কেনিয়া সফরে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা

ছবির কপিরাইট Getty
Image caption মি. ওবামা তার পিতার দিকের আত্মীয়দের সাথে নৈশভোজে

মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা তার পিতার জন্মভূমি কেনিয়ায় এই প্রথমবারের মতো এক সফরে এসে বলেছেন, নিরাপত্তা সহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে যুক্তরাষ্ট্র কেনিয়াকে সমর্থন দেবে।

কেনিয়ার মানুষের মধ্যে প্রেসিডেন্ট ওবামার এই সফর ব্যাপক আগ্রহ সৃষ্টি করেছে। ২০০৬ সালে সিনেটর নির্বাচিত হবার পর একবার কেনিয়া সফর করেছিলেন মি. ওবামা, তবে প্রেসিডেন্ট হবার পর তার পিতার জন্মভূমিতে এটাই প্রথম সফর।

কিন্তু সমকামীদের অধিকারের প্রশ্নে মি. ওবামার সাথে কেনিয়ার প্রেসিডেন্ট উহুরু কেনিয়াত্তার স্পষ্ট মতপার্থক্য দেখা গেছে।

ছবির কপিরাইট Getty
Image caption নাইরোবিতে ওবামাকে স্বাগত জানাতে লোকের ভিড়

তবে দুই প্রেসিডেন্টই বলেছেন, সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে দু'দেশ ঐক্যবদ্ধ।

প্রেসিডেন্ট ওবামা বলেছেন, কেনিয়ার নিরাপত্তা বাহিনীর জন্য যুক্তরাষ্ট্র আরো অর্থ, সহায়তা, এবং প্রশিক্ষণ দেবে।

তিনি দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াইয়ের জন্য কেনিয়ার প্রশংসা করলেও বলেছেন, উচ্চপর্যায়ের কর্মকর্তাদের দুর্নীতির বিচার হওয়া প্রয়োজন।

ছবির কপিরাইট Getty
Image caption মি. ওবামা ও কেনিয়ার প্রেসিডেন্ট উহুরু কেনিয়াত্তা

শনিবার কেনিয়ার প্রেসিডেন্ট উহুরু কেনিয়াত্তার সাথে বৈঠকের পর এক সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত হন দুই প্রেসিডেন্ট।

সেখানে এক প্রশ্নের জবাবে বারাক ওবামা সমকামীদের অধিকারের প্রতি তার জোরালো সমর্থন ব্যক্ত করেন।

তবে মি. কেনিয়াত্তা বলেণ, সমকামীদের অধিকারের প্রশ্নটি কেনিয়ার মানুষের কাছে বড় কোন চিন্তার বিষয় নয়।

ছবির কপিরাইট Getty
Image caption নাইরোবিতে ১৯৯৮ সালের আক্রমণে নিহতদের প্রতি ওবামার শ্রদ্ধানিবেদন

তিনি বলেন, আমাদের মানতে হবে যে কিছু জিনিস আছে যা কেনিয়ার সমাজ ও সংস্কৃতিতে গ্রহণয্গ্যে নয়।

মি. ওবামা ১৯৯৮ সালে নাইরোবিতে মার্কিন দূতাবাসে সন্ত্রাসী হামলায় নিহতদের স্মরণে নির্মিত এক স্মৃতিসৌধে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম আফ্রিকান-আমেরিকান প্রেসিডেন্ট ওবামার পিতা অর্থনীতিবিদ বারাক হোসেন ওবামা সিনিয়রের জন্ম হয় বৃটিশ শাসনাধীন কেনিয়াতে।

শুক্রবার সন্ধ্যায় মি. ওবামা তার পিতার দিকের আত্মীয় স্বজনদের সাথে এক নৈশভোজেও যোগ দেন।