অবরোধের মধ্যে বাংলাদেশে শহীদ দিবস পালন

ছবির কপিরাইট Focus Bangla
Image caption প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ঢাকার শহীদ মিনারে স্বাগত জানাচ্ছেন।

বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে ১৯৫২ সালের রাষ্ট্রভাষা আন্দোলনে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে শহীদ দিবস পালন করা হচ্ছে।

বিএনপি-নেতৃত্বাধীন বিরোধী জোটের তাদের লাগাতার অবরোধ কর্মসূচী অব্যাহত রেখেছে।

তবে দিনটি নির্বিঘ্নে পালনের জন্য শুক্রবার সন্ধ্যা থেকেই কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারসহ পুরো এলাকায় সর্বস্তরের জনসাধারণের প্রবেশে কড়াকড়ি আরোপ করা হয়।

এবার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন দু’জন বিদেশী অতিথি, ব্রিটিশ পার্লামেন্টের উচ্চ কক্ষ হাউস অব লর্ডসের স্পিকার ব্যারোনেস ডি সুজা এবং পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি।

দিনের প্রথম প্রহরে শহীদ মিনারে ফুল দেন বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, তবে বিরোধী দল বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া প্রথমবার শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা জানাতে আসেননি।

ছবির কপিরাইট Focus Bangla
Image caption অনুপস্থিত চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার পক্ষে বিএনপির নেতা-কর্মীরা শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা জানান।

খালেদা জিয়ার পক্ষ হয়ে বিএনপি-র নেতা-কর্মীরা শহীদ মিনারে ফুল দেন।

এই দিনটিকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে পালন করা হচ্ছে।

রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বদের শ্রদ্ধা নিবেদনের পরপরই শহীদ মিনারে শুরু হয় বিভিন্ন শ্রেণীর মানুষের শ্রদ্ধা নিবেদন।

১৯৫২ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি বাংলাকে রাষ্ট্রভাষা করার দাবিতে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের মিছিলে পুলিশের গুলিতে প্রাণ হারান সালাম, রফিক, বরকত, শফিউরসহ আরও অনেকে।

১৯৯৯ সালের ১৭ নভেম্বর ইউনেস্কোর এক ঘোষণায় ২১ ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসাবে স্বীকৃতি পায়।

ভাষা শহীদদের স্মরণে এদিন জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রয়েছে।

চিঠিপত্র: সম্পাদকের উত্তর