ব্রেক্সিটের পক্ষেই বরিস জনসন, ধাক্কা খেলেন ক্যামেরন

boris_johnson ছবির কপিরাইট Getty
Image caption লন্ডনের মেয়র বরিস জনসন

লন্ডনের মেয়র তথা কনজার্ভেটিভ পার্টির নেতা বরিস জনসন ব্রিটেনের আসন্ন গণভোটে ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে ব্রিটেনের বেরিয়ে আসার পক্ষে প্রচার করবেন। প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরনের জন্য এটা একটা বড় ধাক্কা।

ব্রিটিশ মন্ত্রীরা যখন ইউরোপীয় ইউনিয়নে ব্রিটেনের সদস্যপদ বহাল রাখার জন্য প্রচার শুরু করতে যাচ্ছেন তখনই মেয়র বরিস জনসনের এই সিদ্ধান্তের কথা জানা গেল।

প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন এর আগে ঘোষণা করেছেন ইউরোপীয় ইউনিয়নে ব্রিটেনের থাকা না-থাকার প্রশ্নে চলতি বছরের ২৩শে জুন ব্রিটেনে গণভোট অনুষ্ঠিত হবে।

মি ক্যামেরন বিবিসিকে এ কথাও বলেছেন যে ইউরোপীয় ইউনিয়নে থেকে ব্রিটেনের বেরিয়ে আসা (যাকে এখন বলা হচ্ছে ব্রেক্সিট) হবে ‘অন্ধকারে ঝাঁপ দেওয়ার সামিল’।

বিবিসি-র রাজনৈতিক সংবাদদাতা লরা কুয়েনসবার্গ মনে করছেন বরিস জনসনের সিদ্ধান্ত ‘ব্রেক্সিট’ বা ‘আউট’ শিবিরের জন্য বিরাট মনোবল বাড়ানোর কাজ করবে।

উল্টোদিকে প্রধানমন্ত্রী ক্যামেরনের জন্য এটা হবে বড় একটা ধাক্কা – কারণ তিনি ইতিমধ্যেই তার বন্ধু ও প্রতিপক্ষদের মধ্যে ব্রিটেনের ইউরোপীয় ইউনিয়নে থাকার পক্ষে সওয়াল শুরু করে দিয়েছেন।

লন্ডনের মেয়র বরিস জনসন গত বছর শহরের একটি নির্বাচনী কেন্দ্র থেকে পার্লামেন্টে জিতে এসেছেন। তিনি ছাড়াও ক্যামেরন মন্ত্রিসভার আরও ছজন সদস্য ‘আউট’ শিবিরকে সমর্থন জানাচ্ছেন।

এমন কী লন্ডনের মেয়র পদে বরিস জনসনের উত্তরসূরী হওয়ার জন্য টোরি পার্টির প্রার্থী হিসেবে যিনি মে মাসের ভোটে লড়ছেন, সেই জ্যাক গোল্ডস্মিথও বলেছেন তিনি ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে বেরিয়ে আসার পক্ষেই ভোট দেবেন।