জামিনে মুক্তি পেয়েছেন আবদুল লতিফ সিদ্দিকী

ছবির কপিরাইট focus bangla
Image caption আবদুল লতিফ সিদ্দিকীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার দাবি উঠেছিল ইসলাম-পন্থী কিছু সংগঠনের পক্ষ থেকে

বাংলাদেশের একজন সাবেক মন্ত্রী ও জেষ্ঠ রাজনীতিবিদ আবদুল লতিফ সিদ্দিকী জামিনে মুক্তি পেয়েছেন।

ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দেওয়ার অভিযোগে তাঁর বিরুদ্ধে দেশের বিভিন্ন জায়গায় মামলা হয়েছিল এবং এসব মামলার বেশ কয়েকটিতে তাঁর বিরুদ্ধে আদালত থেকে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারী করা হয়।

গত বছরের ২৯শে সেপ্টেম্বর হজ ও তাবলিগ জামায়াত নিয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে একটি সভায় বেশ কিছু মন্তব্য করেন মি. সিদ্দিকী।

তৎকালীন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রীর এসব মন্তব্য গণমাধ্যমে আসার পর তা নিয়ে ব্যাপক সমালোচনা ওঠে।

Image caption আবদুল লতিফ সিদ্দিকী - ফাইল ছবি

অনেক ইসলামী সংগঠনের পক্ষ থেকে তাকে মন্ত্রিসভা থেকে অপসারণ ও বিচারের দাবি তোলা হয়।

এরই এক পর্যায়ে মি. সিদ্দিকীকে মন্ত্রিসভা থেকে সরিয়ে দেয়া এবং আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম ও সাধারণ সদস্য পদ থেকেও অপসারণ করা হয়।

নিউইয়র্ক থেকে তিনি মেক্সিকো হয়ে ভারতে আসেন।

এরপর ২৩শে নভেম্বর রাতে আবদুল লতিফ সিদ্দিকী ঢাকায় ফেরেন এবং পরে আদালতে আত্মসমর্পন করলে তাকে কারাগারে পাঠনো হয়।

গত ২৩শে জুন মি. সিদ্দিকী হাইকোর্ট থেকে জামিন পাওয়ার পর সোমবার বিকেলে তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতাল থেকে মুক্তি পান।

আটক অবস্থায় এই হাসপাতালে তিনি চিকিৎসাধীন ছিলেন।