পঞ্চনদের তীরে পাঞ্জাব প্রদেশ

পঞ্চনদের তীরে পাঞ্জাব প্রদেশ

ইসলামাবাদ থেকে প্রায় ১০০ কিলোমিটার দূরে ঝিলাম নদী। পাঞ্জাবের পাঁচটি নদীর মধ্যে সবচেয়ে দীর্ঘ এবং প্রদেশের সবচেয়ে পশ্চিম দিয়ে প্রবাহিত। এই নদীর জন্ম নিয়ে আছে নানা গল্প। এর মধ্যে জনপ্রিয় কাহিনি হল পারস্যের রাজা দারিয়াস দ্য গ্রেট এই নদীর তীরে পৌঁছে নরম মাটিতে তাঁর পতাকা পুঁতেছিলেন। জা-ই-আলম্ শব্দের অর্থ পতাকার ভূমি- তারই অপভ্রংশ হয়ে হয়েছে 'ঝিলাম'।
ছবির ক্যাপশান,

ইসলামাবাদ থেকে প্রায় ১০০ কিলোমিটার দূরে ঝিলাম নদী। পাঞ্জাবের পাঁচটি নদীর মধ্যে সবচেয়ে দীর্ঘ এবং প্রদেশের সবচেয়ে পশ্চিম দিয়ে প্রবাহিত। এই নদীর জন্ম নিয়ে আছে নানা গল্প। এর মধ্যে জনপ্রিয় কাহিনি হল পারস্যের রাজা দারিয়াস দ্য গ্রেট এই নদীর তীরে পৌঁছে নরম মাটিতে তাঁর পতাকা পুঁতেছিলেন। জা-ই-আলম্ শব্দের অর্থ পতাকার ভূমি- তারই অপভ্রংশ হয়ে হয়েছে 'ঝিলাম'।

ছবির ক্যাপশান,

চেনাব নদীকে নিয়ে আছে নানা রোমান্টিক কাহিনি। গল্প আছে লোকগাঁথার জনপ্রিয় নায়িকা সাস্‌সি এই নদী পার হত মাটির এক ঘড়ায় ভেসে। এক ঝড়ের রাতে যখন সে নদী পার হয়ে যাচ্ছে তার প্রেমিকের সঙ্গে দেখা করতে, তখন ওই ঘড়া ভেঙে যায়- তৈরি হয় বেদনার বহু সঙ্গীত।

ছবির ক্যাপশান,

লাহোরের কাছে নদী রাভি। এরকম একটা নৌকা ভাড়া করে আপনি চারপাশের দ্রষ্টব্য দেখতে পারেন।

ছবির ক্যাপশান,

পাঞ্জাবের মধ্যাঞ্চলে পাত্তোকির কাছ দিয়ে বাষ্প-চালিত ট্রেন যখন যায়, তখন বন্ধ হয়ে থাকে সব যানবাহন চলাচল।

ছবির ক্যাপশান,

ব্রিটিশ ঔপনিবেশিক শাসনামলে পাঞ্জাবের মধ্যে দিয়ে এঁকেবেঁকে তৈরি হয়েছিল বিশাল খালবিল দিয়ে যোগাযোগের মাধ্যম। এই অঞ্চল তখন ছিল 'উপমহাদেশের শস্যভান্ডার'।

ছবির ক্যাপশান,

পাঞ্জাবের প্রত্যন্ত অঞ্চলে দ্রুত আমদানি হচ্ছে আধুনিক প্রযুক্তি। কৃষকদের মধ্যে ক্রমেই বাড়ছে মোবাইল ফোনের ব্যবহার।

ছবির ক্যাপশান,

পাঞ্জাবের এই অঞ্চলে প্রধান খাদ্যশস্য হচ্ছে চাল।

ছবির ক্যাপশান,

শাত্‌লুজ নদীতে গা-ভাসানো জলহস্তীর পাল। এই নদীর উৎস কাশ্মীরে এই শাত্‌লুজ গিয়ে মিলেছে চেনাব নদীতে। আরও কিছুদূরে মিলেছে ঝিলাম আর রাভি এবং যাত্রাপথের শেষে গিয়ে সবাই মিলেছে পঞ্চনদের মূল প্রবাহ বিশাল সিন্ধুনদে। পাঞ্জাবের পাঁচটি নদীর মধ্যে সিন্ধুনদকে ধরা হয় না।

ছবির ক্যাপশান,

হেড সুলাইমাঙ্কির কাছে শাত্‌লুজ নদী থেকে তাজা মাছ ধরে রান্না করা হচ্ছে।

ছবির ক্যাপশান,

নদনদী ও খালবিলের আধিক্যের কারণে এই এলাকায় রয়েছে প্রচুর জলচর পাখি।

ছবির ক্যাপশান,

সন্ধ্যা নামছে। পাখিরাও নীড়ে ফিরছে।

ছবির ক্যাপশান,

কিন্তু একা এই পাখি সূর্যাস্তের অপরূপ সৌন্দর্য্যে মোহিত হয়ে দলছাড়া হয়ে পড়েছে।

ছবির ক্যাপশান,

পঞ্চনদের শেষ নদী বিয়াসের চর। এই নদী পাকিস্তানের ভেতর দিয়ে প্রবাহিত হয়নি। চেনাব নদীর সঙ্গে বিয়াস মিলেছে সীমান্তের অপর পারে ভারতের অংশে।