচ্ছে৻

শিয়া মতাবলম্বী রাজনৈতিক দলগুলি এই নিষেধাজ্ঞা উঠিয়ে নেওয়ার রায়ের বিরুদ্ধে আজ বিক্ষোভও দেখাচ্ছে৻

বাথ পার্টির সাথে সম্পৃক্ততার অভিযোগে প্রায় পাঁচশো প্রার্থীর নির্বাচনে অংশগ্রহণের উপর যে নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছিল, আদালতের একটি রায়ে তা খারিজ করে দেয়া হলে, সেই রায়ের বিরুদ্ধেই এরা বিক্ষোভ জানান৻

সংসদে রবিবার এই বির্তকের কোনও সমাধান না হলে, আগামী মাসের অনুষ্ঠেয় নির্বাচনের প্রচারের কাজ শুরু হতে বিলম্ব ঘটতে পারে৻

এই সঙ্কট সমাধান করা না গেলে প্রচারাভিযান শুরু করার আগেই বিচারকদের একটি প্যানেলকে প্রায় ৫০০ আবেদন যাচাই বাছাই করতে হবে৻

বাগদাদ থেকে বিবিসির সংবাদদাতা গ্যাব্রিয়েল গেইটহাউস বলছেন যেহেতু এরপর আপীলের সুযোগ রয়েছে সেহেতু মনে হয় নির্বাচনী প্রচারাভিযানের তারিখ আবার পিছাতে পারে৻

তিনি বলছেন এই নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে সুন্নীরাই বেশী সোচ্চার কারণ তারা মনে করে এই পদক্ষেপের লক্ষ্য তারাই৻ তাদের অভিযোগ বাথপন্থী সাদ্দাম হোসেনের পতনের পর থেকে তাদেরকে কোণঠাসা করে রাখার চেষ্টা করা হচ্ছে৻

সুন্নীরা সংখ্যালঘু হওয়া সত্ত্বেও সাদ্দাম হোসেনের শাসনামলে তারাই ছিল ইরাকের হর্তাকর্তা৻

রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা বলছেন প্রাক্তন বাথপন্থীদের বিরুদ্ধে সরকার পদক্ষেপ নেওয়ায় ইরাকে শিয়া এবং সুন্নীদের মধ্যে সাম্প্রদায়িক বিরোধ আবার শুরু হতে পারে৻

প্রায় ৫০০ প্রার্থীকে নিষিদ্ধ করায় যুক্তরাষ্ট্র আশঙ্কা প্রকাশ করেছে কারণ তাদের উদ্বেগ এই বিতর্কের ফলে নির্বাচন বিশ্বাসযোগ্যতা হারাতে পারে৻