গাইবান্ধায় আওয়ামী লীগ এমপির গুলিতে শিশু আহত

ছবির কপিরাইট Focus Bangla
Image caption হাসপাতালে চিকিৎসাধীন গুলিবিদ্ধ শিশু সৌরভ

বাংলাদেশের উত্তরাঞ্চলীয় জেলা গাইবান্ধায় স্থানীয় আওয়ামী লীগ এমপির গুলিতে নয় বছরের এক শিশু আহত হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

আওয়ামী লীগের এমপি মঞ্জুরুল ইসলাম লিটন সুন্দরগঞ্জ উপজেলার এক রাস্তার পাশে গাড়ি থামিয়ে গুলি চালালে এই শিশুটি আহত হয় বলে অভিযোগ করে তার পরিবার।

তবে এমপি মঞ্জুরুল ইসলামের বক্তব্য জানার জন্য অনেকবার চেষ্টা করেও কোন সাড়া পাওয়া যায়নি।

গুলিবিদ্ধ শিশু শাহাদাত হোসেন সৌরভ চতুর্থ শ্রেনীর ছাত্র।

তার পিতা মো: সাজু মিয়া বলেছেন, “আমার শিশু সন্তান ভোরে চাচার সাথে বাড়ির সামনে রাস্তায় হাঁটতে বেরিয়েছিল।তখন ঐ পথ দিয়ে যাচ্ছিলেন স্থানীয় সংসদ সদস্য মঞ্জুরুল ইসলাম লিটন।সংসদ সদস্য গাড়ি থামিয়ে আমার সন্তানের পায়ে তিনটি গুলি করে ঘটনাস্থল থেকে চলে যায়।”

শিশুটির চাচা মো: শাহজাহান মিয়া জানিয়েছেন, অন্যান্য দিনের মতো শুক্রবার ভোরে তিনিই শিশুটিকে নিয়ে হাটতে বেরিয়েছিলেন।সে সময় সংসদ সদস্য গাড়ি থামিয়ে ইশারায় তাকে গাড়ির কাছে ডেকে নেন।তাদের কথাবার্তার একপর্যায়ে সংসদ সদস্য তাকে গাড়িতে উঠতে বলেছিলেন।কিন্তু তিনি গাড়িতে না উঠে দ্রুত সেখান থেকে সরে যাওয়ার চেষ্টা করলে সংসদ সদস্য তাকে লক্ষ্য করে গুলি ছোঁড়ে।সেই গুলিতে সেখানে তার সাথে থাকা শিশুটি গুলিবিদ্ধ হয়।

শিশুটির পিতা এবং চাচা আরও অভিযোগ করেছেন, আহত শিশুকে সুন্দরগঞ্জ হাসপাতাল থেকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার সময় রাস্তায় তাদের এ্যাম্বুলেন্সকেও সংসদ সদস্যের পক্ষ থেকে আটকানো হয়। অনেকটা সময় পর এ্যাম্বুলেন্স ছেড়ে দিলে তারা শিশুটিকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান।

ঘটনা সম্পর্কে স্থানীয় পুলিশ স্পষ্ট করে কিছু বলছে না।গাইবান্ধা জেলার পুলিশ সুপার আশরাফুল ইসলাম বলেছেন,একটা গুলির ঘটনা ঘটেছে, এটা সঠিক।শিশুটির পায়ে গুলি লেগেছে। কিন্তু সংসদ সদস্যের ছোঁড়া গুলিতে ঐ শিশু আহত হয়েছে কিনা, সে প্রশ্নে মি: ইসলাম এটুকুই বলেছেন, তারা ঘটনার তদন্ত করছেন।

সংসদ সদস্য মঞ্জুরুল ইসলাম লিটনের কোন বক্তব্য পাওয়া যায়নি।তবে তাঁর স্ত্রী সৈয়দা খুরশিদ জাহান বলেছেন, জামায়াতের একদল নেতাকর্মি রাস্তায় গাড়ি ঘেরাও করলে তার স্বামী তখন মাটির দিকে এক রাউন্ড গুলি করেছিলেন।তাতে কারও আহত হওয়ার বিষয়ে তাদের জানা নাই। এই বর্ণনা তিনি তার স্বামী এবং লোকমুখে শুনেছেন বলে জানান।

এদিকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, গুলির খোসা পাওয়া না গেলেও শিশুটির ডান পায়ে একটি এবং বাম পায়ে দুইটি গুলির ক্ষত রয়েছে।অনেক রক্তক্ষরণ হলেও শিশুটি বিপদমুক্ত।

ঘটনা ব্যাপারে এখনও কোন মামলা হয়নি।