তীব্র গরমের মধ্যে ঢাকার এসি-র বাজার খালি

dhaka_ac_heat ছবির কপিরাইট unk

গত বেশ কিছুদিন বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকায় বাসিন্দাদের আলোচনার প্রধান বিষয় দু:সহ গরম।

আবহাওয়া অফিস বলছে, গত ৫০ বছরে ঢাকায় সবচাইতে বেশি গরম পড়েছে এবার।

আর তাতেই হঠাৎ করে বেড়ে গেছে শীতাতপ নিয়ন্ত্রণের যন্ত্র বা এসি বিক্রি।

বিক্রেতারা বলছেন, এসির চাহিদা এতই বেশি যে তারা সরবরাহ করতে পারছেন না।

কিছু দোকান একবারেই খালি। বিক্রেতারা বলছেন, এক বা দেড়টনের এসি - যেটা সাধারণ মাপের ঘরের জন দরকার - তা বাজারে প্রায় নেই। পাওয়া যাচ্ছে শুধু দুই টনের এসি।

ছবির কপিরাইট unk

ঢাকার একটি বিপণী বিতানে এসি কিনবেন বলে এসেছেন ব্যবসায়ী মোহাম্মদ হানিফ। তিনি বলছেন, বেশি চাহিদার কারণে দামও বাড়িয়ে দিয়েছেন বিক্রেতারা।

"আমি অনেক ঘুরেছি মার্কেটে। বাজারে এসি নেই। দেড়টনের এসি - যার দাম ৫২ হাজার টাকা ছিল - তা ৬০ হাজার টাকা দিয়ে কিনতে হচ্ছে।"

এসি কেনার পর তা লাগিয়ে দেবার লোকও পাওয়া যাচ্ছে না।

ইমাম হোসেন নামে এক বিক্রেতা জানালেন যে পরিমাণ চাহিদা, সে পরিমাণ ফিটিংএর লোক নেই। দিনে ১০টার বেশি এসি ফিটিং করা সম্ভব হচ্ছে না।

একটি স্কুলের কর্মকর্তা চৌধুরী ওবায়দুল হক বলছেন, পুরো এসিতে আর ঘর ঠান্ডা হচ্ছে না। কিন্তু নতুন এসি লাগাতে তাদের বেশ কয়েকদিন অপেক্ষা করতে হচ্ছে।

অন্যদিকে এসির ঠান্ডা হাওয়া উপভোগ করতে বাড়ছে বিদ্যুতের ব্যবহার।

ফলে এই গরমে তা আবার বাড়িয়ে দিচ্ছে লোডশেডিং।