আটকদের নিয়ে উৎকন্ঠা

Indian border guards
Image caption আটকদের দ্রুত ফিরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা হবে বলছে বিএসএফ

বাংলাদেশের ঠাঁকুরগাও জেলার হরিপুর সীমান্ত থেকে ভারতীয় সীমান্ত রক্ষী বাহিনী বা বিএসএফ শুক্রবার যে পাঁচজনকে আটক করে নিয়ে যায় তাদের নিয়ে উদ্বেগ বাড়ছে৻

এদের মধ্যে তিনজন শিশু এবং বাকি দুজনের বয়স ১৮ বছরের কাছাকাছি।

তিনদিন হয়ে গেলেও এখনো এই শিশু কিশোরদেরকে ফিরিয়ে দেওয়া হয়নি।

আপনার ডিভাইস মিডিয়া প্লেব্যাক সমর্থন করে না

বাংলাদেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিডিআরের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে , তারা সবধরণের যোগযোগ চালিয়ে যাচ্ছে এবং এদেরকে ফিরিয়ে দেওয়ার ব্যাপারে বিএসএফ তাদের সাথে নীতিগতভাবে একমত হয়েছে।

এসব তৎপরতা সত্ত্বেও শিশু-কিশোরদের বাবা-মা এখন উৎকন্ঠার মধ্যে দিন কাটাচ্ছেন৻

গ্রামবাসীরা বলছেন, শুক্রবার সকালে পাঁচজনের এই দলটি মাছ ধরতে সকালে সীমান্তের কাছের নদীতে যায়, সেসময় তাদেরকে বিএসএফ ধরে নিয়ে যায়।

অন্যদিকে বিএসএফ এর পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে , কাঁটাতারের বেড়া কাটার চেষ্টা করছে এমন কিছু দুষ্কৃতিকারীকে তারা বেশ কিছুদিন ধরেই ধরার চেষ্টা করছিল।

দিনাজপুর সেক্টরের কমান্ডার কর্ণেল সালেহ আহমেদ বলেন, তাদের কাছে এই খবরটি আসার সাথে সাথেই তারা প্রতিবাদলিপি পাঠিয়েছেন এবং বিভিন্ন পর্যায়ের বৈঠক করেছেন। তারা আশা করছেন শীঘ্রই এর সমাধান হবে।

এই সব চেষ্টা সর্ম্পকে তেমন কিছুই জানেন না ১০ বছরের সেতাবুলের বাবা, তার সামনেই সেদিন তার ছেলেকে ধরে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন , ‘‘নদীর পাশেই একটি পুকুরে কাছে দাঁড়িয়ে তিনি দেখেন বন্দুকের মুখে তার ছেলেকে ধরে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।‘‘

এই ধরা পড়া দলের মধ্যে সবচেয়ে ছোট মিন্টু, তার মা বলছেন, মিন্টুর বয়স পাঁচ, আর সবার সাথে সেও সেদিন মাছ ধরতে যাবার জন্য বায়না ধরে।

যে দুজন ছেলের বয়স ১৮’র বেশী হতে পারে বলে বিডিআর বলছে তাদের মধ্যে একজন সালাহউদ্দিন।

তার মা অবশ্য বলেন সালাহউদ্দিনের বয়স ১৫ বছর তার বাবা অসুস্থ হওয়ায় সালাহউদ্দিনই মাছ কিনে তা বাজারে বিক্রি করে সংসার চালায় ।

তিনদিন পর এখনো এদর কাউকেই ফিরিয়ে দেয়া হয়নি। বিডিআরের সেক্টর কমান্ডার কর্ণেল আহমেদ বলছিলেন, এই শিশু-কিশোরের দলটিকে ফিরিয়ে দেওয়ার ব্যপারে বিএসএফ নীতিগতভাবে তাদের সাথে একমত হয়েছে।

কলকাতা থেকে অমিতাভ ভট্টশালী জানাচ্ছেন:

বিএসএফ বলছে, উত্তর দিনাজপুর জেলার রায়গঞ্জ এলাকায় শুক্রবার রাতে বাহিনীর ১২০ নম্বর ব্যাটালিয়নের রক্ষীরা পাঁচজন বাংলাদেশী কিশোরকে দেখতে পান কাঁটাতারের বেড়ার খুব কাছে৻

ওই কিশোররা তখন ভারতীয় ভূখন্ডের ১৫০ গজের মধ্যে ঢুকে পড়েছিল এবং অবৈধভাবে ভারতের সীমানায় প্রবেশ করার দায়ে তাদের আটক করে পশ্চিমবঙ্গ পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয় বলে বি এস এফ জানিয়েছে৻

Image caption বিএসএফ-এর কাছে প্রতিবাদপত্র পাঠিয়েছে বিডিআর

ধৃতদের মধ্যে তিনজনের বয়স ১৫ বছরের কম আর দুজনের বয়স ২০ বছরের কাছাকাছি৻

প্রথম তিনজনের বয়স কম বলে তাদের রায়গঞ্জের সুর্যোদয় মূক- বধির স্কুলের হোস্টেলে রাখা হয়েছে আর তাদের সোমবার জুভেনাইল জাস্টিস বোর্ডের কাছে পেশ করা হবে৻

আপনার ডিভাইস মিডিয়া প্লেব্যাক সমর্থন করে না

আর অন্য দুজনকে ইতিমধ্যেই আদালতের নির্দেশে বিচারবিভাগীয় হেপাজতে রাখা হয়েছে৻

বি এস এফের আধিকারিক বিকাশ চাঁদ বিবিসি-কে বলেন: ‘‘তাঁরা চেষ্টা করবেন যাতে জুভেনাইল জাস্টিস বোর্ড তিনজন কিশোরকে মুক্তি দেয় আর তারপরে বাংলাদেশের হাতে যাতে দ্রুত হস্তান্তর করা যায়৻‘‘

ধৃতদের বিষয়ে বি এস এফের স্থানীয় ডি আই জি যশোবন্ত সিং নিয়মিত বিডিআর-এর দিনাজপুর সেক্টর কমান্ডার কর্নেল সালেহ আহমেদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছেন বলেও তিনি মন্তব্য করেন৻

মি. চাঁদ বলছেন, ধৃত কিশোররা বলছে যে তারা মাছ ধরতে গিয়েই ভুলক্রমে ভারতীয় ভূখন্ডের মধ্যে ঢুকে পড়ে৻ তাদের কাছ থেকে মাছ ধরার বিভিন্ন সরঞ্জামই পাওয়া গেছে, তবে একইসঙ্গে একটি যন্ত্র পাওয়া গেছে যা পাচারকারীরা কাঁটাতারের বেড়া কাটার কাজে লাগিয়ে থাকেন৻

অনেক সময়েই বাচ্চাদের পাচারের কাজে লাগানো হয়ে থাকে বলে শুক্রবার ধৃত পাঁচজনও চোরাচালানকারীদের সঙ্গে যুক্ত কী না, তা নিয়ে বি এস এফের প্রথমে সন্দেহ হয়েছিল৻

বিএসএফ কর্মকর্তারা বলছেন, ওই অঞ্চলে গরু পাচারকারীরা সম্প্রতি অতি সক্রিয় হয়ে উঠেছে আর সেটা বাংলাদেশের নজরে আনা হয়েছে৻