কামারুজ্জামান, কাদের মোল্লা গ্রেফতার

কাদের মোল্লা এবং মু. কামারুজ্জামান
Image caption জামায়াতের দুই সহকারী সেক্রেটারী জেনারেল

জামায়েতে ইসলামীর শীর্ষ তিনজন নেতাকে গ্রেফতারের দু’সপ্তাহ পরে আজ দলটির দুজন সহকারী সেক্রেটারী জেনারেল আব্দুল কাদের মোল্লা এবং মোহাম্মদ কামারুজ্জমানকে গ্রেফতার করেছে।

জামায়েতে ইসলামীর শীর্ষ তিনজন নেতাকে গ্রেফতারের দু’সপ্তাহ পরে আজ দলটির দুজন সহকারী সেক্রেটারী জেনারেল আব্দুল কাদের মোল্লা এবং মোহাম্মদ কামারুজ্জমানকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে।

পুলিশ বলছে ঢাকার পল্লবী থানায় ১৯৭১ সালে গণহত্যার অভিযোগে দায়ের করা একটি মামলায় এ দুজনকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। মামলাটি ২০০৮ সালের জানুয়ারী মাসে দায়ের করা হয়। এ মামলাটি এখন সিআইডি তদন্ত করছে।

আজ বিকেলে পুলিশ হাইকোর্টের বাইরে প্রথমে কাদের মোল্লা এবং পরে কামারুজ্জমানকে গ্রেফতার করে।

কেরানীগঞ্জ থানায় দায়ের করা মুক্তিযোদ্ধা হত্যা মামলা এবং শাহবাগ থানায় দায়ের করা পুলিশের কাজে বাঁধা দেবার অভিযোগে দায়ের করা মামলায় তারা দু’জন জামিন চাইতে হাইকোর্টে যান।

কিন্তু সরকার পক্ষ জামিনের আবেদন শুনানিতে সময় চাইলে এ অন্তর্বতী সময়ের মধ্যে আদালত গ্রেফতার বা হয়রানী না করার নির্দেশ দেয়। কিন্তু পুলিশ বলছে তাদের গ্রেফতারের সঙ্গে এ মামলাগুলোর কোন সম্পর্ক নেই।

জামায়েতের শীর্ষ তিন নেতাকে গ্রেফতারের পর আরও নেতাকে গ্রেফতার করা হতে পারে এমন কথা গত কয়েকদিন ধরেই রাজনৈতিক অঙ্গনে আলোচনায় ছিল।

গত কয়েক সপ্তাহ ধরে বিভিন্ন জায়গায় দলটির ছাত্র সংগঠন ইসলামী ছাত্র শিবির কর্মীরা বিক্ষোভ করার সময়ও পুলিশ অনেক কর্মীকে আটক করেছে।

এছাড়া জামায়াত শীর্ষ নেতাদের মানবতা বিরোধী অপরাধের মামলায় গ্রেফতার দেখানো হতে পারে বলেও আভাস দিয়েছেন সরকারের কয়েকজন মন্ত্রী।

সরকার বলছে নেতাদের গ্রেফতারের ঘটনাকে কেন্দ্র করে জামায়েতে ইসলামী যাতে ‘বিশৃঙ্খলা’ সৃষ্টি করতে না পারে সেজন্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সতর্ক রয়েছে।

অন্যদিকে জামায়েতে ইসলামী বলছে তারা নিয়মতান্ত্রিকভাবে নেতাদের গ্রেফতারের প্রতিবাদে বিক্ষোভ করছে।