BBC navigation

বাংলাদেশে গণপিটুনির ঘটনায় উদ্বেগ বাড়ছে

সর্বশেষ আপডেট মঙ্গলবার, 22 জানুয়ারি, 2013 15:56 GMT 21:56 বাংলাদেশ সময়

আমিনবাজার হত্যার ঘটনায় বাংলাদেশে তীব্র প্রতিক্রিয়া হয়েছিল

বাংলাদেশে গণপিটুনির বিরুদ্ধে সরকার বা পুলিশ প্রশাসন কোন শক্ত ব্যবস্থা নিচ্ছে না বলেই এধরণের ঘটনা বাড়ছে বলে মন্তব্য করেছেন একজন সমাজবিজ্ঞানী।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞানের অধ্যাপক মাহবুবা নাসরিন বলেন, এর পাশাপাশি আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ওপর আস্থার অভাবেও গণপিটুনির ঘটনা বাড়ছে।

সোমবার রাজধানী ঢাকার অদূরে গাজীপুর সদর উপজেলার কোনাবাড়ী এলাকায় ‘ছেলেধরা’ সন্দেহে অজ্ঞাতনামা দুই ব্যক্তিকে পিটিয়ে হত্যা করে স্থানীয় জনতা।

এর আগে শনিবার একই জেলায় একজন বুদ্ধি প্রতিবন্ধী নারীকেও একই সন্দেহে গণপিটুনি দিয়ে হত্যা করে এলাকার মানুষজন।

তিনদিনের ব্যবধানে তিনটি হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটায় ঐ এলাকায় থমথমে পরিবেশ বিরাজ করছে, আর এলাকাবাসীও চরম ভীতির মধ্যে রয়েছেন ।

পুলিশ বলছে তারা অনেক সময়ই হুজুগে জনতাকে সমালাতে পারেন না, ফলে এরকম ঘটনা ঘটে।

আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর প্রতি আস্থাহীনতার কারণে সাধারণ মানুষ আইন নিজের হাতে তুলে নিচ্ছে কিনা, এ প্রশ্নের জবাবে গাজীপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সঞ্জিত কুমার রায় বলেন, “পুলিশ দায়িত্বে অবহেলা করেনি। তা করলে ক্ষয়ক্ষতির পরিমান আরো বেশি হত।”

উল্লেখ্য বাংলাদেশে বছর দেড়েক আগে ঢাকার কাছে আমিনবাজারে গণপিটুনিতে ছজন ছাত্রের মৃত্যুর এক ঘটনা নিয়ে বড় ধরণের প্রতিবাদ হয়েছিল।

কিন্তু তারপরেও থেকে থেকেই দেশের বিভিন্ন জায়গায় গণপিটুনিতে মানুষ মারার খবর পাওয়া যাচ্ছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞানের অধ্যাপক মাহবুবা নাসরিন বলেন, গণপিটুনির আগের ঘটনাগুলোতে পুলিশ কোন ব্যবস্থা নিতে ব্যর্থ হয়েছে। আর এর পাশাপাশি আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ওপর মানুষের আস্থা কমছে। ফলে গণপিটুনির ঘটনা বাড়ছে।

তিনি বলেন, "সন্দেহভাজন অপরাধীকে পুলিশের হাতে তুলে দেয়ার পরও যখন কোন বিচার হয় না, তখন মানুষ আইন নিজের হাতে তুলে নেয়ার প্রবণতা দেখায়।"

সম্পর্কিত বিষয়

BBC © 2014 বাইরের ইন্টারনেট সাইটের বিষয়বস্তুর জন্য বিবিসি দায়ী নয়

কাসকেডিং স্টাইল শিট (css) ব্যবহার করে এমন একটি ব্রাউজার দিয়ে এই পাতাটি সবচেয়ে ভাল দেখা যাবে৻ আপনার এখনকার ব্রাউজার দিয়ে এই পাতার বিষয়বস্তু আপনি ঠিকই দেখতে পাবেন, তবে সেটা উন্নত মানের হবে না৻ আপনার ব্রাউজারটি আগ্রেড করার কথা বিবেচনা করতে পারেন, কিংবা ব্রাউজারে css চালু কতে পারেন৻