পূর্ব ইউক্রেনে অস্ত্র প্রত্যাহারে রাজী বিদ্রোহীরা

ছবির কপিরাইট Reuters
Image caption কর্মকর্তারা বলছেন, চব্বিশ ঘণ্টায় রুশপন্হী বিদ্রোহীরা মারিওপোলসহ বেশ কিছু এলাকায় ইউক্রেনীয় বাহিনীর উপর গোলা নিক্ষেপ করেছে।

পূর্ব ইউক্রেনে অস্ত্র বিরতি বাস্তবায়নের সঙ্গে সম্পৃক্ত একজন রুশ জেনারেল বলছেন, লুহানস্ক এবং দোনেতস্কে রুশপন্হী বিচ্ছিন্নতাবাদী নেতারা ভারী অস্ত্র প্রত্যাহার চুক্তিতে সই করেছেন, যা রোববার থেকে কার্যকর করা শুরু হবে।

মিন্স্ক শান্তি চুক্তির একটি প্রধান অংশই ছিল কামান প্রত্যাহারের বিষয়টি।

যা গত মঙ্গলবার থেকেই শুরু হবার কথা থাকলেও কিছু কিছু এলাকায় উভয়পক্ষের মধ্যে লড়াই চলতে থাকায় তা বাস্তবায়নে বিলম্ব হচ্ছিল।

রুশ জেনারেল আলেকজান্ডার লেন্ত্সভ বলেছেন, পূর্ব ইউক্রেনের লুহানস্ক এবং দোনেতস্কে রুশপন্হী বিচ্ছিন্নতাবাদী নেতারা একটি অস্ত্র প্রত্যাহার চুক্তিতে সই করেছেন।

তবে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি ইউরোপের মধ্যস্থতায় করা শান্তিচুক্তিকে ভঙ্গ করে ইউক্রেনে অস্থিরতা সৃষ্টির জন্য রাশিয়াকে দায়ী করছেন।

লন্ডনে বৃটেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ফিলিপ হ্যামন্ডের সঙ্গে আলোচনার সময় মিস্টার কেরি বলেন, পূর্ব ইউক্রেনের বিচ্ছিন্নতাবাদীদের সাথে রাশিয়ার সম্পৃক্ততা স্পষ্ট বলে উল্লেখ করেন।

মিস্টার কেরি এসময় আরও বলেন, যুক্তরাষ্ট্র তার মিত্রদের সাথে রাশিয়ার বিরুদ্ধে আরও ব্যবস্থা নেয়ার ব্যাপারটি আলোচনা করবে।

এদিকে ইউক্রেন সরকার জানিয়েছে, অস্ত্র বিরতি চুক্তি সম্পর্কে অবহিত আছেন তারা।

ইউক্রেনের নিরাপত্তা বিষয়ক মুখপাত্র কর্নেল আন্দ্রেই লিসেংকো জানান, চুক্তি সত্ত্বেও গত চব্বিশ ঘণ্টায় রুশপন্হী বিদ্রোহীরা গুরুত্বপূর্ণ শহর মারিওপোলসহ বেশ কিছু এলাকায় ইউক্রেনীয় বাহিনীর উপর গোলা নিক্ষেপ করেছে।

এর আগে অবশ্য ইউক্রেনীয় সেনাবাহিনী ও বিদ্রোহীদের মধ্যে বেশকিছু বন্দী বিনিময় হয়।

চিঠিপত্র: সম্পাদকের উত্তর