'বাংলাদেশে হিন্দুদের মনে চিড় ধরেছে'-বিজেপি নেতা

hindu priest ছবির কপিরাইট AFP
Image caption ফ্রেব্রয়ারিতে পঞ্চগড়ে একজন হিন্দু পুরুতকে হত্যার পর আহাজারি করছেন তার পরিবারের সদস্যরা (ফাইল ফটো)

ভারতের ক্ষমতাসীন দল বিজেপি’র একজন কেন্দ্রীয় নেতা বলেছেন বাংলাদেশে হিন্দুদের মনোবলে যে ‘চিড়’ ধরেছে সেটিকে ফিরিয়ে আনতে হবে।

বর্তমানে বাংলাদেশ সফররত বিজেপির একটি প্রতিনিধি দলের সদস্য অরুন হালদার বিবিসি বাংলাকে বলেছেন, বাংলাদেশের বহু হিন্দু তাদের বলেছে যে দেশটিতে তারা নিরাপদ বোধ করছে না।

তিনি বলেন দেশে ফিরে বাংলাদেশের হিন্দুদের এই মনোভাব তারা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির কাছে তুলে ধরবেন।

বাংলাদেশের মাদারীপুর জেলায় একটি সংগঠনের আমন্ত্রনে ‘আন্তর্জাতিক সনাতন ধর্ম সম্মেলনে’ যোগ দিতে এই দলটি কয়েকদিন আগে বাংলাদেশে আসে।

যে তিনজন রাজনীতিবিদ এই দলে রয়েছেন তাদের একজন হচ্ছেন বিজেপির’র ন্যাশনাল এক্সিকিউটিভ কমিটির সদস্য অরুণ হালদার। বাকি দু’জনের একজন হচ্ছেন বিজেপি’র সমমনা রাজনৈতিক দল রিপাবলিকান পার্টি অব ইন্ডিয়ার সভাপতি রামদাস আতোয়াল এবং অন্যজন পশ্চিমবঙ্গ বিজেপি’র নেতা সুরেশ পুজারী।

বাংলাদেশের সরকারী সূত্রগুলো বলছে, ভারতীয় এই দলটির সফর সরকারী পর্যায়ের কোন সফর নয়। কিন্তু তারপরেও তারা যে দেশের বিভিন্ন জায়গায় যাচ্ছে সে বিষয়ে সরকার অবহিত। দলটি মাদারীপুর ছাড়াও ঝালকাঠি, পটুয়াখালি এবং চট্টগ্রাম সফর করেছে।

ছবির কপিরাইট FACEBOOK GITIARA NASREEN
Image caption নারায়নগঞ্জে একজন হিন্দু শিক্ষককে কান ধরে ওঠবস করার ঘটনার উদাহরণ দিয়েছেন বিজেপি নেতা

মঙ্গলবার ঢাকায় বিবিসিকে মি হালদার বলেন, “(মাদারীপুরের) সম্মেলন থেকে আওয়াজ উঠেছে যে হয় আমাদের সুরক্ষার-নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হোক, না হলে আমরা এখান থেকে দলে-দলে সব পশ্চিমবঙ্গে চলে যাব।”

মি হালদার বলেন, বাংলাদেশে বিভিন্ন জায়গায় হিন্দুদের উপর ‘আক্রমন এবং নির্যাতনের’ বিষয় নিয়ে ভারত সরকার চিন্তিত।

তবে এ নিয়ে সরকারকে দায়ী করেননি তিনি। বিজেপির এই নেতা বরঞ্চ বলেন, আওয়ামী লীগ সরকারের উপর তাদের সম্পূর্ণ আস্থা আছে।

“আওয়ামী লীগ সরকার সবসময় হিন্দুদের স্বার্থ সুরক্ষা করে থাকে। এটা সারা জায়গায় তথা আমাদের ভারতবর্ষেও এ খবর প্রচলিত আছে। ”

তাহলে হিন্দুদের ‘অনিরাপদ’ বোধ করার যে অভিযোগ, সেজন্য কে দায়ী? বিবিসির এই প্রশ্নে অরুন হালদার বলেন যারা জঙ্গীদের মদদ দেয় তারা হিন্দুদের উপর আক্রমন চালিয়ে আওয়ামী লীগ সরকারকে 'বদনাম কারার’ চেষ্টা করছে।

তিনি বলেন, ঢাকার ভারতীয় দূতাবাদ থেকে তাদের এই তথ্য দেওয়া হয়েছে।

বাংলাদেশে হিন্দুদের নিরাপত্তা নিয়ে বিজেপির নেতার বক্তব্য সম্পর্কে প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম বিবিসিকে বলেন ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের নিরাপত্তা বিধানের জন্য সরকার অঙ্গীকারাবদ্ধ।

“ দলীয়ভাবে আমরা ধর্মনিরপেক্ষ যেমন, কিংবা সরকারের দিকে যদি তাকান দেখবেন সেখানে সংখ্যালঘুদের সংখ্যা তুলনামূলকভাবে অনেক বেশি। চাকরী বলুন কিংবা অন্যান্য জায়গাতেই বলুন, সব জায়গাতেই।”

চিঠিপত্র: সম্পাদকের উত্তর