নারায়ণগঞ্জে মানুষের মধ্যে তীব্র ক্ষোভ ও আতঙ্ক

narayangunj victim family ছবির কপিরাইট focus bangla
Image caption নারায়ণগঞ্জে অপহৃতদের মৃতদেহ উদ্ধারের পর স্বজনদের আজাহারি

নারায়ণগঞ্জে শীতলক্ষ্যা নদীতে ভেসে ওঠা মৃতদেহগুলি অপহৃতদের এটা নিশ্চিত হওয়ার পর, শহরে সাধারণ মানুষের মধ্যে তীব্র ক্ষোভ ও আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।

অনেকেই অভিযোগ করছেন মূলত আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ব্যর্থতার কারণেই নারায়ণগঞ্জ ক্রমাগত গুম-খুনের নগরী হয়ে উঠছে।

জনরোষের মুখে গত দুদিনে নারায়নগঞ্জের পুলিশ প্রধান এবং জেলা প্রশাসককেও প্রত্যাহার করা হয়েছে।

শীতলক্ষ্যা নদীতে কয়েকটি মৃতদেহ ভেসে ওঠার খবরে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয় নারায়ণগঞ্জ শহরে।

মৃতদেহগুলোর মধ্যে একটি সিটি কর্পোরেশনের কাউন্সিলর নজরুল ইসলামের এটা শনাক্ত করার পর তার পরিবারের সদস্য এবং রাজনৈতিক সহকর্মীরা যান ঘটনাস্থলে।

নজরুল ইসলামের ঘনিষ্ঠ একজন রাজনৈতিক কর্মী তপন মাহমুদ বলছেন তারা আশা করেছিলেন নজরুল ইসলামকে জীবিত অবস্থাতেই ফিরে পাবেন তারা।

“আমরা আশা করেছিলাম ‘বেলার’ প্রধানের স্বামীকে কিছুদিন আগে যেভাবে পাওয়া গিয়েছে সেভাবে ভাইকেও পাওয়া যাবে। তিন দিন ধরে আমাদের কোন ঘুম নেই, আমরা অপেক্ষা করছিলাম ভাইকে জীবিত পাব। বিশ্বাস করেন এখানে আমাদের কারও জীবনের নিরাপত্তা নেই।”

গত রোববার প্রায় একই সময়ে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের এই কাউন্সিলর, একজন আইনজীবীসহ সাত জনকে অপহরণ করা হয়। তাদের উদ্ধারের দাবিতে মঙ্গলবার ঢাকা- চট্টগ্রাম মহাসড়কে বিক্ষোভ করে কাউন্সিলরের সর্মথকরা।

একই দাবিতে আদালতে বিক্ষোভ করেন আইনজীবীরা।

ছবির কপিরাইট focus bangla
Image caption নিহতের স্বজন

স্থানীয় একজন আইনজীবী হাসান ফেরদৌস বলছিলেন একই সময়ে আদালত প্রাঙ্গণ থেকে সাতজনকে অপহরণ করার ঘটনায় চরম উৎকন্ঠা সৃষ্টি হয়েছে মানুষের মধ্যে।

“যারা সন্ত্রাসী তারা নারায়ণগঞ্জকে অভয়ারণ্য হিসেবে বেছে নিয়েছে। যদি আইন শৃঙ্খলা বাহিনী শক্তিশালী থাকতো তাহলে নারায়ণগঞ্জের এই অবস্থা হত না।”

রাজধানী ঢাকার খুব কাছেই এই নারায়ণগঞ্জ শহরে গত কয়েক বছরে বেশ কিছু অপরাধমূলক ঘটনা একের পর এক ঘটে যাওয়ায় সেখানকার মানুষের মধ্যে আতঙ্কের সাথে সাথে দেখা দিয়েছে ক্ষোভ।

তারা বলছেন মূলত আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর ব্যর্থতার কারণেই নারায়ণগঞ্জ ক্রমাগত গুম-খুনের নগরী হয়ে উঠছে। বলছিলেন শহরের নাগরিক কমিটির সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান।

“আমরা যারা নারায়ণগঞ্জ জেলায় বাস করি তাদের জীবনের কোন নিরাপত্তা নেই। আমরা বলতে চাই প্রধানমন্ত্রী এখন যেহেতু রয়েছেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে, সেহেতু তাঁর কাজ হবে জনগনের জীবন যাপন নিশ্চিত করা, তিনি সেটা করছেন না বলেই আমাদের মনে হয়।”

নারায়ণগঞ্জে তানভীর মুহাম্মদ ত্বকী হত্যাসহ কয়েকটি গুম ও খুনের কথা উল্লেখ করে সেখানাকার বাসিন্দারা বলছেন এর একটিরও বিচার সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন না হওয়াতে অপরাধের মাত্রা দিন দিন বেড়েই চলেছে বলে তারা মনে করছেন।