আফগানদের প্রতি নেটোর আশ্বাস

নেটো বাহিনীর আশ্বাস
Image caption নেটো বাহিনীর আশ্বাস

আফগানিস্তানে ডাচ বাহিনীর ভবিষ্যত নিয়ে একটা অনিশ্চয়তা তৈরী হওয়ার পর নেটো সেদেশে তাদের অভিযান সম্পর্কে আফগান জনগণকে আশ্বস্ত করার চেষ্টা করছে৻

মন্ত্রিসভায় দীর্ঘ আলোচনা ব্যর্থ হওয়ার পর শনিবার সকালে যখন ডাচ সরকারের পতন ঘটে, আফগানিস্তানে মোতায়েন নেটো বাহিনীর অংশ যে ডাচ সেনারা তাদের সেখান থেকে ফিরে আসাটাও তখনই একরকম নিশ্চিত হয়ে যায়৻

মধ্য আফগানিস্তানের উরুজগান প্রদেশে প্রায় দুহাজার ডাচ সেনা এখন মোতায়েন আছে, এবং ওই প্রদেশের গভর্নর আসাদুল্লাহ হামদাম বিবিসিকে বলেন, ওই অঞ্চলে নিরাপত্তা, পুলিশ বাহিনীর প্রশিক্ষণ কিংবা পুনর্গঠনের কাজে ডাচ উপস্থিতি খুবই গুরুত্বপূর্ণ !

তবে নেটোর মহাসচিবের একজন মুখপাত্র জেমস আপাথারাই জানিয়েছেন, উরুজগানে আফগানদের জন্য জোটের সহযোগিতা অক্ষুণ্ণ থাকবে৻ তিনি বলেন, এটা ডাচ সরকারের সিদ্ধান্ত এবং নেটো এখানে হস্তক্ষেপ করতে পারে না, করতে চায়ও না৻

তবে ওই মুখপাত্র জানান, আফগানিস্তানে সার্বিক অভিযানের ভবিষ্যত নিয়ে নেটোর একটা দৃষ্টিভঙ্গী আছে এবং আফগানরা নিশ্চিন্ত থাকতে পারেন, যাই ঘটুক না-কেন, উরুজগানসহ গোটা দেশকেই নেটো সমর্থন জুগিয়ে যাবে৻ যতদিন দরকার হবে ততদিন তা বজায় থাকবে, এটা নেটো স্পষ্ট করে দিতে চাইছে৻

নেটো একথাও জানিয়েছে, তারা মনে করে ডাচ সেনাদের সম্ভাব্য প্রত্যাহার সত্ত্বেও আফগানিস্তানে তাদের অভিযানের প্রতি এখনও ব্যাপক সমর্থন আছে৻

তবে বিভিন্ন দেশে এই সমর্থন বজায় রাখার কাজটা যে কঠিন, নেটোর মুখপাত্র সেকথা স্বীকার করেছেন, এবং বলেছেন, সুড়ঙ্গের শেষে আলো দেখা যাবেই এবং সেই আলোটা যে এখন দেখার শুরু হতে পারে, সেটাই সবাইকে বোঝাতে হবে !

এর আগে ডাচ মন্ত্রিসভার ১৬ ঘণ্টা ম্যারাথন বৈঠকের পর প্রধানমন্ত্রী ইয়ান পিটার বলকানেন্ডের জোট সরকারের পতন ঘটে৻ এ বছরের মধ্যেই আফগানিস্তান থেকে ডাচ সেনা প্রত্যাহার করা হবে কি না- এই প্রশ্নে একমত হতে না পারার কারণেই এই ত্রিদলীয় সরকারের ভবিষ্যত শনিবার ভোরের আগে অনিশ্চিত হয়ে যায়৻

বৈঠকের পর মি. বলকানেন্ডে জানান, জোট সরকারের সামনে এগিয়ে যাওয়ার জন্যে দুর্ভাগ্যজনকভাবে তারা কোনো ফলপ্রসূ সমাধানে পৌঁছাতে পারেননি৻

প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে মধ্য-ডানপন্থী ক্রিশ্চিয়ান ডেমোক্র্যাটসরা আফগানিস্তানে ডাচ সেনাদের মোতায়েন রাখার সময়সীমা বাড়াতে চেয়েছিলো৻

বর্তমান ম্যান্ডেট অনুসারে ডাচ সৈন্যদের এ বছরের আগস্ট মাস পর্যন্ত আফগানিস্তানে থাকার কথা৻ শরিক দল ডাচ লেবার পার্টির দাবী ছিল এই সময়ের মধ্যেই সৈন্যদের ফিরিয়ে আনতে হবে৻

এর আগে এই মেয়াদ আরো একবার বাড়ানো হয়েছে এবং ২০০৬ সালে তাদের অভিযান শুরু হওয়ার পর আফগানিস্তানে এ পর্যন্ত ২১জন ডাচ সেনা নিহত হয়েছে৻