ইউনুসের অব্যাহতিতে ‘রাজনীতি নেই‘

  • কাদির কল্লোল
  • বিবিসি বাংলা
ড: ইউনুস

ছবির উৎস, Focus Bangla

ছবির ক্যাপশান,

সমর্থকদের সাথে ড: ইউনুস

বাংলাদেশের অর্থমন্ত্রী ঢাকায় বিদেশী কূটনীতিকদের বলেছেন, ড: মুহাম্মদ ইউনুসকে গ্রামীণ ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালকের পদ থেকে সরিয়ে দেবার পেছনে কোন রাজনৈতিক উদ্দ্যেশ্য ছিলো না৻

আবুল মাল আব্দুল মুহিত সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, বৃহস্পতিবার প্রায় এক ঘন্টা সময় ধরে এই বৈঠকের সময় ড: ইউনুসকে অব্যাহতি দেওয়ার বিষয়টিতে সরকারের ব্যাখ্যা তুলে ধরা হয়৻

অর্থমন্ত্রী বলেছেন, ড: ইউনুসকে অব্যাহতি দেওযার ক্ষেত্রে বেআইনীভাবে , অন্যায়ভাবে বা রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে সরকার কিছু করে করেনি।

তিনি উল্লেখ করেছেন, ড: ইউনুসকে সম্মানজনকভাবে বিদায় দেওয়ার চেষ্টা তাদের ছিল।কিন্তু তাতে ড: ইউনুস এবং গ্রামীণ ব্যাংকের পক্ষ থেকে ঘাটতি ছিল।

ফলে সরকার বাধ্য হয়ে আইন সম্মতভাবে ব্যবস্থা নিয়েছে বলে তিনি মন্তব্য করেছেন।

একইসাথে অর্থমন্ত্রী স্বীকার করেছেন, এই পদক্ষেপের কারণে সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হয়েছে।

কিন্তু তিনি উল্লেখ করেছেন, গ্রামীণ ব্যাংকে বৈধ ব্যবস্থাপনা পরিচালক না থাকায় সরকারের কাছে অন্য কোন উপায় ছিল না।

এদিকে বৈঠকের পর মার্কিন রাষ্ট্রদূত জেমস মরিয়াটি সাংবাদিকদের বলেছেন, ড:ইউনুসকে যেভাবে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে, সেটা গভীর উদ্বেগের বিষয়।

তবে তিনি আশা করেছেন, পরিস্থিতির একটা সম্মানজনক সমাধান হবে।

ছবির ক্যাপশান,

ড: ইউনুসকে অব্যহতি দিয়ে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের চিঠি

বুধবার গ্রামীণ ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে নোবেল বিজয়ী ড: মুহাম্মদ ইউনুসকে অব্যাহতি দেয় বাংলাদেশ ব্যাংক৻

তবে গ্রামীণ ব্যাংকের তরফ থেকে এই আদেশে বিরোধীতা করে বলা হয় ড: ইউনুস স্বপদে বহাল থাকবেন এবং আইনের আশ্রয় নেবেন৻

গ্রামীণ বাংকের চেয়ারম্যান খন্দকার মোজাম্মেল হক বিবিসিকে বলেন, বুধবার এক চিঠির মাধ্যমে দেশের কেন্দ্রীয় ব্যাংক তাদের সিদ্ধান্ত সংশ্লিষ্ট সবাইকে জানিয়ে দিয়েছে৻

বাংলাদেশ ব্যাংকের চিঠিতে বলা হয় ১৯৮৩ সালের গ্রামীণ ব্যাংক অধ্যাদেশের ১৪(১) ধারা অনুযায়ী ব্যাংকের পরিচালনা বোর্ড এমডি নিয়োগ করবে বাংলাদেশ ব্যাংকের অনুমোদন নিয়ে৻

কিন্তু এই পূর্বানুমোদন গ্রহণ না করেই ১৯৯৯ সালে ড: ইউনুসকে অনির্দিষ্টকালের জন্য গ্রামীণ ব্যাংক-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক নিয়োগ করা হয়েছিলো৻

‘‘এমতাবস্থায় গ্রামীণ ব্যাংক অধ্যাদেশ ১৯৮৩ এর ১৪(১) ধারা লংঘনের জন্য অধ্যাপক ইউনুসকে গ্রামীণ ব্যাংক-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন হতে অব্যাহতি দেওয়া হলো,‘‘ বাংলাদেশ ব্যাংকের চিঠিতে বলা হয়৻

গ্রামীণ ব্যাংকের চেয়ারম্যানকে লেখা এই চিঠির অনুলিপি ‘‘প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের‘‘ জন্য অর্থ মন্ত্রনালয়ের সচিব এবং গ্রামীণ ব্যাংকের সচিবকেও পাঠানো হয়৻

তবে গ্রামীণ ব্যাংকের জেনারেল ম্যানেজার জান্নাত-ই কাওনাইন বাংলাদেশ ব্যাংকের চিঠির বিরোধীতা করে এক বিবৃতে বলেছেন, ড: ইউনুস স্বপদে বহাল আছেন৻

মিস কাওনাইন বলেন, বিষয়টা আইনের ব্যাপার এবং গ্রামীণ ব্যাংক সবকিছুই আইন অনুযায়ী করেছে৻

‘‘আইনগত পরামর্শদাতাদের মতে গ্রামীণ ব্যাংকের প্রতিষ্ঠাতা নোবেল বিজয়ী অধ্যাপক মোহাম্মদ ইউনুস তাঁর পদে বহাল আছেন‘‘, জান্নাত-ই কাওনাইন বলেন৻