বাংলাদেশে আলফা নেতা আটক

ulfa_arrested
Image caption আটক আলফা নেতা রঞ্জন চৌধুরী এবং তার বাংলাদেশী সহযোগী (ছবি: ফোকাস বাংলা)

বাংলাদেশ পুলিশের বিশেষ বাহিনী ৠাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন বা ৠাব বলছে ভারতের আসাম রাজ্যের বিছিন্নতাবাদী সংগঠন আলফার একজন শীর্ষস্থানীয় নেতাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

ৠাবের একজন মুখপাত্র জানিয়েছেন যে গ্রেফতারকৃত আলফা নেতা নিজেকে রঞ্জন চৌধুরী ওরফে মেজর রঞ্জন নামে পরিচয় দিয়েছে।

একজন বাংলাদেশী সহযোগীসহ গ্রেফতার করার সময় তাদের কাছ থেকে অস্ত্র ও বোমা উদ্ধার করা হয় বলে ৠাব জানিয়েছে।

ৠাব কর্মকর্তারা বলছেন যে কিশোরগঞ্জ জেলার ভৈরব শহর থেকে রঞ্জন চৌধুরীকে গ্রেফতার করা হয়। তাঁর সাথে থাকা প্রদীপ মারাক নামে একজন বাংলাদেশীকেও সে সময় গ্রেফতার করা হয়।

এই দুই জনের কাছ থেকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে তৈরী একটি পিস্তল, স্থানীয়ভাবে তৈরী একটি রিভলভার, কিছু গুলি, চারটি বোমা এবং বোমা তৈরীর সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয় বলে কর্মকর্তারা বলছেন।

আপনার ডিভাইস মিডিয়া প্লেব্যাক সমর্থন করে না

ৠাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক কমান্ডার মোহাম্মদ সোহায়েল বলছেন রঞ্জন চৌধুরীর বাড়ি আসামের ধুবরী এলাকায়৻

তিনি ১৯৯৭ সাল থেকে বাংলাদেশে বাস করছেন এবং শেরপুরে একজন বাংলাদেশী মহিলাকে বিয়ে করেছেন। রঞ্জন চৌধুরী সামরিক প্রশিক্ষনপ্রাপ্ত এবং গ্রেনেড হামলায় পারদর্শী বলে জানান কমান্ডার সোহায়েল৻

রঞ্জন চৌধুরী হলেন সর্বশেষ আলফা নেতা যিনি বাংলাদেশে গ্রেফতার হলেন। এর আগে আলফা নেতা অনুপ চেটিয়াকে বাংলাদেশে গ্রেফতার করা হয়েছিল ১৯৯৭ সালে।

গত ডিসেম্বরে আলফার চেয়ারম্যান অরবিন্দ রাজখোয়াকে আটকের পর খবর প্রকাশিত হয় বাংলাদেশের আইন-শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনী তাকে আটক করে ভারতের কাছে হস্তান্তর করেছিল৻ বাংলাদেশ কিংবা ভারতীয় কর্তৃপক্ষ অবশ্য এ বক্তব্য স্বীকার করেনি।

এ ছাড়া, আলফার আরো দুজন নেতা – চিত্রবন হাজারিকা এবং শশধর চৌধুরীকেও বাংলাদেশে গ্রেফতার করা হয়েছিল বলে ভারতীয় গণমাধ্যম খবর দিয়েছিল।

ৠাবের কমান্ডার সোহায়েল বলেন রঞ্জন চৌধুরীর বিরুদ্ধে অবৈধভাবে বাংলাদেশে প্রবেশের অভিযোগ আনা হচ্ছে। এছাড়া গ্রেফতারকৃত দুজনের বিরুদ্ধেই অস্ত্র আইনে মামলা হবে বলে তিনি জানান।