কিভাবে দিন কাটছে তিতাসের মালোপাড়ার জেলেদের?
আপনার ডিভাইস মিডিয়া প্লেব্যাক সমর্থন করে না

কিভাবে দিন কাটছে মালোপাড়ার জেলেদের?

তিতাস নদীর জেলেদের জীবনযুদ্ধ নিয়ে কালজয়ী উপন্যাস 'তিতাস একটি নদীর নাম' লিখেছিলেন অদ্বৈত মল্লবর্মণ।

লেখকের শৈশবও কেটেছে তিতাসের পাড়ে, গোকর্ণ ঘাটের মালোপাড়ায়।

তাঁর সময়ে তিতাসে মাছ ছিল বিস্তর, কিন্তু দাম ছিল না। এখন পরিস্থিতি উল্টো, মাছের দাম অনেক হলেও তিতাসে মাছ নেই।

ফলে মালোপাড়ার অনেক জেলেই এখন জীবিকা বদলাচ্ছেন।

কিন্তু যারা এখনও এই পেশায় রয়েছেন, তাদের দিন কিভাবে কাটছে?

ছবির কপিরাইট BBC Bangla
Image caption মালোপাড়ার অনেক জেলেই এখন জীবিকা বদলাচ্ছেন। তবে যারা আছেন তাঁদের জীবন কষ্টেই কাটছে।

শুনুন মালোপাড়ার এক জেলে নির্মল মল্লবর্মণের অভিজ্ঞতা। তাঁর সাথে কথা বলেছেন আহরার হোসেন।

নদীতে মাছ মেরেই যাঁর আয় ছিল তিন মাস ধরে তিনি ঘরে বসে রয়েছেন কারণ নদীতে পানি নাই।

“ঠিকমতো রুজি করতে পারিনা। বাচ্চাকাচ্চারে লেখাপড়া করাইতে পারিনা। সংসারে অভাব অনটন থাকলেতো অশান্তি থাকে, এজন্য অনেক মানুষ আমাদের গ্রাম থেকে ভারত চইলা গেছে”-বলেন তিনি।

এখন একশো দশটা পরিবার রয়েছে ওই পাড়ায়।

নির্মল মল্লবর্মণ জানালেন “এর মধ্যে চল্লিশটা পরিবার মাছ মারে, আর সত্তরটা ঘর মাছ মারেনা। কেউ শুঁটকি বেচে, কেউ ফার্মেসী করে, কেউ ব্যবসা করে”।