পাঁচ সচিবের মুক্তিযোদ্ধা সনদ বাতিল

মুক্তিযোদ্ধা সনদের নমুনা
Image caption মুক্তিযোদ্ধা সনদের নমুনা

মিথ্যা তথ্য ব্যবহার করে মুক্তিযোদ্ধা সনদ নেওয়ার অভিযোগ বাংলাদেশের সরকার চারজন সচিব এবং একজন যুগ্মসচিবের বিরুদ্ধে আইনগত পদক্ষেপ নেয়ার কথা বিবেচনা করছে।

কর্মকর্তারা বলছেন, এই সনদ ব্যবহার করে চাকরির মেয়াদ বাড়ানোর অভিযোগ রয়েছে অভিযুক্ত কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে।

তারা বলেন, সরকারি কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেয়ার এখতিয়ার শুধু জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের। এবং তারাই এখন আইনানুগ ব্যবস্থা নেবে।

কর্মকর্তারা বলছেন, অভিযুক্ত পাঁচ কর্মকর্তারা হলেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সাবেক সচিব ও বর্তমানে ওএসডি কেএইচ মাসুদ সিদ্দিকী ও একই মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম-সচিব আবুল কাসেম তালুকদার, স্বাস্থ্য সচিব নিয়াজ উদ্দিন মিয়া, সরকারি কর্ম কমিশন পিএসসি-র সচিব একেএম আমির হোসেন এবং প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সাবেক সচিব মোল্লা ওয়াহিদুজ্জামান, যিনি এখন বেসরকারিকরণ কমিশনের চেয়ারম্যান পদে দায়িত্ব পালন করছেন।

বিবিসির তরফ থেকে স্বাস্থ্য সচিবের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে এই অভিযোগের বিষয়ে তিনি এখনই কোন মন্তব্য করতে রাজি হননি।

এর আগে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) এক তদন্তের পর অভিযোগ করে যে এই কর্মকর্তারা অবৈধ প্রক্রিয়ায় মুক্তিযোদ্ধার সনদ নিয়েছেন।

এই কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে দুদক কার্যকর পদক্ষেপ নেয়ার সুপারিশ করেছে।