BBC navigation

প্রয়াত অধ্যাপক জামাল নজরুল ইসলাম

সর্বশেষ আপডেট শনিবার, 16 মার্চ, 2013 10:26 GMT 16:26 বাংলাদেশ সময়
bd_jamal_nazrul_islam

অধ্যাপক জামাল নজরুল ইসলাম

বাংলাদেশের বিশিষ্ট পদার্থবিজ্ঞানী ও জ্যোতির্বিদ, অধ্যাপক জামাল নজরুল ইসলাম আজ চট্টগ্রামের এক বেসরকারি হাসপাতালে ৭৪ বছর বয়সে মারা গেছেন। মহাবিশ্বের উদ্ভব ও পরিণতি নিয়ে মৌলিক গবেষণার জন্য তিনি বিখ্যাত ছিলেন।

ড: ইসলাম ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক এমেরিটাস। তা ছাড়া ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের রিসার্চ সেন্টার ফর ম্যাথমেটিকাল এন্ড ফিজিকাল সায়েন্সেসেও তিনি আমৃত্যু গবেষণা করে গেছেন।

জামাল নজরুল ইসলামের জন্ম ১৯৩৯ সালের ২৪শে ফেব্রুয়ারি, ঝিনাইদহতে। তাঁর বাবা তখন ওই শহরের মুন্সেফ ছিলেন, তবে কিছুদিন পরেই তিনি কলকাতায় বদলি হয়ে যান – জামাল নজরুলের স্কুলজীবনও শুরু হয় কলকাতাতেই।

পরে চট্টগ্রামের কলেজিয়েট স্কুল, তদানীন্তন পশ্চিম পাকিস্তানের লরেন্স কলেজ ও কলকাতার সেন্ট জেভিয়ার্স কলেজ থেকে শিক্ষাগ্রহণ করে উচ্চতর শিক্ষার জন্য তিনি কেম্ব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হন।

কেম্ব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১৯৬৪ সালে ফলিত গণিত ও তাত্ত্বিক পদার্থবিজ্ঞানে পিএইচডি ডিগ্রি লাভ করেন জামাল নজরুল ইসলাম।

এরপর যুক্তরাজ্য ও আমেরিকার বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে দীর্ঘদিন তিনি শিক্ষকতা ও গবেষণার সঙ্গে যুক্ত ছিলেন।

কিন্তু ১৯৮৪ সালে তিনি লন্ডনের সিটি ইউনিভার্সিটির চাকরি ছেড়ে বাংলাদেশে ফিরে আসার সিদ্ধান্ত নেন। দেশে ফিরে তিনি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে গণিতের অধ্যাপক হিসেবে যোগ দেন।

মাতৃভূমিতে বা নিজের প্রিয় স্বদেশের মাটিতে বসে বিজ্ঞানচর্চা ছিল তাঁর কাছে অত্যন্ত আবেগের একটা বিষয় – বিদেশে অধ্যয়নরত ছাত্রদেরও পড়াশুনোর শেষে তিনি সব সময় দেশে ফিরে আসার জন্য উৎসাহিত করতেন।

মাতৃভাষায় বিজ্ঞানচর্চায় উৎসাহ দিতে বাংলা ভাষায় বেশ কয়েকটি বিজ্ঞানগ্রন্থও লিখেছিলেন জামাল নজরুল ইসলাম।

তাঁর এই সব প্রকাশিত গ্রন্থের মধ্যে উল্লেখযোগ্য ‘কৃষ্ণ বিবর’, ‘মাতৃভাষা ও বিজ্ঞান চর্চা এবং অন্যান্য প্রবন্ধ’, ‘শিল্প সাহিত্য ও সমাজ’ ইত্যাদি।

সম্পর্কিত বিষয়

BBC © 2014 বাইরের ইন্টারনেট সাইটের বিষয়বস্তুর জন্য বিবিসি দায়ী নয়

কাসকেডিং স্টাইল শিট (css) ব্যবহার করে এমন একটি ব্রাউজার দিয়ে এই পাতাটি সবচেয়ে ভাল দেখা যাবে৻ আপনার এখনকার ব্রাউজার দিয়ে এই পাতার বিষয়বস্তু আপনি ঠিকই দেখতে পাবেন, তবে সেটা উন্নত মানের হবে না৻ আপনার ব্রাউজারটি আগ্রেড করার কথা বিবেচনা করতে পারেন, কিংবা ব্রাউজারে css চালু কতে পারেন৻