বিপিএল-এর আসন্ন মৌসুমে লটারিতে কারা গেলেন কোন্‌ দলে

ছবির কপিরাইট BCB
Image caption লটারির মাধ্যমে দেশী বিদেশী খেলোয়াড় ভাগাভাগি হয়েছে বিপিএল-এর তৃতীয় মৌসুমের জন্য

একমাস পরে শুরু হতে যাওয়া বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ বা বিপিএলের তৃতীয় মৌসুমের খেলোয়াড় বাছাই প্রক্রিয়ায় আজ বৃহস্পতিবার লটারির মাধ্যমে ছয়টি ফ্রাঞ্চাইজ দলের দেশী বিদেশী খেলোয়াড় ভাগাভাগি করা হয়েছে।

আগের দুই মৌসুমে নিলামের মাধ্যমে দলগুলো খেলোয়াড় নিলেও এবারে লটারির মাধ্যমে খেলোয়াড় ভাগাভাগি করা হয়েছে।

অতি মূল্যায়নের অজুহাতে খেলোয়াড়দের প্রাপ্য পরিশোধ করবার না করার অভিযোগের প্রেক্ষাপটে এবার বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড আগে থেকেই দেশী এবং বিদেশী খেলোয়াড়দের বিক্রয়মূল্য ঠিক করে দিয়েছিল।

ফলে নিলামের আর আবশ্যকতা ছিল না । তাই ফ্রাঞ্চাইজগুলো আজ পছন্দের খেলোয়াড়দের দলে অন্তর্ভূক্ত করেছে লটারির মাধ্যমে।

বিপিএলের আগের দুই মৌসুম শেষ হবার পর দেখা গেছে খেলোয়াড়দের প্রাপ্য বুঝিয়ে দিতে গড়িমসি করেছে দলগুলো, যা সমাধান করতে পরে হস্তক্ষেপ করতে হয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড বিসিবিকে।

তাই বোর্ড এবার আগে থেকেই সতর্ক।

ছবির কপিরাইট BCB
Image caption বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড আগে থেকেই দেশী এবং বিদেশী খেলোয়াড়দের বিক্রয়মূল্য ঠিক করে দিয়েছিল।

টুর্নামেন্টে অংশ নিতে আগ্রহী ১৩০ জন দেশী এবং ১৪৮জন বিদেশী খেলোয়াড়কে ৫টি ক্যাটাগরিতে বিভক্ত করে তাদের বিক্রয়মূল্য ঠিক করে দেয়া হয় আগেই, আর ফ্রাঞ্চাইজগুলো যাতে প্রাপ্য বুঝিয়ে দিতে গড়িমসি করতে না পারে সেই জন্য বিসিবি আগেই জমা নিয়ে নেয় সিকিউরিটি মানি।

লটারির শুরুতেই বাংলাদেশ দলের এখনকার নির্ভরযোগ্য ব্যাটসম্যান সৌম্য সরকারকে বেছে নেয় রংপুর । দ্বিতীয় খেলোয়াড় হিসেবে ঢাকা দল পায় বোলিং সেনসেশন মোস্তাফিজুর রহমানকে ।

নিলাম না হওয়ায় প্লেয়ার্স ড্রাফট নামের এই প্রক্রিয়াকে ঘিরে উত্তেজনার পারদ তেমন না চড়লেও এ নিয়ে আগ্রহের কমতি ছিল না।

সবারই নজর ছিল, প্রিয় দল গঠিত হচ্ছে কোন কোন খেলোয়াড়কে নিয়ে।

এবার বাংলাদেশ জাতীয় দলের তারকা সাকিব, তামিম, মুশফিকুর, মাশরাফি, মাহমুদুল্লাহ, আর নাসিরকে আইকন খেলোয়াড় হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। তাদের বিক্রয়মূল্যই সবথেকে বেশি, ৩৫ লাখ টাকা করে এবং ছয়টি ফ্রাঞ্চাইজ দলকে বেছে নিতে দেওয়া হয়েছে এরকম একজন করে আইকন।

লটারিতে শেষপর্যন্ত ঘরের ছেলে তামিমকে পেয়েছে চট্টগ্রাম, সাকিবকে পেয়েছে রংপুর, মাশরাফিকে কুমিল্লা, মুশফিকুরকে সিলেট, মাহমুদুল্লাহকে বরিশাল আর নাসির হোসেনকে পেয়েছে ঢাকা। এরাই দলগুলোর সম্ভাব্য অধিনায়ক।

আগ্রহ ছিল বিদেশী খেলোয়াড়দের নিয়েও।

এবার তালিকার ১৪৮জন বিদেশী খেলোয়াড়ের মধ্যে ৪৪ জনই পাকিস্তানের। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ইংল্যান্ডের, ৩৫ জন।

উল্লেখযোগ্যদের মধ্যে চট্টগ্রাম পেয়েছে শ্রীলংকার জীভান মেন্ডিস, পাকিস্তানের সাঈদ আজমল ও দক্ষিণ আফ্রিকার রবিন পিটারসেনকে।

ঢাকা পেয়েছে পাকিস্তানি বোলার সোহেল খান, ব্যাটসম্যান শাহজিব হাসান ও ইংলিশ বোলার ডেভড মালামকে।

বরিশাল পেয়েছে পাকিস্তানি বোলার মোহাম্মদ সামিকে, কুমিল্লা পেয়েছে শ্রীলংকান বোলার নুয়ান কুলাসেকারা, ব্যাটসম্যান লাহিরু থিরিমান্নে ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের বোলার আন্দ্রে রাসেলকে।

রংপুরের ভাগ্যে উঠেছে আফগান অলরাউন্ডার মোহাম্মদ নবীর নাম সেইসঙ্গে পাকিস্তানি বোলার ওয়াহাব রিয়াজ।

আর সিলেট পেয়েছে ইংল্যান্ডের অলরাউন্ডার ক্রিস জর্ডান, ব্যাটসম্যান যশোয়া কপ আর পাকিস্তানি বোলার সোহেল তানভীরকে।

এছাড়া শহীদ আফ্রিদি, অজন্তা মেন্ডিস, রবি ভোপারা, ড্যারেন সামি, উমর আকমল, ক্রিস গেইলের মতো তারকা খেলোয়াড়দের আগেভাগেই দলগুলো চুক্তিবদ্ধ করে ফেলায় তাদের নাম আর আজকের লটারিতে আসেনি।

এদিকে শ্রীলংকার তিলকারত্নে দিলশানকে চট্টগ্রাম এবং রংপুর দুদলই চুক্তিবদ্ধ করেছে বলে দাবি করার ফলে একটি সংকট তৈরি হয়েছে।

অন্যান্য বারের মতো এবারও ভারতীয় খেলোয়াড় অংশ নিচ্ছে না বিপিএলে।

খেলোয়াড়দের প্রাপ্য না দেয়া এবং ফিক্সিংয়ের অভিযোগের প্রেক্ষাপটে এবার বিপিএলের ফ্রাঞ্চাইজগুলোর মালিকানায় ব্যাপক রদবদল হয়েছে।

আগের সাতটি দল থেকে একটি কমে এবার দল হয়েছে ছটি, বাদ পড়েছে খুলনা আর রাজশাহী, যোগ হয়েছে কুমিল্লা।

শহরগুলোর নামের শেষে যোগ করা যোগ করা চমকপ্রদ বিশেষণেও এসেছে ব্যাপক পরিবতর্ন, ফলে দলগুলোর নাম দাঁড়িয়েছে ঢাকা ডিনামাইট, চট্টগ্রাম ভাইকিংস, রংপুর রাইডার্স, বরিশাল বুলস, সিলেট সুপারস্টার্স এবং কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস।

আজকের লটারিতে ছজন আইকন ছাড়াও ৫৭ জন বাংলাদেশি এবং উনিশজন বিদেশী খেলোয়াড়কে দলে অন্তর্ভূক্ত করেছে দলগুলো।