সংসদে বিরোধী নেত্রী খালেদা জিয়া

বাংলাদেশে জাতীয় সংসদে প্রায় এক বছর পর বক্তব্য রেখেছেন সংসদে বিরোধী নেত্রী খালেদা জিয়া।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপস্থিতিতে খালেদা জিয়া তার প্রায় দু ঘন্টার বক্তৃতায় সরকারের নানা সমালোচনা ছাড়াও আবার বলেছেন, তত্ত্বাবধায়ক সরকার ছাড়া তাদের জোট কোন নির্বাচনে অংশ নেবেনা।

ছবির কপিরাইট focus bangla
Image caption সংসদে প্রায় দুই ঘন্টার বক্তব্য দেন খালেদা জিয়া

এরপরই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার বক্তব্যে পাল্টা বিএনপির শাসনামলে লুটপাটের অভিযোগ করেন এবং সরকারের নানা সফলতার কথা তুলে ধরেন।

তবে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের বিষয়টি এড়িয়ে গেছেন শেখ হাসিনা। শেখ হাসিনার বক্তব্যের সময় খালেদা জিয়া সংসদ কক্ষে ছিলেন না।

সংসদে রাষ্ট্রপতির ভাষণের উপর ধন্যবাদ প্রস্তাব উত্থাপনের শেষ দিনে প্রায় এক বছর পর সংসদে বক্তব্য রাখলেন খালেদা জিয়া।

এরপরই নিয়মানুযায়ী ধন্যবাদ প্রস্তাব রাখেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রীর উপস্থিতিতে দীর্ঘ প্রায় দুই ঘন্টার বক্তব্যের শুরুতেই খালেদা জিয়া সরকারের বিরুদ্ধে বিরোধী দলের উপর অত্যাচার-নির্যাতনের অভিযোগ করেন। তিনি বলেন আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি এখন সবচেয়ে খারাপ অবস্থানে রয়েছে। বিরোধী দলীয় নেতা খালেদা জিয়া বলেন, নির্বাচন হতে হলে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনেই হতে হবে। তত্ত্বাবধায়ক সরকার ছাড়া কোন নির্বাচন হবে না বলে সরকারকে সতর্ক করে দেন মিসেস জিয়া।

"হয় নির্দলীয় নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন হবে, নাহলে এদেশে নির্বাচন হবে না।" বলেন খালেদা জিয়া।

মিসেস জিয়ার বক্তব্যের একটি বড় অংশ জুড়েই ছিল অতীতে আওয়ামী লীগ শাসনামলের নানা সমালোচনা। সীমান্তে হত্যা, ট্রানজিট এবং তিস্তার পানিবন্টনের বিষয়ে সরকারের ভূমিকার তীব্র সমালোচনা করেন তিনি।

বিদ্যুত খাতে সরকারের কুইক রেন্টাল পাওয়ার প্লান্ট তৈরিরও তিনি সমালোচনা করেন। এছাড়াও দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণ এবং শেয়ার বাজার ধ্বসে সরকারের ভূমিকার তিনি সমালোচনা করেন। তিনি বিরোধী দলকে পদে পদে বাধা দেয়া হয়েছে বলেও অভিযোগ করেন।

মিসেস জিয়া বলেন, "আমি আশা করি সরকার সমঝোতার পথে সমস্যার সুরাহা করবে। আমাদের আন্দোলনের পথে ঠেলে দেবেন না।"

ছবির কপিরাইট focus bangla
Image caption সংসদে বিরোধী নেত্রীর দেওয়া বক্তব্যের সমালোচনা করেছেন প্রধানমন্ত্রী

খালেদা জিয়ার বক্তব্যের পরেই বক্তব্য রাখেন সংসদ নেতা এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তবে নিজের বক্তব্য দেয়ার পরই অধিবেশন ত্যাগ করেন খালেদা জিয়া।

খালেদা জিয়ার বক্তব্যের সমালোচনা করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, তারা বিরোধী দলে থাকলে অনেক কথাই বলেন কিন্তু ক্ষমতায় গেলে সেগুলো ভুলে যান।

বিদ্যুত, দ্রব্যমূল্যসহ নানা বিষয়ে বিরোধী দলীয় নেতার সমালোচনার জবাবে শেখ হাসিনা দাবি করেন, তার সরকারের আমলে অবস্থা আগের চেয়ে ভালো রয়েছে। তিনি বিএনপি শাসনামলে লুটপাটের পাল্টা অভিযোগ করেন।

"ক্ষমতায় থেকে বিএনপি শুধু লুটপাট করে খেয়ে গেছে। পাঁচটা বছর বিএনপির লুটপাট আর দুই বছর তত্ত্বাবধায়কের আতংক। পাঁচ বছর তারা শুধু দুর্নীতিতেই চ্যাম্পিয়ন ছিল।" বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বিরোধী দলীয় নেতার বিরুদ্ধে অসত্য তথ্য দেয়ারও অভিযোগ করেন শেখ হাসিনা।

তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচনের বিষয়ে সরাসরি কোন মন্তব্য করেননি শেখ হাসিনা। তবে তিনি গত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের কর্মকান্ডের সমালোচনা করেছেন।

দীর্ঘদিন পর সংসদে সরকারি এবং বিরোধী দলীয় নেতার বক্তব্যের মধ্যে দিয়ে শেষ হয় সংসদ অধিবেশন।

আগামী ২৯শে মার্চ পর্যন্ত সংসদ অধিবেশন মুলতবি ঘোষণা করা হয়েছে।