হত্যার পর হাসপাতালে লাশ ফেলে চম্পট

Image caption নীলফামারীর ডিমলা থানায় স্ত্রী হত্যার এ ঘটনাটি ঘটে

স্ত্রীকে হত্যার পর হাসপাতালে তার লাশ ফেলে পালিয়ে গেলেন স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকেরা।

পরে পুলিশ হাসপাতাল থেকে লাশটি উদ্ধার করে। আজ ময়নাতদন্তের জন্য লাশ মর্গে পাঠানো হয়েছে।

নীলফামারীর ডিমলায় মঙ্গলবার এ ঘটনা ঘটে।

ডিমলা থানার ওসি শওকত আলী বিবিসিকে জানান, ডিমলা উপজেলার পশ্চিম ছাতনাই ইউনিয়নের বাকছেদ আলীর ছেলে রবিউল ইসলামের সাথে বিয়ে হয় আনোয়ারা বেগমের।

মঙ্গলবার পারিবারিক কলহের জেরে আনোয়ারার উপর শারীরিক নির্যাতন করা হয়।

এরপর ডিমলা হাসপাতালে নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।

এ অবস্থায় তার লাশ হাসপাতালে ফেলে রেখে পালিয়ে যায় আনোয়ারা বেগমের স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকজন।

এ ব্যাপারে আনোয়ারা বেগমের স্বামী ও শ্বশুরসহ চারজনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে জানান ওসি শওকত আলী।

চিঠিপত্র: সম্পাদকের উত্তর