আইএসে যোগ দিতে ব্রিটিশ-বাংলাদেশী তরুণী সিরিয়ায়

gatwick girls syria ছবির কপিরাইট MP
Image caption গ্যাটউইক বিমানবন্দরে তিন স্কুলছাত্রী

পূর্ব লন্ডনের বাংলাদেশী-বংশোদ্ভূত কয়েকজন তরুণী ইসলামিক স্টেটের সাথে যোগ দিতে সিরিয়া চলে গেছে, এ খবর বেরুনোর পর গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন।

গত মঙ্গলবার ১৫-১৬ বছরের তিন তরুণী লন্ডনের গ্যাটউইক বিমানবন্দর থেকে তুরস্কের ইস্তাম্বুলগামী বিমানে ওঠে। ধারণা করা হচ্ছে তাদের গন্তব্য হচ্ছে সিরিয়া।

তারা পূর্ব লন্ডনের বাংলাদেশী-অধ্যুষিত বেথনাল গ্রীন একাডেমি নামে একটি স্কুলের ছাত্রী। এই একই স্কুল থেকে ডিসেম্বর মাসে তাদের বান্ধবী আরো একটি মেয়ে সিরিয়া চলে গেছে বলে খবরে জানা যায়।

Image caption খাদিজা সুলতানা

এদের মধ্যে অন্তত দুজন বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত এবং লন্ডনী উচ্চারণে ইংরেজি ও বাংলা বলেন বলে পুলিশের বর্ণনায় জানানো হয়েছে। একজনের নাম শামিমা বেগম (১৫), অপর জনের নাম খাদিজা সুলতানা (১৬)।

তৃতীয় আরেকটি মেয়ের নাম তার পরিবারের অনুরোধে প্রকাশ করা হয় নি। তিনি ইংরেজি ও ইথিওপিয়ান 'আমারিক' ভাষা বলেন।

বিমানবন্দরের সিসিটিভি ফুটেজে তাদের ছবি ধরা পড়েছে।

ছবির কপিরাইট bbc
Image caption শামিমা বেগম

এরা যাবার আগে পরিবারকে বলেছিলেন, তারা একদিনের জন্য কোথাও বেড়াতে যাচ্ছেন।

তারা সবাই ভালো ছাত্রী বলে পরিচিত, জানিয়েছেন পূর্ব লন্ডন মসজিদের একজন মুখপাত্র।

স্থানীয় মুসলিম সমাজের নেতারা এ ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন বেথনাল গ্রীনের এমপি রুশনারা আলিও।

প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন এতে উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, বোঝা যাচ্ছে যে ইসলামী চরমপন্থী সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকেও ভুমিকা রাখতে হবে - যাতে মানুষের মনকে এই অশুভ শক্তি বিষাক্ত করতে না পারে।

চিঠিপত্র: সম্পাদকের উত্তর