বাংলাদেশের কুমিল্লায় বাসে হামলার মামলায় খালেদা অভিযুক্ত , ঢাকায় 'বন্দুকযুদ্ধে' নিহত ২

Image caption সোমবার মধ্যরাতে পেট্রোল বোমা হামলায় নিহত বাসযাত্রীদের মৃতদেহের সারি। ফটো- ফোকাস বাংলা

বাংলাদেশের কুমিল্লায় যাত্রীবাহী বাসে আগুন দিয়ে সাত জনকে পুড়িয়ে মারার ঘটনায় বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়াকে 'হুকুমের আসামী' করে দুটি মামলা করেছে পুলিশ।

জামায়াতের কেন্দ্রীয় নেতা ও কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের সাবেক সংসদ সদস্য সৈয়দ আব্দুল্লাহ মোহাম্মদ তাহের সহ ৫৬জনকে এ দুটি মামলায় আসামী করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন কুমিল্লার পুলিশ সুপার।

আজ পুলিশের একজন এসআই বাদী হয়ে এ ঘটনায় দুটি মামলা দায়ের করে যাতে বিএনপি চেয়ারপার্সনকে হুকুমের আসামী করা হয়েছে বলে বিবিসি বাংলাকে নিশ্চিত করেছেন কুমিল্লার পুলিশ সুপার টুটুল চক্রবর্তী।

মঙ্গলবার কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে ঢাকা চট্টগ্রাম মহাসড়কে একটি যাত্রীবাহী বাসে পেট্রোল বোমা হামলায় সাতজন পুড়ে মারা গিয়েছিলো।

এ ঘটনায় আরও অন্তত ১৫ জন অগ্নিদগ্ধ হয়েছেন।

এদিকে ঢাকায় বিএনপির দুজন সাবেক সংসদ সদস্যকে আটক করেছে পুলিশ।

ছবির কপিরাইট Getty
Image caption খালেদা জিয়া গত ৫ই জানুয়ারি লাগাতার অবরোধ কর্মসূচি ঘোষনা করেছিলেন।

তারা হলেন আশরাফ উদ্দিন নিজান ও নাজিম উদ্দিন।

মতিঝিলে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের অবস্থান কর্মসূচিতে থাকা দলটির সভাপতি কাদের সিদ্দিকীর সাথে সাক্ষাতের পর তাদের আটক করা হয়।

ওদিকে ঢাকার যাত্রাবাড়ীতে ‘অবরোধে নাশকতার সাথে জড়িত’ এমন দুজন ব্যক্তি র‍্যাবের সঙ্গে 'বন্দুকযুদ্ধে' নিহত হয়েছে।

ঘটনাস্থল থেকে আগ্নেয়াস্ত্র ও পেট্রোল বোমা উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন র‍্যাব কর্মকর্তারা।

র‍্যাবের একটি গাড়ী লক্ষ্য করে পেট্রোল বোমা ছোঁড়ার পর তাদের লক্ষ্য করে পাল্টা গুলি ছুড়ে র‍্যাব।

পরে ওই দুজনকে আহত অবস্থায় হাসপাতালে নেয়ার পর ডাক্তার মৃত ঘোষণা করেন বলে জানিয়েছেন র‍্যাবের মিডিয়া উইং।

ওদিকে পুলিশ দাবি করেছে শাহজাহানপুরে বোমা বিস্ফোরণের পর পালিয়ে যাওয়ার সময় পুলিশের গুলিতে মোহাম্মদ কাওসার নামে এক ব্যক্তি আহত হয়েছে।