সৌর বিদ্যুত কি বিকল্প হতে পারে

আপনার ডিভাইস মিডিয়া প্লেব্যাক সমর্থন করে না

বাংলাদেশে এখন যে তীব্র বিদ্যুৎ ঘাটতি, তার মোকাবেলায় সৌর শক্তিকে জনপ্রিয় করার উদ্যোগ নিয়েছে সরকার৻

কিন্তু বিদ্যুতের ঘাটতি যখন প্রায় দু হাজার মেগাওয়াট ছাড়িয়ে গেছে তখন সৌর শক্তির মতো বিকল্প জ্বালানী সেই চাহিদা আসলে কতটা পূরণ করতে পারবে ?

বিকল্প জ্বালানীর ব্যাপারে উৎসাহী এনজিও এবং বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানগুলো এ বিষয়ে খুবই আশাবাদী৻ বিশেষ করে প্রত্যন্ত অঞ্চলের দরিদ্র জনগোষ্ঠীর চাহিদা মেটাতে সৌর শক্তির বিপুল সম্ভাবনা রয়েছে বলে মনে করেন এরা৻

Image caption প্রধানমন্ত্রীর অফিসে সোলার প্যানেল

কিন্তু বিশেষজ্ঞদের সংশয় রয়েছে৻ তাঁরা মনে করেন এটি বর্তমান সংকটের কোন সমাধান নয়৻

প্রধানমন্ত্রীর দফতরে সৌর শক্তি

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর দফতরে বৃহস্পতিবার সৌর বিদ্যুতের জন্য সোলার প্যানেল বসানো হয়৻ আনুষ্ঠানিকভাবে এর উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা৻

এর আগে বুধবার ঢাকায় কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ভবনের শীর্ষে একই ধরনের সোলার প্যানেল বসানো হয়৻ বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ডঃ আতিউর রহমান এর উদ্বোধন করেন৻ তিনি আশা প্রকাশ করেন যে ঢাকার অন্যান্য ব্যাংকও একই ধরণের পদক্ষেপ নিয়ে সৌর বিদ্যুৎকে জনপ্রিয় করতে এগিয়ে আসবে৻

সরকারি কর্মকর্তারা মনে করছেন পরিবেশ বান্ধব এই প্রযুক্তিকে জনপ্রিয় করা গেলে তাতে বর্তমান বিদ্যুৎ সংকটের অনেক সুরাহা হবে৻

সৌর বিদ্যুতের সম্ভাবনা

বাংলাদেশে সৌর বিদ্যুতকে উৎসাহিত করার জন্য বিগত ১৫ বছর ধরে বিভিন্ন বেসরকারি সংস্থা কাজ করছে।

এদের হিসেবে বাংলাদেশে গ্রামাঞ্চলে প্রায় ৪০ লাখের মতো মানুষ এখন সৌর শক্তি ব্যবহার করে উপকৃত হচ্ছেন।

সাধারণত যেসব এলাকায় এখনও বিদ্যুত পৌঁছেনি সেখানকার স্বচ্ছল মানুষরাই কেবল সৌর বিদ্যুত ব্যবহার করছেন ।

বাংলাদেশে সৌর বিদ্যুত প্রসারে প্রথম দিকে কাজ শুরু করেছিলেন যারা, তাদের একজন দিপাল বড়ুয়া৻ তখন তিনি কাজ করতেন গ্রামীণ শক্তি নামের একটি প্রতিষ্ঠানে৻ বর্তমানে তিনি ব্রাইট গ্রিন এনার্জি ফাউন্ডেশন নামের প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান।

মি: বড়ুয়া বলছেন বাংলাদেশে সৌর বিদ্যুৎ ব্যবহারের সম্ভাবনা আছে। কিন্তু কতটা ?

"বর্তমানে বাংলাদেশে যেরকম বিদ্যুতের চাহিদা সেটার বিকল্প হয়তো সৌর শক্তি নয়৻ কিন্তু বর্তমান সংকট লাঘবে এটা সহায়ক হতে পারে৻"

দিপাল বড়ুয়া বলেন, শহরের বাড়ীগুলোর ছাদে যদি এক থেকে পাঁচ কিলোওয়াট ক্ষমতার সোলার প্যানেল বসানো যায়, তা থেকে ঘরের চাহিদা মিটিয়ে বাড়তি বিদ্যুত গ্রীড লাইন দেয়া সম্ভব৻ এতে লোড শেডিং কিছুটা কমবে৻

বেসরকারী সংস্থাগুলোর দেয়া হিসেব অনুযায়ী বাংলাদেশে এখন সৌর শক্তি থেকে আসছে প্রায় দশ মেগাওয়াট বিদ্যুত৻ দিপাল বড়ুয়া মনে করেন এটি দুশ থেকে তিনশ মেগাওয়াট পর্যন্ত উন্নীত করা সম্ভব৻

তবে সৌর বিদ্যুতের সম্ভাবনা নিয়ে সন্দিহান বিশেষজ্ঞরা৻

বাংলাদেশ ব্যাংক যে সৌর বিদ্যুৎ প্যানেল স্থাপন করেছে তার সাথে যুক্ত ছিলেন বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের জ্বালানী গবেষনা কেন্দ্রের পরিচালক অধ্যাপক শহিদুল ইসলাম৻

তিনি বলছেন সৌর বিদ্যুৎ ব্যবহার করে কয়েকটি বাতি জ্বালানো বা কম ক্ষমতার বৈদ্যুতিক পাখা হয়তো চালানো সম্ভব৻ কিন্তু ঘরে বা কর্মক্ষেত্রে বিদ্যুতের যে বিরাট চাহিদা তা এখান থেকে আসবে না৻