BBC navigation

রায়ের পক্ষে-বিপক্ষে রাজনৈতিক প্রতিক্রিয়া

সর্বশেষ আপডেট সোমবার, 21 জানুয়ারি, 2013 16:59 GMT 22:59 বাংলাদেশ সময়
শেখ হাসিনা

রায় স্বাগত জানিয়েছে আওয়ামীলীগ

যুদ্ধাপরাধের বিচার শুরু ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের অন্যতম প্রধান একটি নির্বাচনী অঙ্গীকার ছিল। সুতরাং ট্রাইব্যুনালের প্রথম এই রায়কে স্বাগত জানিয়েছে আওয়ামী লীগ।

প্রধান বিরোধী দল বিএনপির অনেক নেতাই এ নিয়ে কথাই বলতে রাজী হননি।

তবে বিএনপির একজন কেন্দ্রীয় নেতা বিবিসির কাছে সতর্ক প্রতিক্রিয়া দিয়েছেন। আর এই বিচার প্রক্রিয়াকে প্রত্যাখ্যান করেছে জামায়াতে ইসলামী।

আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে এই বিচার কাজে সমর্থন দেয়ার জন্য দেশবাসীর কাছে তারা কৃতজ্ঞ এবং এই রায়ের মধ্য দিয়ে তাদের দীর্ঘ দিনের প্রত্যাশা পূরণ হতে চলেছে।

ট্রাইব্যুনালের প্রথম রায়ের পর সোমবার সন্ধ্যায় গণভবনে আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী পরিষদের এক সভায় প্রতিক্রিয়া জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, এই বিচার ছিল সরকারের একটি ওয়াদা করেছিল।

তিনি রায়ের দিনটিকে ‘বিশেষ দিন’ হিসেবে বর্ণনা করেন। এর মাধ্যমে জাতির ‘নবযাত্রা’ শুরু হয়েছে বলেও শেখ হাসিনা বলেন।

এদিকে এক সংবাদ সম্মেলনে আওয়ামীলীগ নেতা মাহবুবুল আলম হানিফ বলেন এই রায় দ্রুত কার্যকর করতে হবে।

মানবতাবিরোধী অপরাধের বিচারের প্রথম রায় নিয়ে প্রতিক্রিয়া দিতে অনেকটা সতর্ক অবস্থানে রয়েছেন বিএনপির শীর্ষ পর্যায়ের নেতারা। দলটির অনেক সিনিয়র নেতাই বিষয়টিতে আনুষ্ঠানিকভাবে কিছু বলতে চাননি।

তবে এই ট্রাইব্যুনাল গঠনের পর থেকেই বিএনপি বারবারই দাবি করে আসছে যে তারা যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের বিপক্ষে নয়।

তবে তারা অভিযোগ তুলেছিল সরকার রাজনৈতিক উদ্দেশ্য এই ট্রাইব্যুনাল গঠন করেছে। দলটির তরফ থেকে স্বচ্ছ বিচারের দাবি তোলা হয়েছে।

আজ রায়ের পর বিএনপি’র স্থায়ী কমিটির সদস্য মাহবুবুর রহমান বলেন, “যদি বিচার স্বচ্ছ হয়ে থাকে এবং অভিযুক্ত ব্যক্তি নিজের আত্নপক্ষ সমর্থনের যথেষ্ঠ সুযোগ পেয়ে থাকেন তাহলে আদালত যে রায় দিয়েছে তাতে আদালতের রায়ের প্রতি আমি শ্রদ্ধাশীল।”

জামায়াত ইসলামী

রায় প্রত্যাখ্যান করেছে জামায়াতে ইসলামী

এদিকে বিএনপি’র রাজনৈতিক শরিক দল জামায়াতে ইসলামী প্রথম থেকেই এই ট্রাইব্যুনালের গঠন ও বিচার প্রক্রিয়ার বিরুদ্ধে সরাসরি অবস্থান নিয়েছিল।

দলটির শীর্ষ পর্যায়ের বেশ ক'জন নেতা মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে অভিযুক্ত।

প্রথম রায়ের পর জামায়াতে ইসলামীর মুখপাত্র শফিকুল ইসলাম মাসুদ বলছেন তারা এই রায় প্রত্যাখ্যান করছেন।

দলটির তরফ থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়, সরকার অত্যন্ত তড়িঘড়ি করে এই বিচারকার্য সম্পন্ন করেছে।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, “ মাননীয় আদালত যে রায় প্রদান করেছেন তাতে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যের প্রকাশ ঘটেছে। জাতি রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রনোদিত এই রায় প্রত্যাখ্যান করেছে।”

একই ধরনের খবর

সম্পর্কিত বিষয়

BBC © 2014 বাইরের ইন্টারনেট সাইটের বিষয়বস্তুর জন্য বিবিসি দায়ী নয়

কাসকেডিং স্টাইল শিট (css) ব্যবহার করে এমন একটি ব্রাউজার দিয়ে এই পাতাটি সবচেয়ে ভাল দেখা যাবে৻ আপনার এখনকার ব্রাউজার দিয়ে এই পাতার বিষয়বস্তু আপনি ঠিকই দেখতে পাবেন, তবে সেটা উন্নত মানের হবে না৻ আপনার ব্রাউজারটি আগ্রেড করার কথা বিবেচনা করতে পারেন, কিংবা ব্রাউজারে css চালু কতে পারেন৻