পররাষ্ট্র মন্ত্রীকে উৎফুল্ল থাকার পরামর্শ

khamenei ছবির কপিরাইট khamenei.ir
Image caption ইরানের শীর্ষ নেতা আয়াতাল্লোহ আলী খামেনেই

ইরানের শীর্ষ ধর্মীয় নেতা আয়াতোল্লাহ আলী খামেনেই পররাষ্ট্রমন্ত্রী জাভেদ জারিফকে পরামর্শ দিয়েছেন পরমাণু কর্মসূচি নিয়ে পশ্চিমাদের সাথে মীমাংসা বৈঠকে তিনি যেন জোর গলায় কথা না বলেন।

মন্ত্রী স্বীকার করেন হাসিমুখে যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের উপদেশ দেয়া হয়েছে তাকে।

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরির সাথে সাম্প্রতিক কিছু বৈঠকে মন্ত্রী জারিফ একেকসময় এতটাই উত্তেজিত পড়ছিলেন যে তার জোর গলা শুনে উদ্বিগ্ন নিরাপত্তা রক্ষীরা উঁকিঝুকি পর্যন্ত দিয়েছে।

ইরানের ইসলামিক রিপাবলিক নিউজ এজেন্সি লিখছে, এসব কথা সম্ভবত আয়াতোল্লাহ খামেনেই শুনেছেন।

সম্প্রতি একদল ছাত্রের সাথে খোলামেলা কথোপকথনে ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী তার সাথে আয়াতোল্লার বৈঠকের কথা তুলে ধরেন।

"তিনি (খামেনেই) আমাকে বললেন, তুমি বৈঠকে বসে কেন চিৎকার করো? যা বলার হাসিমুখে বলবে...যা বলার তা যুক্তি দিয়ে বলো, খামাখা তর্ক করবে না।"

গত জানুয়ারিতে ইরানের কট্টরপন্থীরা মি জারিফের সমালোচনা করেন যে তিনি তার মার্কিনী প্রতিপক্ষের সাথে খুব বেশি বন্ধু-সুলভ আচরণ করছেন।

জেনিভাতে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সাথে তার হেটে বেড়ানোর একটি ছবি প্রকাশিত হলে, সে ব্যাপারে সংসদে ব্যাখ্যা দেওয়ার দাবি তোলেন অনেক এমপি।

তবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী সহ মীমাংসা আলোচকদের এভাবে প্রকাশ্যে সমালোচনা করার নিন্দা করেন স্বয়ং প্রেসিডেন্ট রুহানি। প্রেসিডেন্ট বলেন, এ ধরনের সমালোচনা জাতীয় স্বার্থের বিরোধী।

ইরান তাদের পারমানবিক কর্মসূচি নিয়ে ছটি পশ্চিমা দেশের সাথে আপোষ মীমাংসা করছে। এই প্রক্রিয়া নভেম্বর শেষ হওয়ার কথা থাকলেও, তা দীর্ঘায়িত হচ্ছে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী জাভেদ জারিফ জটিল এই মীমাংসায় ইরানের নেতৃত্ব দিচ্ছেন।

চিঠিপত্র: সম্পাদকের উত্তর