BBC navigation

হেফাজতের ১৩দফার প্রতিবাদে ঢাকায় নারী সমাবেশ

সর্বশেষ আপডেট শনিবার, 11 মে, 2013 16:08 GMT 22:08 বাংলাদেশ সময়
নারী সমাবেশ

ঢাকায় প্রতিবাদী নারী সমাবেশ

বাংলাদেশে হেফাজতে ইসলাম নামে একটি মাদ্রাসাভিত্তিক সংগঠনের তের দফা দাবির প্রতিবাদ জানাতে ঢাকায় আজ শনিবার ব্যতিক্রমী একটি নারী সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

নানা রাজনৈতিক এবং সামাজিক সংগঠনসহ বিভিন্ন শ্রেনী পেশার নারীরা এই সমাবেশে অংশ নেন।

এই সমাবেশ থেকে নারীর বিরুদ্ধে সকল ষড়যন্ত্র রুখে দেবার অঙ্গীকার ব্যক্ত করে দশটি দাবি তুলে ধরা হয়।

‘নারীদের কাছ থেকে প্রত্যাশা করা হচ্ছে তারা ঘরে থাকবে, পর্দার মধ্যে থাকবে। দুনিয়া তো অনেক এগিয়ে গেছে, শুধু দাবি করলেই হবে না, সেটা বোধবুদ্ধিসম্পন্নও হতে হবে।’

ঢাকার প্রেসক্লাবের সামনে একটি প্রতিবাদী নারী সমাবেশে যোগ দিতে আসা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রী পূজা সেনগুপ্ত কথাগুলো বলছিলেন।

"আমরা অবাক হয়েছি, যখন তারা বলছে নারী পুরুষ সমানভাবে চলতে পারবে না, চলতে দেয়া হবে না।"

শিরিন আখতার, নির্বাহী পরিচালক, কর্মজীবী নারী

ব্যতিক্রমী এই নারী সমাবেশটি শুরু হয় বিকেল তিনটার দিকে। এর আগে দুপুর থেকেই ঢাকার বিভিন্ন অংশ থেকে ছোট-বড় মিছিল নিয়ে আসছিলেন নারীরা। শ্লোগানে তারা বলছিলেন, ‘হেফাজতের তের দফা, মানি না মানব না’।

একটি ট্রাকের উপর তৈরি অস্থায়ী মঞ্চে বিভিন্ন রাজনৈতিক, নাগরিক ও সামাজিক সংগঠনের নেতারা যে বক্তব্য দিচ্ছিলেন, সেখান থেকেও উঠে আসছিল, হেফাজতে ইসলামের নারী বিষয়ক ধারাগুলোর প্রতিবাদ।

বেসরকারি সংস্থা কর্মজীবী নারীর নির্বাহী পরিচালক শিরিন আখতার তাঁর বক্তব্যে বলেন,

‘আমরা অবাক হয়েছি, যখন তারা বলছে নারী পুরুষ সমানভাবে চলতে পারবে না, চলতে দেয়া হবে না। আমি বিনয়ের সঙ্গে প্রশ্ন করতে চাই, পবিত্র মক্কা নগরীতে নারী-পুরুষ যখন একসঙ্গে হজ্ব পালন করতে যায়, তখন কি বলবেন শফি হুজুর?’

সমাবেশে বিভিন্ন সামাজিক, রাজনৈতিক ও নাগরিক সংগঠন, বেসরকারি সংস্থা এবং বিভিন্ন পেশাজীবী সম্প্রদায়ের প্রতিনিধিরা যোগ দেন। বিভিন্ন সংগঠন ও প্রতিষ্ঠানের পক্ষে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক পুরুষ সদস্যরাও এতে সংহতি প্রকাশ করেন।

দশ দফা দাবি


সমাবেশ থেকে একটি ঘোষণাপত্র পাঠ করা হয়, যেখানে দশটি সুনির্দিষ্ট দাবি তুলে ধরা হয়।

নারী সমাবেশ

ছোট-বড় মিছিল নিয়ে সমাবেশে যোগ দেন নানাস্তরের নারীরা

এর প্রথম দফাটিতে বলা হচ্ছে, বাংলাদেশের স্বাধীনতা, বাহাত্তরের সংবিধান ও নারী অধিকার বিরোধী অপতৎপরতা বন্ধ করতে হবে। দাবি করা হয়, সকল সাম্প্রদায়িক অপচেষ্টা ও ধর্মভিত্তিক রাজনীতি বন্ধ করার এবং নারী বিরোধী সকল মহলের বিরুদ্ধে সরকারকে সুস্পষ্ট অবস্থান নেবার।

এছাড়াও ঘোষণাপত্রে নারী নীতির বাস্তবায়ন, বাহাত্তরের সংবিধান পুনঃপ্রতিষ্ঠা, যুদ্ধাপরাধীদের সর্বোচ্চ শাস্তি প্রদান ও বাস্তবায়ন, সাভারে ভবন ধসের জন্য দায়ীদের শাস্তি প্রদান ও ক্ষতিগ্রস্তদের দ্রুত ক্ষতিপূরণ প্রদান, পোশাক শ্রমিকদের নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণ, আদীবাসী-সংখ্যালঘুদের উপর নির্যাতন বন্ধ এবং নারীর উপর সকল সহিংসতা বন্ধ করার দাবি তুলে ধরা হয়।

হেফাজতের তের দফা

হেফাজতে ইসলামের যে তের দফা দাবির বিরুদ্ধে নারীরা এই সমাবেশ করে তাতে অন্তত দুটি দফা বাংলাদেশের নারী স্বাধীনতা ও নারীদের অগ্রযাত্রার বিরুদ্ধে যায় বলে উল্লেখ করেছেন সমাবেশে যোগ দেয়া নারীরা।

এর মধ্যে চতুর্থ দফায় প্রকাশ্যে নারী-পুরুষের অবাধ বিচরণ নিষিদ্ধ করবার কথা বলা হয়েছে।

পঞ্চম দফায় নারী নীতি বাতিলের উল্লেখ রয়েছে।

একই ধরনের খবর

সম্পর্কিত বিষয়

BBC © 2014 বাইরের ইন্টারনেট সাইটের বিষয়বস্তুর জন্য বিবিসি দায়ী নয়

কাসকেডিং স্টাইল শিট (css) ব্যবহার করে এমন একটি ব্রাউজার দিয়ে এই পাতাটি সবচেয়ে ভাল দেখা যাবে৻ আপনার এখনকার ব্রাউজার দিয়ে এই পাতার বিষয়বস্তু আপনি ঠিকই দেখতে পাবেন, তবে সেটা উন্নত মানের হবে না৻ আপনার ব্রাউজারটি আগ্রেড করার কথা বিবেচনা করতে পারেন, কিংবা ব্রাউজারে css চালু কতে পারেন৻